বাংলা নিউজ > ময়দান > ভারতই রোলমডেল, পাকিস্তানকে ক্রিকেটার তৈরিতে টিম ইন্ডিয়াকে অনুসরণ করার পরামর্শ প্রাক্তন পাক অধিনায়কের
টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে বিরাট কোহলির সঙ্গে পাকিস্তান অধিনায়ক বাবর আজম। ছবি- গেটি ইমেজেস।

ভারতই রোলমডেল, পাকিস্তানকে ক্রিকেটার তৈরিতে টিম ইন্ডিয়াকে অনুসরণ করার পরামর্শ প্রাক্তন পাক অধিনায়কের

  • টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ভাল খেললেও তার আগে ইংল্যান্ডের দ্বিতীয় সারির দলের কাছে হারার মতো বেশ কয়েকটি হতাশাজনক ফলাফলের সম্মুখীন হতে হয়েছে পাকিস্তানকে।

ভারতীয় দল সাম্প্রতিক সময়ে কোনো আইসিসি খেতাব না জিতলেও ক্রিকেটের তিন ফর্ম্যাটে টিম ইন্ডিয়ার রেকর্ড এককথায় অনবদ্য। বছরের শুরুতে কার্যত দ্বিতীয় সারির দল নিয়ে ভারত অস্ট্রেলিয়াকে তাদেরই দেশের মাটিতে টেস্টে পরাস্ত করে। ইংল্যান্ডেও ভারতের পারফরম্যান্স ছিল চোখের পড়ার মতো এবং সম্প্রতি ঘরের মাঠেও একাধিক তারকার অনুপস্থিতিতে নিউজিল্যান্ডকে হারায় টিম ইন্ডিয়া। 

ভারতের পড়শি দেশ পাকিস্তানও সম্প্রতি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ থেকে দারুণ খেলা শুরু করেছে। তবে তার আগে ইংল্যান্ডের দ্বিতীয় সারির দলের কাছে হারার মতো বেশ কয়েকটি হতাশাজনক ফলাফলের সম্মুখীন হতে হয়েছে তাদের। এই কথায় মাথায় রেখেই ভারতের মতো পাকিস্তানকেও মজবুত বেঞ্চ গড়ার পরামর্শ দিলেন সলমন বাট। চলতি ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজেও দলের বেঞ্চ শক্তি পরীক্ষা না করে পূর্ণ শক্তির দলকে খেলানোর পাকিস্তান ম্য়ানেজমেন্টকে বাটসহ প্রাক্তন খেলোয়াড়দের থেকে বেশ সমালোচনার মুখোমুখি হতে হয়েছে।

নিজের ইউটিউব চ্যানেলে প্রাক্তন পাকিস্তান অধিনায়ক ভারতের বেঞ্চ শক্তির প্রশংসা করে বলেন, ‘দলে তিন স্তরের সিস্টেম থাকা দরকার। উদাহরণস্বরূপ, (প্রিয়ঙ্ক) পাঞ্চালের নাম ঘোষণা (দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে টেস্ট সিরিজে রোহিত শর্মার পরিবর্তে) করা হয়। ও ১০০টা প্রথম শ্রেনির ম্যাচে ৪৫ গড় নিয়ে খেলার ভারতীয় দলে সুযোগ পাচ্ছে। একইভাবে মায়াঙ্ক আগরওয়াল রান করেছে, ওর আগে শ্রেয়স আইয়ার রান করেছে (নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে)। ওরা এখনও নতুন হওয়া সত্ত্বেও কঠিন পরিস্থিতি থেকে দলকে বের করতে সক্ষম হয়েছে। এটা হয়েছে কারণ বাইরের আওয়াজ না শুনে ওরা ওদের দক্ষতার ওপর আস্থা দেখিয়েছে।’

পরবর্তীতে পাকিস্তান ম্যানেজমেন্টকে সাবধান করে বাট সাফ ভাষায় জানিয়ে দেন, পাকিস্তান একই পদ্ধতি অনুসরণ না করলে দেশের ক্রিকেটকে ওপর ভবিষ্যতে তার প্রভাব স্পষ্ট চোখে পড়বে। ‘আমরা যদি একই সিস্টেম অনুসরণ না করি, তাহলে আমাদের সমস্যায় পড়তে হবে। আমরা কেমনভাবে কী করতে চাইছি তার ওপর সবটাই নির্ভর করছে, তবে এই জিনিসটা যে দরকার, তা খুবই স্পষ্ট। এখন হয়তো লোকজন ব্যাপারটা বুঝতে পারবে না, তবে ভবিষ্যতে ওরা ঠিক উপলব্ধি করবে যে আমাদেরও একই পথে এগানো উচিত ছিল।’ দাবি বাটের।

বন্ধ করুন