বাংলা নিউজ > ময়দান > ক্রাইস্টচার্চ টেস্টের প্রথম দিনে চালকের আসনে নিউজিল্যান্ড, দ্বিশতরানের দোরগোড়ায় লাথাম
দ্বিশতরানের দোরগোড়ায় ল্যাথাম (ছবি:পিটিআই)
দ্বিশতরানের দোরগোড়ায় ল্যাথাম (ছবি:পিটিআই)

ক্রাইস্টচার্চ টেস্টের প্রথম দিনে চালকের আসনে নিউজিল্যান্ড, দ্বিশতরানের দোরগোড়ায় লাথাম

  • ক্রাইস্টচার্চ টেস্টের প্রথম দিনে নিউজিল্যান্ডের সংগ্রহ ১ উইকেটে ৩৪৯ রান। লাথাম দিনের শেষে অপরাজিত ১৮৬ রানে।

শুভব্রত মুখার্জি: ∆ নিউজিল্যান্ড :- ৩৪৯/১ (ল্যাথাম ১৮৬, কনওয়ে ৯৯)

মাউন্ট মঙ্গানুই টেস্ট জিতে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে ১-০ এগিয়ে বাংলাদেশ। এগিয়ে থেকেই ক্রাইস্টচার্চ টেস্টে খেলতে নেমেছিল টাইগার বাহিনী। কার্যত এই টেস্টে ইতিহাস গড়ার হাতছানি রয়েছে তাদের সামনে। টেস্ট জিতলে বা ড্র করলে প্রথমবার তারা কিউয়িভূমিতে টেস্ট সিরিজ জিতবে। এমন আবহে দ্বিতীয় টেস্টের প্রথম দিনের শেষেই কার্যত ব্যাকফুটে বাংলাদেশ। টম লাথামের অনবদ্য শতরানে তারা বেশ চাপে পড়ে গিয়েছে। নিজের দ্বিশতরান থেকে আর মাত্র ১৪ রান দূরে রয়েছেন লাথাম। সারাদিনে বাংলাদেশের বোলররা একটি মাত্র উইকেট নিতে সক্ষম হয়েছেন। ইয়ংকে প্যাভিলিয়নে ফিরিয়েছেন শরিফুল ইসলাম।

মেঘলা আকাশ, ঘাসে ভরা উইকেটে এদিন কাঙ্ক্ষিত টসও জিতেছিলেন মুমিনুল হক। কিন্তু টাইগারদের পেস আক্রমণকে একেবারে নির্বিষ মনে হল। ফলস্বরুপ রানের জোয়ার আনল নিউজিল্যান্ড। বোলিং সহায়ক কন্ডিশনে বাংলাদেশের ধারহীন বোলিং কাজে লাগিয়ে টম লাথাম এখন তাকিয়ে ডাবল সেঞ্চুরির দিকে। তাকে যোগ্য সঙ্গত দেওয়া অপর বাঁহাতি ব্যাটার ডেভন কনওয়ে দাঁড়িয়ে সেঞ্চুরির দোড়গোড়াতে।

ক্রাইস্টচার্চ টেস্টের প্রথম দিনে নিউজিল্যান্ডের  সংগ্রহ ১ উইকেটে ৩৪৯ রান। লাথাম দিনের শেষে অপরাজিত ১৮৬ রানে। নিউজিল্যান্ডের ভারপ্রাপ্ত অধিনায়কের ব্যাট থেকে এসেছে ২৮টি বাউন্ডারি। অভিজ্ঞ বাঁহাতি ব্যাটারের এটি দ্বাদশ টেস্ট সেঞ্চুরি। অধিনায়ক হিসেবে আগের ৫ টেস্টে তার একটি অর্ধশতরানও ছিল না।কনওয়ে দিন শেষে করেছেন অপরাজিত ৯৯ রানে। আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে ডেভন এখন অপেক্ষায় পঞ্চম টেস্টে তৃতীয় সেঞ্চুরির। জুটিতে দুটি রেকর্ডও গড়ে ফেলেছেন লাথাম। উইল ইয়াংয়ের সঙ্গে একটি এবং কনওয়ের সঙ্গে চলতি জুটিতে আরেকটি রেকর্ড গড়ে ফেলেছেন তিনি। প্রথমটি ক্রাইস্টচার্চে প্রথম উইকেট জুটির রেকর্ড, দ্বিতীয়টি দ্বিতীয় উইকেটের।

লাথাম ও ইয়ংয়ের উদ্বোধনী জুটি এদিন বড় রানের ভিত গড়ে দেয়। সাজানো হয় রান উৎসবের মঞ্চ। ১৪৮ রানের দারুণ জুটি গড়েন লাথাম ও ইয়ং। যা ভেঙে দেয় এই মাঠে আগের প্রথম উইকেট জুটির ৩৭ রানের রেকর্ডকে। দ্বিতীয় উইকেটে এই মাঠের প্রথম দুইশ রানের জুটি হয় এরপর। দিনের শেষে লাথাম ও কনওয়ের অবিচ্ছন্ন জুটির রান ২০১। আগের টেস্টে দুর্দান্ত বোলিং করা পেস আক্রমণ এদিন সহায়ক কন্ডিশনেও ভীষণ বিবর্ণ ছিল। কোনও পেসার ধারাবাহিক লাইন এবং লেন্থে বল করতে পারেননি। এই উইকেটে প্রয়োজন ছিল ফুল লেংথে বেশি বল করা। তিন পেসারই খাটো লেংথে ও স্টাম্পের বাইরে বল করেছেন একাধিকবার। দিনের একমাত্র উইকেট নিয়েছেন শরিফুল ইসলাম। আগের টেস্টের নায়ক এবাদত হোসেন সুযোগ সৃষ্টি করেছিলেন কিছু তবে তা কাজে লাগানো সম্ভব হয়নি।

বন্ধ করুন