বাংলা নিউজ > ময়দান > পাকিস্তান কম রান তুললেও নার্ভাস ছিলেন, স্বীকার ফাইনালের মোড় ঘোরানো রশিদের

পাকিস্তান কম রান তুললেও নার্ভাস ছিলেন, স্বীকার ফাইনালের মোড় ঘোরানো রশিদের

আদিল রশিদ (ANI)

প্রাক্তন অধিনায়ক ইয়ন মর্গ্যানকে উদ্দেশ্যে করে রশিদ জানান 'ধন্যবাদ দলে আমাকে নির্বাচিত করার জন্য। আজকে বোলিং ইউনিট হিসেবে আমরা দারুণ বল করেছি।' উল্লেখ্য এদিন ফাইনালে নিজের চার ওভারে ২২ রান দিয়ে ২ উইকেট নেন রশিদ।

শুভব্রত মুখার্জি: মেলবোর্নে টি-২০ বিশ্বকাপের ফাইনালে পাঁচ উইকেটে জয় পেয়েছে ইংল্যান্ড। পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ইংল্যান্ড দল এক ওভার বাকি থাকতেই জয় ছিনিয়ে নিয়েছে। ইংল্যান্ডের এই জয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন রশিদ খান। লেগ স্পিনার রশিদ খান পাকিস্তানের মিডল ওভারে অত্যন্ত কম রান দেন। পাশাপাশি দুটি গুরুত্বপূর্ণ উইকেটও তুলে নেন। বিশেষ করে পাক অধিনায়ক বাবর আজমের উইকেট তুলে নিয়ে পাকিস্তানকে ব্যাকফুটে ঠেলে দেন তিনি। ম্যাচ শেষে তিনি জানিয়েছেন রান তাড়া করার সময়তে দল কিছুটা হলেও নার্ভাস ছিল। দলের ছেলেদের প্রতি তিনি যে গর্বিত সেটাও জানিয়ে দেন তিনি।

ম্যাচ শেষে আদিল রশিদ জানিয়েছেন 'দলের ছেলেদের জন্য খুব গর্বিত। গতকাল থেকে আজ পর্যন্ত আমাদের যা পজিশন ছিল... আমরা রান তাড়া করার সময়তে কিছুটা হলেও নার্ভাস ছিলাম। আমরা নিশ্চিত ছিলাম যে আমাদের কাছে সেই পাওয়ার হিটাররা রয়েছে যারা আমাদেরকে জয় এনে দিতে পারে। এই ঘটনা সবসময় ঘটে না। আমরা এই মুহূর্তটা দীর্ঘদিন ধরে উপভোগ করব।'

প্রাক্তন অধিনায়ক ইয়ন মর্গ্যানকে উদ্দেশ্যে করে রশিদ জানান 'ধন্যবাদ দলে আমাকে নির্বাচিত করার জন্য। আজকে বোলিং ইউনিট হিসেবে আমরা দারুণ বল করেছি।' উল্লেখ্য এদিন ফাইনালে নিজের চার ওভারে ২২ রান দিয়ে ২ উইকেট নেন রশিদ। মহম্মদ হ্যারিসকে এদিন প্যাভিলিয়নে ফেরান আদিল রশিদ। এরপর বাবর আজমকে কট ক্যান্ড বোল্ড করে প্যাভিলিয়নের রাস্তা দেখান। মিডল ওভারে তাঁর কিপ্টে বোলিংয়ের বিরুদ্ধে পাক দল একেবারেই স্বাচ্ছন্দ্যের সঙ্গে রান করতে পারেনি।

এদিন প্রথমে ব্যাট করে পাকিস্তান ২০ ওভারে ৮ উইকেটে ১৩৭ রান করে। মহম্মদ রিজওয়ান ১৫, বাবর আজম ৩২, শান মাসুদ ৩৮ এবং শাদাব খান ২০ রান করেন। ইংল্যান্ডের হয়ে অনবদ্য বোলিং করেন স্যাম কারেন এবং আদিল রশিদ। স্যাম কারেন ১২ রান দিয়ে নেন তিনটি উইকেট। অন্যদিকে আদিল রশিদ ২২ রান দিয়ে নেন দুটি উইকেট। জবাবে রান তাড়া করতে নেমে একটা সময় চাপে পড়ে গিয়েছিল ইংল্যান্ড। তাঁদের ৮৪ রানে পড়ে গিয়েছিল চার উইকেট। সেই জায়গায় দাঁড়িয়ে বেন স্টোকস অনবদ্য ৫২ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলে দলের জয় নিশ্চিত করেন। তাঁকে যোগ্য সঙ্গত দিয়ে ১২ বলে ১৯ রান করেন মইন আলি। ফলে এক ওভার বাকি থাকতেই ম্যাচ জিতে যায় ইংল্যান্ড।

বন্ধ করুন