বাংলা নিউজ > ময়দান > ইফতিকার আহমেদকে 'চাচু' বলে সম্বোধন! 'আমি লজ্জিত' জানালেন 'উদ্যোক্তা' দলনায়ক বাবর আজম

ইফতিকার আহমেদকে 'চাচু' বলে সম্বোধন! 'আমি লজ্জিত' জানালেন 'উদ্যোক্তা' দলনায়ক বাবর আজম

ইফতিকার আহমেদ ও বাবর আজম

রবিবার রাতে ইফতিকার নিজের কেরিয়ারের প্রথম শতরান অল্পের জন্য হাতছাড়া করেন। ৭২ বলে ৯৪ রানের একটি অনবদ্য লড়াকু ইনিংস খেলেন তিনি। সিরিজে প্রথমবার পাকিস্তানের টপ অর্ডারের ব্যর্থতার পরে এদিন ব্যাটিংকে একার কাঁধে টানেন তিনি।

শুভব্রত মুখার্জি: রবিবারেই দেশের মাটিতে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ানডে ম্যাচে পাকিস্তানের হয়ে অনবদ্য একটি ইনিংস উপহার দিয়েছেন ইফতিকার আহমেদ। ডান হাতি এই মিডল অর্ডার ব্যাটার দুরন্ত ছন্দে ব্যাট করেছেন এই ম্যাচে। প্রায় একা লড়াইটা পৌঁছে দিয়েছেন বিপক্ষ শিবিরে। তবে দলের সকলের আদরের 'চাচু' লড়াই করেও কাঙ্ক্ষিত জয় এনে দিতে পারেননি দেশকে। ম্যাচ শেষে যদিও দলনায়ক বাবর আজমের প্রশংসা পাওয়া থেকে বঞ্চিত হননি তিনি। পাশাপাশি আরও একটি রহস্য ফাঁস করেছেন বাবর। ইফতিকারকে যে 'চাচু' বলে ডাকার উদ্যোক্তা তিনিই সেই রহস্যও ফাঁস করেছেন তিনি। পাশাপাশি সতীর্থকে নিয়ে এমন মজা করার জন্য তিনি যে লজ্জিত সেকথা জানাতেও ভোলেননি তিনি।

বাবর জানিয়েছেন সাজঘরে তিনিই প্রথম যিনি ইফতিকারকে 'চাচু' বলে ডাকা শুরু করেন। তবে এই বিষয়টি নিয়ে তিনি যে এখন লজ্জাবোধ করেন সেকথাও জানিয়েছেন তিনি। তবে এই অনুভূতির পাশাপাশি তিনি এই বিষয়টিতেও খুশি যে সকলে বিষয়টি উপভোগ করছেন। সঠিকভাবে বিষয়টিকে নিয়েছেন। সাংবাদিক সম্মেলনে বাবর জানিয়েছেন, 'কোন কোন সময়ে আমি খুব লজ্জিত অনুভব করি। আমি লজ্জা অনুভব করি এই কারণেই কারণ আমার জন্য সবাই ওঁকে 'চাচু' বলে ডাকে। তবে আমি এই বিষয়ে খুশি যে সবাই বিষয়টিকে উপভোগ করে।'

রবিবার রাতে ইফতিকার নিজের কেরিয়ারের প্রথম শতরান অল্পের জন্য হাতছাড়া করেন। ৭২ বলে ৯৪ রানের একটি অনবদ্য লড়াকু ইনিংস খেলেন তিনি। সিরিজে প্রথমবার পাকিস্তানের টপ অর্ডারের ব্যর্থতার পরে এদিন ব্যাটিংকে একার কাঁধে টানেন তিনি। পঞ্চম উইকেটে তিনি সলমন আলি আগার সঙ্গে জুটি বেঁধে দলকে লড়াইতে ফেরান। দুজনে মিলে ৯৭ রানের জুটি গড়ে পাকিস্তানকে ম্যাচে লড়াইতে ফিরিয়ে আনেন। এরপর ৩৫ তম ওভারে ভাঙে এই জুটি। সিপলির বলে মিড অফে ক্যাচ দিয়ে আগা আউট হয়ে যান। এরপরে অন্য প্রান্ত থেকে সেইভাবে সাহায্য পাননি ইফতিকার। কিউয়ি বোলার রাচিন রাবিন্দ্র দুরন্ত বোলিং করে দলের জয় নিশ্চিত করেন। তিনি ম্যাচে ৬৫ রান দিয়ে নেন তিনটি উইকেট। ফলে ইফতিকারের অনবদ্য লড়াই ব্যর্থ হয়। ম্যাচ জিতে যায় নিউজিল্যান্ড দল।

বন্ধ করুন