বাংলা নিউজ > ময়দান > টোকিও অলিম্পিক্স > Tokyo Olympics: অতীতের মতোই অলিম্পিকের আগে ভারতীয় টেনিসে জোর বিতর্ক
এআইটিএ-র উপর চটেছেন রোহন বোপান্না (ছবি: টুইটার)
এআইটিএ-র উপর চটেছেন রোহন বোপান্না (ছবি: টুইটার)

Tokyo Olympics: অতীতের মতোই অলিম্পিকের আগে ভারতীয় টেনিসে জোর বিতর্ক

  • রোহন বোপান্না ও AITA-র মধ্যে কাদা ছোঁড়াছুঁড়ি শুরু।

অলিম্পিক হোক বা ডেভিস কাপ, ভারতের টেনিস দল নির্বাচন নিয়ে বিতর্ক নতুন কিছু নয়। কখনও লিয়েন্ডার-মহেশের পারস্পরিক মন কষাকষি। আবার কখনও ডাবলস বা মিক্সড ডাবলস পার্টনার নির্বাচন নিয়ে দড়ি টানাটানি। ভারতীয় টেনিসমহল এমন পরিস্থিতি দেখতে অভ্যস্ত। এবার টোকিও অলিম্পিকের আগেও ঠিক সেরকমই বিতর্ক তৈরি হল ভারতীয় টেনিসে। এবার রোহন বোপান্না ও সর্বভারতীয় টেনিস সংস্থার মধ্যে শুরু হয়ে গেল কাদা ছোঁড়াছুঁড়ি।

দেখে নেওয়া যাক ঘটনাক্রম:-

১. দ্বিবিজ শরনের সঙ্গে জুটিতে রোহন বোপান্নার অলিম্পিকে নামা হচ্ছে না। দু'জনে মিলিত ব়্যাঙ্কিংয়ের নিরিখে অলিম্পিকের যোগ্যতামান পেরোতে পারেননি।

২. সর্বভারতীয় টেনিস সংস্থা (AITA)-র তরফে জানানো হয় দ্বিবিজের বদলে বোপান্নার সঙ্গে সুমিত নাগাল যাতে জুটি বেধে অলিম্পিকে নামতে পারেন, সে জন্য মনোনয়ন বদল করার অনুরোধ জানানো হয়েছে আন্তর্জাতিক টেনিস সংস্থার (ITF) কাছে। যেহেতু একাধিক সিঙ্গলস প্লেয়ার অলিম্পিক থেকে নাম তুলে নিয়েছেন, তাই সিঙ্গলসে কোর্টে নামার সুযোগ পেয়ে গিয়েছেন সুমিত।

৩. বোপান্না টুইট করে দাবি করেন, AITA সকলকে ভুল বোঝাচ্ছে সুমিতের সঙ্গে তাঁর নাম মনোনীত করা হয়েছে বলে। কারণ, ২২ জুনের পর আর সাধারণভাবে মনোনয়ন বদল করা যায় না। একমাত্র অসুস্থতা বা চোটের ক্ষেত্রেই মনোনয়ন বদলানো সম্ভব। ITF-এর তরফে তাঁকে নাকি জানানো হয়েছে যে, সুমিতের সঙ্গে তাঁর ডাবলসের মনোনয়ন গৃহীতই হয়নি। বোপান্না আঙুল তোলেন ফেডারেশন সচিন অনিল ধুপরের দিকে।

৪. বোপান্নার টুইটের রেশ ধরে সানিয়া মির্জা তোপ দাগেন যে, বোপান্নার সঙ্গে তিনি জুটি বেঁধে কোর্টে নামলে মিক্সড ডাবলস থেকে ভারত পদক জিততে পারত। সেই সুযোগ নষ্ট হল।

৫.  এআইটিএর তরফে বোপান্নার এমন মন্তব্যের নিন্দা করা হয়। বরং বলা ভালো যে সংস্থার তরফে পালটা দেওয়া হয় বোপান্নাকে। স্পষ্ট দাবি করা হয় যে, বোপান্না নিজের দক্ষতায় অলিম্পিকে যোগ্যতা অর্জন করতে পারেননি। তাই তারা চেষ্টা করেছিল বোপান্না যাতে অলিম্পিক খেলতে পারে। তাদের তরফে ITF-এর কাছে অনুরোধ করা হয়েছিল ডাবলসের মনোনয়ন বদলানোর। শেষমেশ সেটা সম্ভব হয়নি। তাই সংস্থা কাউকে বিভ্রান্ত করেছে বলে মনে হয় না। আরও দাবি করা হয় যে, বোপান্নার উচিত ছিল এমন মন্তব্য করার আগে প্রকৃত ঘটনা সম্পর্কে অবগত হওয়া। কেননা ফেডারেশনের তরফে সচিব আন্তর্জাতিক সংস্থায় কী চিঠি লিখেছিলেন, তা বোপান্নার পক্ষে জানা সম্ভব নয়।

বন্ধ করুন