বাংলা নিউজ > ময়দান > কেএল-রোহিতকে ছাপিয়ে T20-তে নয়া রেকর্ড সহ একাধিক নজির গড়ল বাবর-রিজওয়ান জুটি
বাবর আজম এবং মহম্মদ রিজওয়ান।

কেএল-রোহিতকে ছাপিয়ে T20-তে নয়া রেকর্ড সহ একাধিক নজির গড়ল বাবর-রিজওয়ান জুটি

  • টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে ওপেনিং জুটিতে বাবর এবং রিজওয়ান শতরান করেছেন ছ'বার। জুটিতে শতরান করার পরিসংখ্যানে তাঁরা ছাপিয়ে গিয়েছেন কেএল রাহুল এবং রোহিত শর্মা জুটিকে। কারণ ওপেন করতে নেমে রাহুল এবং রোহিত জুটিতে পাঁচটি শতরান করেছেন।

টি-টোয়েন্টিতে দুরন্ত ছন্দে রয়েছে বাবর আজম এবং মহম্মদ রিজওয়ান জুটি। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে টি-টোয়েন্টি সিরিজে এই জুটি ছাপিয়ে গিয়েছে কেএল রাহুল এবং রোহিত শর্মা জুটিকেও। করে ফেলেছেন নতুন বিশ্বরেকর্ড।

করাচিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে তৃতীয় টি-টোয়েন্টি ম্যাচে তারা দু'জনেই অর্ধশতরান তো করেছেনই। সেই সঙ্গে  দু'জন ব্যক্তিগত নজিরও গড়ে ফেলেছেন। তিন ম্যাচের সিরিজের শেষ টি-টোয়েন্টিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ২০৮ রানের লক্ষ্য রেখেছিল পাকিস্তানের সামনে। জবাবে ব্যাট করতে নেমে দুই পাক ওপেনার রিজওয়ান এবং বাবর জুটি ১৫৮ রানে ইনিংস খেলে। ওপেনিং জুটি হিসাবে এটি পাকিস্তানেের দুই তারকা ব্যাটসম্যানের চতুর্থ ১৫০ বা তার বেশি রানের ইনিংস। আর এই চারটি ইনিংসই তাঁরা খেলেছেন ২০২১ সালে। এই বছরের শুরুতে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে তাঁদের ১৯৭ রানের পার্টনারশিপের পর জুটি হিসেবে এটি দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রানের ইনিংস।

আর টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে ওপেনিং জুটিতে বাবর এবং রিজওয়ান শতরান করেছেন ছ'বার। জুটিতে শতরান করার পরিসংখ্যানে তাঁরা ছাপিয়ে গিয়েছেন কেএল রাহুল এবং রোহিত শর্মা জুটিকে। কারণ ওপেন করতে নেমে রাহুল এবং রোহিত জুটিতে পাঁচটি শতরান করেছেন। 

ক্যারিবিয়ানদের বিরুদ্ধে শেষ টি-টোয়েন্টি ম্যাচে বাবর ৫৩ বলে ৭৯ রান করেন। এই ক্যালেন্ডার ইয়ারে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে এটি তাঁর ২০তম অর্ধশতরান। যা এক বছরে সর্বোচ্চ। এ দিকে রিজওয়ান আবার ২০২১ সালে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে ২,০০০ রান করেছেন। যা এক ক্যালেন্ডার ইয়ারে একজন খেলোয়াড়ের সর্বোচ্চ রান। 

এর আগে সংযুক্ত আরব আমিশাহিতে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ টুর্নামেন্ট চলাকালীন, রিজওয়ান ওয়েস্ট ইন্ডিজের ব্যাটিং কিংবদন্তি ক্রিস গেইলকে ছাড়িয়ে এক ক্যালেন্ডার বছরে টি-টোয়েন্টিতে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক হয়েছিলেন। গেইল ২০১৫ সালে ৩৬ ইনিংসে ১৬৬৫ রান করেছিলেন। বাবরও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল খেলার সময় অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যানকে ছাড়িয়ে গিয়েছিলেন। রিজওয়ানের পরে দ্বিতীয় স্থানটি নিয়েছিলেন তিনি।

রিজওয়ান শেষ পর্যন্ত ৪৫ বলে ৮৬ রান করে আউট হন। আসিফ আলি ৭ বলে ২১ রানের ধামাকাদার এক ইনিংস খেলেন। যার নিট ফল, পাকিস্তান টি-টোয়েন্টিতে প্রথম বার এত বেশি রান তাড়া করে জয় ছিনিয়ে নিল। পাশাপাশি টি-টোয়েন্টি সিরিজে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে তারা ৩-০ হোয়াইটওয়াশ করল

বন্ধ করুন