বাংলা নিউজ > ময়দান > গাব্বাতে একের পর এক গায়ে আঘাত, ফিজিও বলার পরেও পেনকিলার নেননি পূজারা
পূজারা। ফাইল ছবি

গাব্বাতে একের পর এক গায়ে আঘাত, ফিজিও বলার পরেও পেনকিলার নেননি পূজারা

  • ৩২৮ রান চতুর্থ ইনিংসে তাড়া করে ১৭ বল বাকি থাকতে ৩ উইকেটে টেস্ট জিতে এক অবিশ্বাস্য সিরিজ জয় পেয়েছিল ভারত। ১৯৮৮ সালে শেষবার গাব্বাতে উইন্ডিজ দলের কাছে টেস্ট হেরেছিল অজিরা।

শুভব্রত মুখার্জি: অস্ট্রেলিয়ার সিনিয়র ক্রিকেট দলের কাছে গাব্বা ক্রিকেট গ্রাউন্ড ছিল দুর্গ। প্রায় তিন দশক বাদে ব্রিসবেন টেস্ট জিতে ভারত তাদের শেষ অজি সফরে ২-১ ফলে টেস্ট সিরিজ জিতেছিল। সেই সিরিজে বিশেষত গাব্বাতে ভারতের মিডল অর্ডার ব্যাটার চেতেশ্বর পূজারা একের পর এক বলের আঘাত নিজের শরীরে নেওয়ার পরেও তার উইকেট ছুঁড়ে দেননি। শরীরে সেই আঘাত এতটাই গুরুতর ছিল যে ফিজিও পরামর্শ দিয়েছিলেন পেনকিলার খাওয়ার। তবে পেনকিলার না খেয়েই শেষদিনের লড়াই শেষে ভারতের হয়ে গড়ে দিয়েছিলেন এক অবিস্মরণীয় জয়ের ভিত।

৩২৮ রান চতুর্থ ইনিংসে তাড়া করে ১৭ বল বাকি থাকতে ৩ উইকেটে টেস্ট জিতে এক অবিশ্বাস্য সিরিজ জয় পেয়েছিল ভারত। ১৯৮৮ সালে শেষবার গাব্বাতে উইন্ডিজ দলের কাছে টেস্ট হেরেছিল অজিরা। তারপর গাব্বাতে তাদের আর কেউ হারাতে পারেনি। অর্থাৎ অজিদের ৩১ বছর ধরে সংরক্ষিত 'দুর্গ' ভেঙে দিয়েছিল ভারতীয় দল। শুভমন গিল করেছিলেন ৯১ রান। ১৩৮ বলে ৮৯ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলে ভারতকে জয় এনে দিয়েছিলেন পন্ত। সেই ম্যাচের চতুর্থ ইনিংসে ২১১ বল খেলে ৫৬ রানের এক অনবদ্য ইনিংস খেলেছিলেন চেতেশ্বর পূজারা। একদিকে উইকেট কামড়ে পড়েছিলেন তিনি।

সংবাদ সংস্থা এএনআইকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে সম্প্রতি পূজারা জানিয়েছেন 'আমি মনে করি এটা (বডিতে বলের আঘাত) আমাকে মোটিভেট করে আরও ভালো কিছু করতে। প্রথম দুটো আঘাতের ক্ষেত্রে আমার চরম যন্ত্রণা হচ্ছিল। ২-৩ বার এক জায়গায় আমি আঘাত পাই। একটা সময় আমার আঙুলে এসে সজোরে বল লাগে। সেই ব্যথাটা ছিল অসহ্য। ফিজিওর সঙ্গে আমার কথা হয়। আমাকে ফিজিও জিজ্ঞাসা করেছিল আমি পেনকিলার নেব কিনা। আমি পেনকিলার নিতে অস্বীকার করি। খেলা চলাকালীন আমি ওষুধ খেলে অনেক সময় আমার একাগ্রতা নষ্ট হয়। নিজেকে বলেছিলাম বডিতে আঘাত খেলেও হাল ছেড় না। কারণ দেশের হয়ে ম্যাচ জেতা বা ড্র করাটাই আমার লক্ষ্য।'

বন্ধ করুন