নতুন এনওসি নীতি জারি করল পিসিবি। ছবি- এএফপি। (AFP)
নতুন এনওসি নীতি জারি করল পিসিবি। ছবি- এএফপি। (AFP)

চারটির বেশি টি-২০ লিগ নয়, ক্রিকেটারদের অবাধ বিচরণে লাগাম টানল পাকিস্তান

  • ক্রিকেটারদের ওয়ার্কলোডের দিকে তাকিয়েই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে পাক বোর্ড।

আইপিএলের দরজা যথারীতি বন্ধ। তবে পাক ক্রিকেটারদের এতদিন বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে ঘরোয়া টি-২০ লিগ খেলে বেড়ানোয় কোনও বাধা ছিল না। শেষমেশ সেই অবাধ বিচরণের পরিসরটাও ছোট হয়ে গেল বাবর আজম, মহম্মদ হাফিজ, ফকর জামানদের। পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড নিয়ম করে লাগাম টানল কেন্দ্রীয় চুক্তির আওতায় থাকা ক্রিকেটারদের যত্রতত্র বিদেশী টি-২০ লিগ খেলায়।

বোর্ডের ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট অপারেশন বিভাগ ও টিম ম্যানেজমেন্টের সঙ্গে আলোচনা করে পিসিবি তাদের নতুন এনওসি পলিসি জারি করেছে। নতুন এই নীতি অনুযায়ী চুক্তিবদ্ধ পাক ক্রিকেটাররা পিএসএল-সহ চারটির বেশি টি-২০ লিগে অংশ নিতে পারবেন না। অর্থাৎ পাকিস্তান সুপার লিগ ছাড়া আরও তিনটি বিদেশী লিগে মাঠে নামতে পারবেন বাবররা।

ক্রিকেটারদের ওয়ার্কলোডের দিকে তাকিয়েই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে পাক বোর্ড। ঘরোয়া ক্রিকেটারদের ক্ষেত্রেও ছাড়পত্র দেওয়া নিয়ে নিয়ম আরও কড়া হয়েছে। প্রথমত, সীমিত ওভারের ঘরোয়া টুর্নামেন্টে নিয়মিত মাঠে নামলে তবেই আবেদন করা যাবে বিদেশী লিগে খেলার। তাছাড়া সরাসরি বোর্ডের কাছে এনওসি চাওয়ার রাস্তাও খোলা থাকল না তাঁদের সামনে। স্থানীয় ক্রিকেট সংস্থায় আবেদন করার পর তাদের অনুমতি সাপেক্ষে ক্রিকেট অপারেশন ডিপার্টমেন্টের ছাড়পত্র মিলবে। তবে সব ক্ষেত্রেই চূড়ান্ত সিলমোহর দেওয়ার ক্ষমতা থাকছে এক্সিকিউটিভ বোর্ডের।

পিসিবি'র চিফ এক্সিকিউটিভ ওয়াসিম খান নতুন এই পলিসিতে ভারসাম্য বজায় রাখা হয়েছে বলে জানান। তাঁর কথায়, 'প্রাথমিকভাবে ক্রিকেটারদের ওয়ার্কলোডের দিকে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি বিদেশী লিগে খেলে নিজেদের দক্ষতা বাড়ানো ও বাড়তি উপার্জনের সুযোগও করে দেওয়া হয়েছে ক্রিকেটারদের।'

বন্ধ করুন