বাংলা নিউজ > ময়দান > টোকিও অলিম্পিক্স > Tokyo 2020: ‘এটা তো সোনা নয়’, রুপো জিতেও স্বর্ণপদক হাতছাড়া হওয়ার শোকে বিহ্বল রবি কুমার দাহিয়া
রুপোর পদক হাতে হতাশ রবি কুমার দাহিয়া। ছবি- রয়টার্স। (REUTERS)
রুপোর পদক হাতে হতাশ রবি কুমার দাহিয়া। ছবি- রয়টার্স। (REUTERS)

Tokyo 2020: ‘এটা তো সোনা নয়’, রুপো জিতেও স্বর্ণপদক হাতছাড়া হওয়ার শোকে বিহ্বল রবি কুমার দাহিয়া

  • ফাইনাল বাউটে জাভুর উগুয়েভের কাছে ৪-৭ ব্যবধানে পরাজিত হন রবি কুমার।

কুস্তির ফ্রি-স্টাইলে ৫৭ কেজির বিভাগে ফাইনালে দু'বারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন জাভুর উগুয়েভের কাছে ৪-৭ ব্যবধানে হার মানেন ভারতীয় তারকা রবি কুমার দাহিয়া। নিজের প্রথম অলিম্পিক্সেই রুপোর পদক হাতে ওঠে তাঁর। তবে সোনার লক্ষ্যে টোকিওয় আসা রবি কুমার রুপো জিতে হতাশ।

অলিম্পিক্সের মঞ্চে যে কোন পদকই অত্যন্ত দুর্লভ। তার ওপর মাত্র ষষ্ঠ ভারতীয় হিসাবে রুপো জেতার কৃতিত্ব নেহাত কম নয়। তবে সেরা হওয়ার লক্ষ্যে এগানো অ্যাথলিটরা কী কোনদিন দ্বিতীয় হয়ে খুশি থাকেন না। রবি কুমার দাহিয়ার মধ্যে সেই শীর্ষ স্তরের অ্যাথলিটদের মানসিকতাই চোখে পড়ল। 

সোনা খোয়ানোর হতাশা না রুপো জেতার সন্তুষ্টি, ক্রীড়াবিদদের মধ্যে এই নিয়ে সংশয় চিরকালই থাকে। পোডিয়ামে দাঁড়ানো রবি কুমারের মধ্যে প্রথমটাই চোখে পড়ল। পরবর্তীকালে তাঁকে এই বিষয়ে জিজ্ঞেস করা হলে তিনি জানান, ‘এর (রুপোর পদক পাওয়া) লাভ কী? আমি এখানে শুধুমাত্র সোনা জেতার লক্ষ্য নিয়েই এসেছিলাম। এটা (রুপো পদক) পেয়েছি ঠিক আছে, তবে এটা তো আর সোনা নয়। সোনা জিততে পারলে আমি এর থেকে অনেক বেশি সন্তুষ্ট হতাম।’

(টোকিও অলিম্পিক্স ২০২০-র যাবতীয় খবর, আপডেটের জন্য চোখ রাখুন হিন্দুস্তান টাইমস বাংলায়)

ম্যাচের পর ২৩ বছর বয়সী কুস্তিগীর এক কোণায় একান্তে দাঁড়িয়েছিলেন। দাহিয়া স্বীকার করে নিচ্ছেন এই অভিজ্ঞতা হয়তো তাঁকে ভবিষ্যতে সাহায্য করবে তবে সোনা হারানোর ক্ষত থেকেই যাবে। ‘হয়তো এই অভিজ্ঞতা আমায় সাহায্য করবে। আমি এথানে স্বর্ণপদক জয়ের লক্ষ্যে পুরোদস্তুর প্রস্তুতি নিয়ে এসেছিলাম। আমায় এই বাস্তবের সঙ্গে সারাজীবন মানিয়ে নিতে হবে যে আমি শুধু রুপোই জিততে সক্ষম হয়েছি।’ মত রবি কুমারের।

বন্ধ করুন