বাংলা নিউজ > ময়দান > টোকিও অলিম্পিক্স > হাই জাম্পে অস্ট্রেলিয়াকে পদকের স্বপ্ন দেখাচ্ছেন মিচেল স্টার্কের ভাই ব্রেন্ডন স্টার্ক
মিচেল স্টার্ক ও ব্রেন্ডন স্টার্ক (ছবি: ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া)

হাই জাম্পে অস্ট্রেলিয়াকে পদকের স্বপ্ন দেখাচ্ছেন মিচেল স্টার্কের ভাই ব্রেন্ডন স্টার্ক

  • ২০১৬ রিও অলিম্পিকে ১৫তম স্থান দখল করেছিলেন মিচেল স্টার্কের ছোট ভাই। এবার টোকিও অলিম্পিক্সে পদক জয়ের সুবর্ণ সুযোগ রয়েছে ব্রেন্ডন স্টার্কের।

ব্রেন্ডন স্টার্কের দিকে তাকিয়ে রয়েছে অস্ট্রেলিয়ার ক্রীড়ামহল। সবকিছু ঠিকঠাক চললে ব্রেন্ডনের হাত ধরে অলিম্পিক্সে আরও একটি পদক জিতবে অস্ট্রেলিয়া। শুক্রবার হাই জাম্পের ইভেন্টে গ্রুপ ‘বি’ থেকে দ্বিতীয় হয়ে ফাইনালে উঠেছেন ব্রেন্ডন স্টার্ক।

১ অগস্ট পদকের জন্য জাম্প দেবেন স্টার্ক। এবার মনে হতেই পারে এত অ্যাথলিট থাকতে হঠাৎ স্টার্কের কথাই কেন বলছি। আসলে ঘটনা হল ব্রেন্ডন স্টার্কের দাদার নাম হল মিচেল স্টার্ক। ক্রিকেট বিশ্বে যাকে এক নামেই সকলে চেনেন। সেই মিচেল স্টার্কের ভাই এবার অস্ট্রেলিয়াকে হাই জাম্পে পদকের স্বপ্ন দেখাচ্ছেন। ২০১৪ কমনওয়েলথ গেমসে ৮ম স্থান দখলের পর ২০১৮ কমনওয়েলথে সোনা জেতেন ব্রেন্ডন স্টার্ক। ২০১৬ রিও অলিম্পিকে ১৫তম স্থান দখল করেছিলেন মিচেল স্টার্কের ছোট ভাই। এবার অলিম্পিক্সে সোনা জয়ের সুবর্ণ সুযোগ। 

(টোকিয়ো অলিম্পিক্স ২০২০-এর যাবতীয় খবর, আপডেটের জন্য চোখ রাখুন -- এখানে)

২৭ বছর বয়সী এই হাই জাম্প অ্যাথলেট মিচেল স্টার্কের ৪ বছরের ছোট। বড় ভাইয়ের মতই ছোট থেকেই খেলাধুলায় আগ্রহ ছিলেন ব্রেন্ডন স্টার্ক। তবে ছেলেবেলায় ভাবেননি হাই জাম্প বেছে নেবেন। ব্রেন্ডন অবশ্য মিচেলের মত ক্রিকেট খেলেছেন। খেলেছিলেন ফুটবলও। পরে হাইজাম্পকে ভালবেসে ফেলেন। চেষ্টা করতে করতে একসময় এই খেলাকেই পছন্দ করে নেন তিনি। এরপর মনোযোগ দিয়ে অনুশীলন শুরু করেন। বড় ভাই মিচেল স্টার্ক যখন গতির ঝড়ে ব্যাটসম্যানের নাভিশ্বাস তোলেন, তার ছোট ভাই ব্রেন্ডন স্টার্ক তখন স্বপ্ন দেখেন আকাশ ছোঁয়ার। আক্ষরিক অর্থেই তাই। ইঞ্জুরি, অস্ত্রোপচারের ধকল সামলেও হাই জাম্প ছেড়ে যাননি।

মিচেল স্টার্ক ও ব্রেন্ডন স্টার্ক (ছবি: ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া)
মিচেল স্টার্ক ও ব্রেন্ডন স্টার্ক (ছবি: ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া)

২৭ বছর বয়সী এই হাই জাম্প অ্যাথলেট মিচেল স্টার্কের ৪ বছরের ছোট। বড় ভাইয়ের মতই ছোট থেকেই খেলাধুলায় আগ্রহ ছিলেন ব্রেন্ডন স্টার্ক। তবে ছেলেবেলায় ভাবেননি হাই জাম্প বেছে নেবেন। ব্রেন্ডন অবশ্য মিচেলের মত ক্রিকেট খেলেছেন। খেলেছিলেন ফুটবলও। পরে হাইজাম্পকে ভালবেসে ফেলেন। চেষ্টা করতে করতে একসময় এই খেলাকেই পছন্দ করে নেন তিনি। এরপর মনোযোগ দিয়ে অনুশীলন শুরু করেন। বড় ভাই মিচেল স্টার্ক যখন গতির ঝড়ে ব্যাটসম্যানের নাভিশ্বাস তোলেন, তার ছোট ভাই ব্রেন্ডন স্টার্ক তখন স্বপ্ন দেখেন আকাশ ছোঁয়ার। আক্ষরিক অর্থেই তাই। ইঞ্জুরি, অস্ত্রোপচারের ধকল সামলেও হাই জাম্প ছেড়ে যাননি। |#+|

চেহারায় দারুন মিল রয়েছে মিচেল স্টার্ক আর ব্রেন্ডন স্টার্ককের। ক্রীড়াজগত মাতিয়ে বেরাচ্ছেন দুই ভাই। বড় ভাই বাইস গজ কাঁপাচ্ছেন আর ছোট ভাই তখন কাঁপাচ্ছেন অলিম্পিক্সের মঞ্চ। ক্রীড়া পরিবারে বেড়ে ওঠা মিচেল স্টার্ক ক্রিকেট বিশ্বে বর্তমান সময়ের অন্যতম সেরা পেসার। এবং তার ভাই ব্রেন্ডন স্টার্ক হাই জাম্পে বিশ্বের অন্যতম সেরা অ্যাথলিট। টোকিও অলিম্পিক্সে ব্রেন্ডন উঠে গেছেন হাই জাম্প ইভেন্টের ফাইনালে। ১ অগস্ট তার ইভেন্টের ফাইনাল অনুষ্ঠিত হবে।

টোকিও অলিম্পিক্সে পদক জয়ের সুবর্ণ সুযোগ রয়েছে ব্রেন্ডন স্টার্কের সামনে (ছবি:রয়টার্স)
টোকিও অলিম্পিক্সে পদক জয়ের সুবর্ণ সুযোগ রয়েছে ব্রেন্ডন স্টার্কের সামনে (ছবি:রয়টার্স)
বন্ধ করুন