বাংলা নিউজ > ময়দান > ‘বিশ্বের সেরা প্লেয়ার হবে ও’, শাফিককে নিয়ে উচ্ছ্বসিত পাক অধিনায়ক বাবর
আব্দুল্লাহ শাফিকে মুগ্ধ বাবর।

‘বিশ্বের সেরা প্লেয়ার হবে ও’, শাফিককে নিয়ে উচ্ছ্বসিত পাক অধিনায়ক বাবর

  • শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে প্রথম টেস্টে শাফিক ৪০০-র বেশি বল খেলে গড়ে ফেলেছেন নজির। তিনি ৪০৮ বল খেলে ১৬০ করে অপরাজিত থাকেন। পাকিস্তানের দ্বিতীয় ব্যাটার হিসেবে চতুর্থ ইনিংসে ৪০০ বা তার বেশি বল খেলার নজির গড়ে ফেললেন তিনি। এর আগে বাবর আজম পাকিস্তানের প্রথম প্লেয়ার হিসেবে এই নজির গড়েছিলেন।

দেড়শোর উপর রান করে শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থেকে যান আব্দুল্লাহ শাফিক। পাকিস্তানকে জিতিয়েই মাঠ ছাড়েন তিনি। কিন্তু সেটা বড় কথা নয়। বড় কথা হল, ওপেন করতে নেমে ক্রিজ আকড়ে পড়ে থেকে চারশোর বেশি বল খেলে ফেলেছেন তিনি। ৬ উইকেট পড়ে গেলেও, ওপেন করতে নেমে অপরাজিত থাকেন আব্দুল্লাহ শাফিক। তাঁর হাত ধরেই শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে প্রথম টেস্টে পাকিস্তানের জয়ের পথ প্রশস্ত হয়।

আর ওপেন করতে নেমে অপরাজিত থেকে টেস্ট জিতিয়ে গর্ডন গ্রিনিজের মাইলস্টোন স্পর্শ করে ফেললেন শাফিক। ১৯৮৪ সালে গর্ডন গ্রিনিজ লর্ডসে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ওপেন করতে নেমে অপরাজিত ২১৪ রান করেছিলেন। এবং ম্যাচ জিতিয়ে মাঠ ছেড়েছিলেন। বুধবার গ্রিনিজের পর দ্বিতীয় ব্যাটার হিসেবে সেই নজিরই স্পর্শ করলেন শাফিক।

আরও পড়ুন: শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে WTC ফাইনালে যাওয়ার পথে এক ধাপ এগিয়ে গেল পাকিস্তান

কাকতালীয় হলেও, ৩৮ বছর আগেও ইংল্যান্ড ৩৪২ রানের লক্ষ্যই দিয়েছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজকে। সেই রান তাড়া করতে নেমে ক্যারিবিয়ানদের ম্যাচ জেতান গ্রিনিজ। গল টেস্টে শ্রীলঙ্কাও ৩৪২ রানের লক্ষ্যই পাকিস্তানের সামনে রেখেছিল। অপরাজিত ১৬০ রান করে ম্যাচ জেতান শাফিক।

আরও পড়ুন: ৪০০-র বেশি বল খেলে নজির গড়লেন শাফিক, মজবুত করলেন পাকিস্তানের জয়ের পথ

একই সঙ্গে শাফিক ৪০০-র বেশি বল খেলে গড়ে ফেলেছেন নজিরও। তিনি ৪০৮ বল খেলে ১৬০ করে অপরাজিত থাকেন। পাকিস্তানের দ্বিতীয় ব্যাটার হিসেবে চতুর্থ ইনিংসে ৪০০ বা তার বেশি বল খেলার নজির গড়ে ফেললেন তিনি। এর আগে বাবর আজম পাকিস্তানের প্রথম প্লেয়ার হিসেবে চতুর্থ ইনিংসে ৪০০ বা তার বেশি বল খেলার নজির গড়েছিলেন। সেই মাইলস্টোনই স্পর্শ করলেন শাফিক। আর বিশ্ব ক্রিকেটে তিনি পঞ্চম ব্যাটার হিসেবে এই নজির গড়লেন।

আর শাফিকের এই সাফল্যে উচ্ছ্বসিত পাকিস্তান দলের অধিনায়ক বাবর আজম। তিনি বলেন, ‘ও (শাফিক) ওর জাত চিনিয়ে দিয়েছে। ও দেখিয়ে দিয়েছে, ও কতটা আত্মবিশ্বাসী। ভালো মানের বোলিংয়ের বিরুদ্ধে ব্যাটিং ওর আত্মবিশ্বাসকে বাড়িয়ে তুলবে। ও যেভাবে খেলে তা খুবই পরিষ্কার। আর ও যে ভাবে ম্যাচে ফোকাস করেছিল, তাতে স্পষ্ট হয়ে যায় যে, আরও অনেক সেঞ্চুরি ও করবে। যদিও এখন মাত্র ছ'টি ম্যাচ খেলেছে। এবং তাই এমন দাবি খুব তাড়াতাড়ি করা হয়ে যাচ্ছে। কিন্তু একজন খেলোয়াড় হিসেবে আমি মনে করি এবং আশা করি যে, ও সেরাদের একজন হয়ে উঠতে পারবে।’

বন্ধ করুন