বাংলা নিউজ > ময়দান > ইস্টবেঙ্গেল ক্লাবের প্রতিষ্ঠা দিবসে নতুন স্বপ্ন দেখাচ্ছেন ক্লাব কর্তারা, আশায় ডুবে সমর্থকেরা
প্রদীপ প্রজ্জ্বলন করলেন ক্লাবের দুই প্রাক্তন অধিনায়ক বিকাশ পাঁজি ও তুষার রক্ষিত (ছবি: ফেসবুক)
প্রদীপ প্রজ্জ্বলন করলেন ক্লাবের দুই প্রাক্তন অধিনায়ক বিকাশ পাঁজি ও তুষার রক্ষিত (ছবি: ফেসবুক)

ইস্টবেঙ্গেল ক্লাবের প্রতিষ্ঠা দিবসে নতুন স্বপ্ন দেখাচ্ছেন ক্লাব কর্তারা, আশায় ডুবে সমর্থকেরা

  • ইস্টবেঙ্গেল ক্লাবের প্রতিষ্ঠা দিবসে প্রাক্তন ফুটবলার বিকাশ পাঁজি, তুষার রক্ষিত, ষষ্ঠি দুলে, ফাল্গুনি দত্তরা ক্লাবে উপস্থিত ছিলেন। এর মাঝেই ক্লাবের ঐতিহাসিক দিনে চুক্তি জট কাটার ইঙ্গিত দিলেন ক্লাব কর্তা দেবব্রত সরকার।

শতবর্ষ পেরিয়ে ১০২ বছরে পা রাখল ঐতিহ্যবাহী ইস্টবেঙ্গল ক্লাব। করোনা অতিমারীর মধ্যে সরকারের সকল বিধি নিষেধ মেনেই রবিবার পালন করা হল ইস্টবেঙ্গলের ১০২তম প্রতিষ্ঠা দিবস। প্রথমে ক্লাবের পতাকা উত্তোলন থেকে প্রদীপ প্রজ্জ্বলন সব কিছুই আয়োজন করা হয়েছিল। পরে নবরূপে সজ্জিত দ্বিতল কক্ষের শুভ দ্বারোদ্ঘাটন করা হয়। এরপরে নিয়ম মেনে পূজার আয়োজন করা হয়েছিল। করোনার পরিস্থিতির মাঝে সকল বিধি নিষেধ মেনেই এদিন ক্লাবের প্রতিষ্ঠা দিবসের পালন করা হয়।

ক্লাবের তরফ থেকে দেওয়া প্রেস বিজ্ঞপ্তি
ক্লাবের তরফ থেকে দেওয়া প্রেস বিজ্ঞপ্তি

ক্লাবের তরফ থেকে প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ‘আজ ক্লাবের সকল সদস্য, সমর্থক, শুভানুধ্যায়ীদের শুভেচ্ছা, ভালোবাসা ও আশীর্বাদকে পাথেয় করে বর্তমান অতিমারী পরিস্থিতিতে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের সমস্ত নিয়মবিধি মেনে ক্লাবের প্রতিষ্ঠা দিবস পালিত হলো পতাকা উত্তোলন, প্রদীপ প্রজ্জ্বলন ও নবরূপে সজ্জিত দ্বিতল কক্ষের শুভ দ্বারোদ্ঘাটনের মধ্যে দিয়ে। পতাকা উত্তোলন করেন ক্লাবের দুই প্রাক্তন অধিনায়ক বিকাশ পাঁজি ও তুষার রক্ষিত।’

বিকাশ পাঁজি, তুষার রক্ষিত, ষষ্ঠি দুলে, চন্দন দাস, ফাল্গুনি দত্তরা পতাকা উত্তোলন করলেন (ছবি: ফেসবুক)
বিকাশ পাঁজি, তুষার রক্ষিত, ষষ্ঠি দুলে, চন্দন দাস, ফাল্গুনি দত্তরা পতাকা উত্তোলন করলেন (ছবি: ফেসবুক)

এদিন সকালে ক্লাব প্রাঙ্গনে পতাকা উত্তোলন ও কেক কাটা দিয়ে ইস্টবেঙ্গল দিবসের সূচনা করা হয়েছিল। প্রতিষ্ঠা দিবসে ক্লাব প্রাঙ্গনে উপস্থিত ছিলেন শীর্ষ কর্তা দেবব্রত সরকার ছাড়াও কার্যসমিতির সদস্যরা। প্রাক্তন ফুটবলারদের মধ্যে বিকাশ পাঁজি, তুষার রক্ষিত, ষষ্ঠি দুলে, চন্দন দাস, ফাল্গুনি দত্তরা উপস্থিত ছিলেন। এর মাঝেই ক্লাবের ঐতিহাসিক দিনে চুক্তি জট কাটার ইঙ্গিত দিলেন ক্লাব কর্তা দেবব্রত সরকার।

এদিন দেবব্রত সরকার বলেন যে, পার্থসারথি সেনগুপ্তর মধ্যস্থতায় শ্রী সিমেন্টের সঙ্গে ইস্টবেঙ্গলের আলোচনার টেবিলে বসার সুযোগ তৈরি হয়েছে। তাঁরা আশাবাদী যে দ্রুত চুক্তি জট কেটে যাবে। পার্থসারথি সেনগুপ্তও জানিয়েছেন যে, খুব শীঘ্রই কোনও একটা সদুত্তর তিনি দিতে পারবেন। এই মুহূর্তে ইস্টবেঙ্গল সমর্থকেরা ক্লাব ও লগ্নিকারী সংস্থার মধ্যে চুক্তি জট কাটার অপেক্ষায় তাকিয়ে রয়েছে। অন্যদিকে সমর্থকেরা সোশ্যাল মিডিয়াতে নিজেদের মতো করেই প্রিয় ক্লাবের প্রতিষ্ঠা দিবস পালন করলেন।

তাঁরা ইস্টবেঙ্গল ক্লাবের প্রাণপুরুষ সুরেশ চৌধুরী, রাজা মন্মথনাথ চৌধুরী এবং কিংবদন্তি সচিব জ্যোতিষ গুহকে নিজেদের মতো করেই সম্মান জানালেন। তাদের বিশ্বাস ক্লাবকর্তা ও লগ্নিকারী সংস্থার মধ্যে চুক্তি বিতর্ক খুব শীঘ্রই মিটে যাবে।

বন্ধ করুন