ব্যাডমিন্টন ব়্যাকেট ও শাটল কক।
ব্যাডমিন্টন ব়্যাকেট ও শাটল কক।

ব্যাডমিন্টনের অনলাইন কোচিং চলাকালীন স্ক্রিনে ফুটে ওঠে পর্ন ছবি, বিব্রত গোপীচাঁদ

  • কীভাবে এই পর্ন পপ আপ চলে এল প্রশিক্ষণের মাঝে, সে সম্পর্কে স্পষ্ট ধারণা নেই কারও কাছে।

লকডাউনে যখন সারা দেশে খেলাধুলো বন্ধ, ব্যাডমিন্টন অ্যাসোসিয়েশন অফ ইন্ডিয়া (BAI) ও স্পোর্টস অথরিটি অফ ইন্ডিয়া (SAI) যৌথভাবে অভিনব এক উদ্যোগ নিয়েছিল। তবে তাদের পরিকল্পনার মাঝে এমন বিড়াম্বনা দেখা দেবে, সেটা অনুমান করা সম্ভব ছিল না আগে থেকে।

মূলত উঠতি ব্যাডমিন্টন কোচেদের জন্য একটি অনলাইন প্রশিক্ষণ শিবির আয়োজন করে সাই ও ব্যাটমিন্ডন সংস্থা। ৭০০-র বেশি উঠতি কোচ ছাড়াও বেশ কিছু অভিভাবক, উঠতি খেলোয়াড় যোগ দিয়েছিলেন এই অনলাইন কোচিং শিবিরে। জাতীয় ব্যাডমিন্টন কোচ পুল্লেলা গোপীচাঁদ ছাড়াও ইন্দোনেশিয়ান কোচ আগুস সান্তোসো, নামরি সুরোতোদের মতো খ্যাতনামা প্রশিক্ষকরা কোচিং দিচ্ছিলেন উঠতি কোচেদের।

জুম অ্যাপে এই প্রশিক্ষণ চলাকালীন হঠাৎই স্ক্রিনে ফুটে ওঠে পর্ন ছবি। কীভাবে এই পর্ন পপ আপ চলে এল কোচিংয়ের মাঝে, সে সম্পর্কে স্পষ্ট ধারণা নেই কারও কাছে। বেশ কয়েকবার এমনটা হওয়ার পর বিব্রত গোপীচাঁদ নিজেকে সরিয়ে নেন শিবির থেকে।

সম্প্রতি জুম অ্যাপ ব্যবহার করা নিয়ে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক সতর্ক করেছে সকলকে। তার পরেও যদিও ভিডিও কনফারেন্সের ক্ষেত্রে এই অ্যাপের ব্যবহার চলছে। বহু স্কুল, কলেজ এই অ্যাপের মাধ্যমে লকডাউনের সময় ক্লাস চালাচ্ছে। প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে ছাত্র-ছাত্রীদের সামনে যদি এমন ছবি ফুটে ওঠে, তখন কী হবে?

সাইয়ের তরফে জানানো হয়েছে জুম ভিডিওয় এই শিবির চলাকালীন কোনও হ্যাকার হানা দেয়নি। তবে ঠিক কী কারণে এমনটা ঘটেছে, সাইয়ের আইটি দল তার অনুসন্ধান শুরু করেছে।

বন্ধ করুন