বাংলা নিউজ > ময়দান > PAK vs NZ: মন্দ আলোয় মাটি হল রুদ্ধশ্বাস লড়াই, রোমাঞ্চকর করাচি টেস্টে পাকিস্তানের হার বাঁচালেন সরফরাজ

PAK vs NZ: মন্দ আলোয় মাটি হল রুদ্ধশ্বাস লড়াই, রোমাঞ্চকর করাচি টেস্টে পাকিস্তানের হার বাঁচালেন সরফরাজ

শতরানের পরে সরফরাজ। ছবি- এএফপি।

Pakistan vs New Zealand 2nd Test: অবিশ্বাস্য শতরানে নিউজিল্যান্ডের জয়ের পথে ঢাল হয়ে দাঁড়ালেন সরফরাজ আহমেদ। এমন রোমাঞ্চকর টেস্ট ম্যাচ সাম্প্রতিক সময়ে খুব কমই দেখা গিয়েছে।

ইংল্যান্ড সিরিজ থেকেই পাকিস্তানের ক্রিকেটপ্রেমীরা দেশের মাটিতে একতরফা ম্যাড়মেড়ে টেস্ট ম্য়াচ দেখতে অভ্যস্ত হয়ে গিয়েছিলেন। তবে করাচিতে পাকিস্তান-নিউজিল্যান্ড সিরিজের দ্বিতীয় টেস্ট পাক ক্রিকেটপ্রেমীদের যাবতীয় অক্ষেপ মিটিয়ে দেয়। এমন রোমাঞ্চকর টেস্ট ম্যাচ সাম্প্রতিক সময়ে খুব কমই দেখা গিয়েছে।

যদিও করাচির নিউ ইয়ার টেস্টকে উত্তেজক করে তোলার জন্য নিউজিল্যান্ডের ম্য়াচ জয়ের ক্ষিদেকেই কারণ হিসেবে চিহ্নিত করতে হয়। সেই সঙ্গে সরফরাজ-শাকিলের প্রতিরোধকেও কৃতিত্ব দিতে হয়। বিশেষ করে সরফরাজ আহমেদ যেভাবে নিউজিল্যান্ডের হার-জিতের মাঝে ঢাল হয়ে দাঁড়ান, তাঁর লড়াইকে কুর্নিশ না জানিয়ে উপায় নেই।

ম্য়াচের শেষবেলায় সরফরাজ আউট হলে দ্বিতীয় টেস্ট আরও রুদ্ধশ্বাস হয়ে দাঁড়ায়। যদিও শেষমেশ ট্র্যাজিক হিরো হয়ে থেকে যেতে হয়নি সরফরাজকে। মন্দ আলোয় ৩ ওভার বাকি থাকতে ম্যাচ ড্র ঘোষিত হয়। পাকিস্তানকে দাঁড়িয়ে যেতে হয় জয় থেকে ১৫ রান দূরে। মাত্র একটি উইকেটের জন্য টেস্ট জেতা হয়নি নিউজিল্যান্ডের। শেষ ১৮টি বলের খেলা হলে ম্য়াচ নিশ্চিতভাবেই কোনও এক দলের অনুকূলে ঝুঁকে পড়তে পারত।

জয়ের জন্য শেষ ইনিংসে পাকিস্তানের সামনে ৩১৯ রানের লক্ষ্যমাত্রা ঝুলিয়ে দেয় নিউজিল্যান্ড। পাকিস্তান চতুর্থ দিনের শেষবেলায় তাদের দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে শূন্য রানে ২ উইকেট হারিয়ে বসে। সুতরাং, শেষ দিনে জয়ের জন্য পাকিস্তানের দরকার ছিল ৩১৯ রান। ম্যাচ জিততে নিউজিল্যান্ডের প্রয়োজন ছিল ৮টি উইকেট।

আরও পড়ুন:- Ranji Trophy: অস্ট্রেলিয়া সিরিজে পন্তের জায়গা নিতে তৈরি, রঞ্জিতে ঋষভের মেজাজেই ঝড় তুলে বোঝালেন ভরত

শেষ দিনের শুরু থেকেই পাকিস্তান নিয়মিত অন্তরে উইকেট হারায়। একসময় তারা ৮০ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে কোণঠাসা হয়ে পড়ে। তবে তার পরেই সউদ শাকিলকে সঙ্গে নিয়ে পালটা লড়াই শুরু করেন সরফরাজ। ষষ্ঠ উইকেটের জুটিতে দু'জনে যোগ করেন ১২৩ রান। শাকিল ৩২ রান করে আউট হওয়ার পরে আঘা সলমনকে নিয়ে লড়াই জারি রাখেন সরফরাজ।

সলমন সাজঘরে ফেরেন ৩০ রান করে। সরফরাজ ৯টি চার ও ১টি ছক্কার সাহায্যে ১৭৬ বলে ১১৮ রান করে মাঠ ছাড়েন। পাকিস্তান ৯ উইকেটে ৩০৪ রান তুললে ম্যাচ ড্র ঘোষিত হয়।

আরও পড়ুন:- তারুণ্যে নজর! ভারতের জার্সিতে রোহিত-কোহলির T20 ভবিষ্যৎ নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ ইঙ্গিত দিলেন দ্রাবিড়

উল্লেখ্য, প্রথম ইনিংসে সরফরাজ দলের ইনিংসে ৭৮ রানের কার্যকরী যোগদান রাখেন। প্রথম ইনিংসে হাফ-সেঞ্চুরি ও দ্বিতীয় ইনিংসে সেঞ্চুরি করার সুবাদে ম্যাচের সেরা ক্রিকেটারের পুরস্কার জেতেন সরফরাজ। তার আগে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে প্রথম টেস্টের দুই ইনিংসেই হাফ-সেঞ্চুরি করেন সরফরাজ। ২টি টেস্টের চারটি ইনিংসে যথাক্রমে ৮৬, ৫৩, ৭৮ ও ১১৮ রান করে সিরিজের সেরা ক্রিকেটারও নির্বাচিত হন সরফরাজ। ২ ম্য়াচের টেস্ট সিরিজ ০-০ ড্র হয়।

পাকিস্তান-নিউজিল্যান্ড দ্বিতীয় টেস্টের সংক্ষিপ্ত স্কোর:-
নিউজিল্যান্ডের প্রথম ইনিংস: ৪৪৯
পাকিস্তানের প্রথম ইনিংস: ৪০৮
নিউজিল্যান্ড দ্বিতীয় ইনিংস: ৫ উইকেটে ২৭৭ (ডিক্লেয়ার)
পাকিস্তানের দ্বিতীয় ইনিংস: ৯ উইকেটে ৩০৪

বন্ধ করুন