বাংলা নিউজ > ময়দান > পেইনের বিদায়ে অজি অধিনায়ক হিসেবে অ্যাসেজেই অভিষেক ঘটতে পারে কামিন্সের
প্যাট কামিন্স। ছবি- টুইটার।
প্যাট কামিন্স। ছবি- টুইটার।

পেইনের বিদায়ে অজি অধিনায়ক হিসেবে অ্যাসেজেই অভিষেক ঘটতে পারে কামিন্সের

  • সেক্সটিং কেলেঙ্কারিতে নাম জড়ানোর পর শুক্রবারই অস্ট্রেলিয়ার টেস্ট অধিনায়কের পদ থেকে ইস্তফা দেন টিম পেইন।

স্যান্ডপেপার গেট কান্ডের পর ফের একবার বিতর্কের কেন্দ্রবিন্দুতে এক অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক। সেক্সটিং কেলেঙ্কারিতে নাম জড়ানোর পর শুক্রবারই (১৯ নভেম্বর) অস্ট্রেলিয়ার টেস্ট অধিনায়কের পদ থেকে ইস্তফা দেন টিম পেইন। এরপরে লাল বলের ক্রিকেটে অজি দলের নেতা কী হতে চলেছেন তা নিয়ে বিস্তর জল্পনা শুরু হয়েছে। তবে টেস্ট দলের সহ-অধিনায়ক প্যাট কামিন্সই দৌড়ে এগিয়ে বলে শোনা যাচ্ছে।

বহুদিন থেকেই পারফরম্য়ান্সের ভিত্তিতে অধিনায়ক পেইনকে নিয়ে আলোচনা অব্যাহত। তাঁর পরে সহ-অধিনায়ক কামিন্সের পাশাপাশি অধিনায়কের দৌড়ে রয়েছেন স্টিভ স্মিথও। তবে অযাচিত কারণে অধিনায়ক পদ থেকে পেইনের সরে দাঁড়ানোর পর ৪৭তম অধিনায়ক তথা প্রথম ফাস্ট বোলার হিসেবে পাকাপাকিভাবে অজি দলের দায়িত্ব পেতে পারেন কামিন্স। অধিনায়ক হিসাবে এই বছরই নিউ সাউথ ওয়েলসকে মাত্র চারটি শেফিল্ড শিল্ড ম্যাচে নেতৃত্ব দিলেও কামিন্সের পক্ষে ডেনিস লিলি এবং স্টিভ ওয়ায়ের মতো কিংবদন্তিদেরও সমর্থন রয়েছে।

লিলি cricket.com.au-কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে জানান, ‘ও একজন বুদ্ধিমান ব্যক্তি তো বটেই, পাশপাশি ওর মধ্যে ক্রিকেটীয় মস্তিষ্কও রয়েছে। নেতা হওয়ার জন্যই ওর জন্ম। পিচ পাটা হোক বা না হোক, ও সবসময় নিজের ১১০ শতাংশ দেয় এবং দলের সকলেই নেতার মতো করেই ওকে দেখে। অতীতে ইমরান খান, বব উইলিসরাও তো অধিনায়ক ছিলেন, ইমরান তো ব্যাট-বল দুইই করত। ওরা প্রমাণ করে দিয়েছে যে একজন ফাস্ট বোলার অধিনায়ক হতে পারেই।’

সাধারণত সবক্ষেত্রেই ব্যাটাররা অধিনায়কের দৌড়ে অগ্রাধিকার পায়। তবে কিংবদন্তি অজি অধিনায়ক স্টিভ ওয়া নিজে ব্যাটার হয়েও প্যাট কামিন্সের পক্ষে সওয়াল করেছেন। তবে বোলিং করার সময় কামিন্সকে মানসিকভাবে ব্রেক দিতে দলের সহ-অধিনায়কের তাঁর হয়ে ফিল্ডিং সেট করা উচিত বলেও জানান ওয়া। এই মাসের শুরুতে SEN-কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ওয়া বলেন, ‘সকলে বলে থাকে বোলারদের পক্ষে (অধিনায়কত্ব করা) সম্ভব নয়, তবে এই একই কথা তো ওরা কিপারদের ক্ষেত্রেও বলত। তবে ও বোলিং করলে ওকে মানসিক বিরতি দিতে ওর হয়ে সহ-অধিনায়ক ফিল্ডিং সেট করতে পারে। আমার মতে যখন টিম পেইন সরে দাঁড়াবে, প্যাট কামিন্সেরই সেই জায়গা নেওয়া উচিত।’

২৮ বছর বয়সী কামিন্স অস্ট্রেলিয়ার হয়ে তিন ফর্ম্যাটেই খেলেন এবং তার ধকল নেহাতই কম নয়। এই যুক্তিতেই প্রাক্তন অধিনায়ক স্মিথের নাম বারংবার উঠে আসছে। তবে হাওয়ার দিক কিন্তু কামিন্সমুখীই। তিন সপ্তাহেই গুরুত্বপূর্ণ অ্যাসেজ সিরিজ শুরু হচ্ছে। পেইন দলে জায়গা পেলে এবং কামিন্স অধিনায়ক হলে দুই প্রাক্তন অধিনায়ক স্মিথ এবং পেইনের পাশপাশি অতীতে দলের সহ-অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নার যিনি কোনদিনও অধিনায়ক হতে পারবেন না, কামিন্সের কাজটা কিন্তু শুরুতেই বেশ কঠিন হবে।

বন্ধ করুন