বাংলা নিউজ > ময়দান > টোকিও অলিম্পিক্স > Tokyo 2020: ঐতিহাসিক জয়ে প্রথমবার শেষ চারের টিকিট পাকা করে শুভেচ্ছায় ভাসল ভারতীয় মহিলা হকি দল
অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে জয়ের পর ভারতীয় হকি দলের উচ্ছ্বাস। ছবি- রয়টার্স। (REUTERS)

Tokyo 2020: ঐতিহাসিক জয়ে প্রথমবার শেষ চারের টিকিট পাকা করে শুভেচ্ছায় ভাসল ভারতীয় মহিলা হকি দল

  • অস্ট্রেলিয়াকে ১-০ গোলে পরাস্ত করে ভারতীয় মহিলা হকি দল।

রবিবার (১ অগস্ট) গ্রেট ব্রিটেনকে হারিয়ে ইতিহাস রচনা করেছিল ভারতীয় পুরুষ হকি দল, সোমবার (২ অগস্ট) ইতিহাসের পাতায় নাম তুলে নিলেন রানি রামপালের নেতৃ্ত্বাধীন ভারতীয় মহিলা হকি দলও। অস্ট্রেলিয়াকে ভারত ১-০ গোলে পরাস্ত করে সেমিফাইনালের টিকিট পাকা করে।

সম্ভবত এই অলিম্পিক্সে নিদেনপক্ষে হকির ক্ষেত্রে সবচেয়ে বড় দুর্ঘটনা ঘটাতে সক্ষম হল ভারতীয় হকি দল। দুর্ঘটনাই বটে, গোল্ড জেতার প্রবল দাবিদার শক্তিশালী অস্ট্রেলিয়ার মহিলা দলকে হারিয়ে ভারত সেমিফাইনালে যাবে, তা অন্তত দিন সাতেক আগেও কেউ ভাবেনি। তবে খেলার জগতে সবই সম্ভব। তাই তো বারংবার রূপকথার জন্ম দেয় খেলার মাঠ। 

রানি রামপালরাও সোমবার এক রূপকথার গল্প লিখলেন টোকিওর টার্ফে। ২২ মিনিটের মাথায় গুরজিত কউরের গোলের পর বাকি গোটা সময়ে ভারতীয় দল যে চোয়ালচাপা লড়াইটা করে গেল তা সহজে ভোলার নয়। জমাট রক্ষণ ও হার না মনোভাবের জেরেই প্রথমবার অলিম্পিক্স হকির শেষ চারে পৌঁছল মহিলা হকি দল। এহেন সাফল্যে স্বাভাবিকভাবেই শুভেচ্ছাবার্তার জোয়ারে ভেসেছে ভারতীয় দল। প্রাক্তন ও বর্তমান ক্রীড়ামন্ত্রী থেকে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী কে নেই সেই দলে।

ভারতীয় দলের ঐতিহাসিক জয়ের সদ্য প্রাক্তন হওয়া ক্রীড়ামন্ত্রীর কিরেণ রিজিজু লেখেন, ‘ভারতের স্বপ্ন সত্যি হচ্ছে। ভারতীয় পুরুষ ও মহিলা, উভয় হকি দলই টোকিওতে সেমিফাইনালে নিজেদের জায়গা পাকা করে নিয়েছে। আমার আনন্দ বা উচ্ছ্বাস ব্যক্ত করার কোন ভাষা নেই আমার কাছে।’ বর্তমান ক্রীড়ামন্ত্রী অনুরাগ ঠাকুর শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেন, ‘ঐতিহাসিক জয়। ১৩০ কোটি ভারতবাসী তোমাদের পিছনে আছে।’

বন্ধ করুন