বাংলা নিউজ > ময়দান > অতীতে কখনও হয়নি, সেখানে ২০২২-এ উইন্ডিজকে জোড়া হোয়াইটওয়াশের নজির ভারতের

অতীতে কখনও হয়নি, সেখানে ২০২২-এ উইন্ডিজকে জোড়া হোয়াইটওয়াশের নজির ভারতের

১১৯ রানে জয় পায় ভারত।

বুধবারের তৃতীয় এক দিনের ম্যাচ ছিল নিয়মরক্ষার। তাও পরীক্ষার পথে হাঁটেনি ভারত। বৃষ্টি বিঘ্নিত ম্যাচে সহজ জয় তুলে নিল শিখর ধাওয়ানের ভারত। বুধবার সিরিজের শেষ ম্যাচে জিতে ৩-০ ব্যবধানে ওডিআই সিরিজ জিতে টি-টোয়েন্টি সিরিজের আগে আত্মবিশ্বাস বাড়াল ভারত। 

ওয়েস্ট ইন্ডিজের ঘরের মাঠে ওডিআই সিরিজে তাদেরই হোয়াইটওয়াশ করে নয়া নজির গড়ে ফেলল ভারত। এই নিয়ে দ্বিতীয় বার তারা ক্যারিবিয়ানদের চুনকাম করল। প্রথম বার তারা ঘরের মাঠে ওডিআই সিরিজে উইন্ডিজকে হোয়াইটওয়াশ করেছিল। আর বুধবার ক্যারিবিয়ানদের ১১৯ রানে হারিয়ে ৩-০ সিরিজ পকেটে পুড়ে ফের তাদের চুনকাম করে নজির গড়ল টিম ইন্ডিয়া। এর আগে কখনও ওডিআই সিরিজে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হোয়াইটওয়াশ করতে পারেনি ভারত।

দ্বিতীয় এক দিনের ম্যাচ জেতার পরেই সিরিজ জয় নিশ্চিত হয়ে গিয়েছিল ভারতের। বুধবারের তৃতীয় এক দিনের ম্যাচ ছিল নিয়মরক্ষার। তাও পরীক্ষার পথে হাঁটেনি ভারত। বৃষ্টি বিঘ্নিত ম্যাচে সহজ জয় তুলে নিল শিখর ধাওয়ানের ভারত। বুধবার সিরিজের শেষ ম্যাচে প্রথম দুই ম্যাচের মতো লড়াই করতে পারল না ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ৩-০ ব্যবধানে এক দিনের সিরিজ জিতে টি-টোয়েন্টি সিরিজের আগে আত্মবিশ্বাস আরও বাড়িয়ে নিল টিম ইন্ডিয়া। সিরিজের শেষ ম্যাচে ডাকওয়ার্থ লুইস পদ্ধতিতে ভারত জিতল ১১৯ রানে।

আরও পড়ুন: বাদ পড়ার আশঙ্কার মধ্যেই ফর্ম নিয়ে আত্মবিশ্বাসী শিখর

বুধবার পোর্ট অব স্পেনের বৃষ্টির পূর্বাভাস ছিলই। আর সেই পূর্বাভাসকে সত্যি করে দফায় দফায় বৃষ্টি নামে। বৃষ্টির কথা মাথায় রেখেই টস জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন ধাওয়ান। আসলে ডাকওয়ার্থ লুইস পদ্ধতিতে ম্যাচ গেলে রান তাড়া করা কঠিন হয়ে যেতে পারে। সে কারণেই প্রথমে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন শিখর। আর সেটা ম্যাচে ঘটলও। ঘরের মাঠে রানের চাপেই হেরে গেল ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

ভারতের ইনিংস ৩৬ ওভার খেলা হওয়ার পর বৃষ্টি নামে। তখন ভারতের রান ৩ উইকেটে ২২৫। শুভমন গিল ৯৮ করে ক্রিজে ছিলেন। বৃষ্টির কারণে তাঁর সেঞ্চুরি অধরা থেকে যায়। এ ছাড়া শিখর করেন ৫৮। ৪৪ করেন শ্রেয়স আইয়ার। এর পর আর ভারত খেলার সুযোগ পায়নি। এ দিকে ক্যারিবিয়ান দল ডাকওয়ার্থ-লুইস নিয়মের কারণে ৩৫ ওভারে ২৫৭ রানের লক্ষ্য পায়।

আরও পড়ুন: আশঙ্কা সত্যি হল, ক্যারিবিয়ানদের বিরুদ্ধে T20 সিরিজ পাওয়া যাবে না রাহুলকে-রিপোর্ট

ওয়েস্ট ইন্ডিজের ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে বল করতে এসেই মহম্মদ সিরাজ ২ উইকেট তুলে নেন। কাইল মেয়ার্স (০) এবং শামার ব্রুকসকে (০) সাজঘরে ফিরিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের আশায় কার্যত জল ঢেলে দেন। অন্য ওপেনার সাই হোপ করলেন ২২ রান। তাঁকে ফেরান যুজবেন্দ্র চহাল। ৪৭ রানে ৩ উইকেট হারানর পর দলের হাল ধরার চেষ্টা করেন ব্র্যেন্ডন কিং এবং পুরাণ। দুই ব্যাটারই করলেন ৪২ রান। তাঁদের ফেরালেন যথাক্রমে অক্ষর পটেল এবং প্রসিদ্ধ কৃষ্ণ। ওয়েস্ট ইন্ডিজের পরের ব্যাটাররা উইকেটে এলেন এবং সাজঘরে ফিরলেন। শেষ ছয় ব্যাটারের অবদান মাত্র ২৫ রান। ভারতের কোনও বোলারের সামনেই এ দিন স্বচ্ছন্দ দেখায়নি ক্যারিবিয়ানদের। শেষ পর্যন্ত আয়োজকদের ইনিংস শেষ হয় ১৩৭ রানে।

ভারতের হয়ে যুজবেন্দ্র ৪ উইকেট নেন। এ ছাড়া মহম্মদ সিরাজ এবং শার্দুল ঠাকুর ২টি করে উইকেট নিয়েছেন। ১টি করে উইকেট নিয়েছেন অক্ষর প্যাটেল এবং প্রসিধ কৃষ্ণ।

বন্ধ করুন