বাংলা নিউজ > ময়দান > Siraj's message to his mother: আমার জন্য দোয়া করো, ম্যাচের আগে মা'কে বলেছিলেন সিরাজ, খেয়েছিলেন পছন্দের খিচুড়ি

Siraj's message to his mother: আমার জন্য দোয়া করো, ম্যাচের আগে মা'কে বলেছিলেন সিরাজ, খেয়েছিলেন পছন্দের খিচুড়ি

মাঠে আগুনে বোলিং মহম্মদ সিরাজের, গ্যালারিতে প্রার্থনা মায়ের। (ছবি সৌজন্যে এপি ও টুইটার BCCI ভিডিয়ো)

Siraj's message to his mother: হায়দরাবাদের উপ্পল স্টেডিয়ামে আইপিএলের ম্যাচ খেললেও জাতীয় দলের জার্সি পরে বুধবার প্রথমবার নামেন মহম্মদ সিরাজ। যে ছেলেটা তোলিচৌকির ছোট্ট গলিতে বড় হয়ে উঠেছেন, সেই ছেলের স্বপ্নপূরণ হয় বুধবার। সেই মুহূর্তের সাক্ষী থাকতে বুধবার উপ্পল স্টেডিয়ামে হাজির ছিলেন সিরাজের মা শাবানা বেগম।

দেশের জার্সি পরে প্রথমবার ঘরের মাঠে খেলছেন ছেলে। দু'চোখ ভরে সেই গর্বের মুহূর্তের সাক্ষী থাকতে মাঠে এসেছিলেন মহম্মদ সিরাজের মা। সঙ্গে ছিলেন সিরাজের ছেলেবেলার বন্ধু, পরিবারের সদস্যরা। নিজেদের মাঠে সিরাজকে দেখে গর্বে বুক ভরে যাচ্ছে তাঁদের।

অতীতে হায়দরাবাদের উপ্পল স্টেডিয়ামে আইপিএলের ম্যাচ খেললেও জাতীয় দলের জার্সি পরে বুধবার প্রথমবার নামেন সিরাজ। যে ছেলেটা তোলিচৌকির ছোট্ট গলিতে বড় হয়ে উঠেছেন, সেই ছেলের স্বপ্নপূরণ হয় বুধবার। সেই মুহূর্তের সাক্ষী থাকতে বুধবার উপ্পল স্টেডিয়ামে হাজির ছিলেন সিরাজের মা শাবানা বেগম। যিনি ছেলের বোলিংয়ের সময় কার্যত নড়াচড়াও করেননি। ছেলের সাফল্য প্রার্থনা করে যাচ্ছিলেন।

আরও পড়ুন: ঘুমাতে দেন না ইশান, গিল নালিশ ঠুকলেন রোহিতের কাছে

মায়ের প্রার্থনা বৃথা যায়নি। নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে প্রথম একদিনের ম্যাচে ১০ ওভারে ৪৬ রান দিয়ে চার উইকেট নেন। শুরুতেই দুরন্ত বাউন্সারে ডেভন কনওয়েকে আউট করেন। তারপর নিউজিল্যান্ড যখন ম্যাচ ঘুরিয়ে দিচ্ছিল, তখন ৪৬ তম ওভারে দু'উইকেট নেন। দুর্দান্ত বাউন্সারে আউট করেন মিচেল স্যান্টনারকে। তারপর একেবারে টেস্ট সুলভ বোলিং করে হেনরি শিপলের স্টাম্প উপড়ে ফেলেন। যিনি ম্যাচের আগে মা'কে বলেছিলেন, ‘আমার জন্য শুধু দোয়া কর। সেটাই যথেষ্ট।’ সঙ্গে খেয়েছিলেন নিজের পছন্দের খিচুড়ি।

আরও পড়ুন: IND vs NZ: যে পরিস্থিতিতে ব্রেসওয়েল ওই ইনিংস খেলেছে, সেটা অনবদ্য- হেরেও আফসোস নেই লাথামের

পরে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিসিআই) তরফে সিরাজের মা, পরিবার এবং বন্ধুদের উৎসাহ নিয়ে একটি ভিডিয়ো টুইট করা হয়। ওই ভিডিয়োয় সিরাজের মা'কে বলতে শোনা গিয়েছে, 'আল্লাহের কাছে প্রার্থনা করি যে আমাদের ছেলে যেন ভারতের নাম উজ্জ্বল করতে পারে। আমার ছেলে আরও এগিয়ে যাক। বিশ্বকাপও যেন খেলে আমার খেলে।'

শুধু মা নয়, বুধবার সিরাজের জন্য প্রার্থনা করছিলেন বন্ধুরাও। যে বন্ধুদের সঙ্গে বড় হয়ে উঠেছেন সিরাজ। কেউ একসঙ্গে টেনিস বল ক্রিকেট খেলেছেন। সিরাজের বন্ধু সৈয়দ আহমেদ্দুর রহমান বলেন, 'আট-নয় বছর থেকে আমরা একসঙ্গে ক্রিকেট খেলে এসেছি।' ভারতীয় জার্সি পরে মহম্মদ শফি বলেন, 'সিরাজের সঙ্গে টেনিস বল ক্রিকেট খেলতাম। ভারতীয় দলের জার্সি পরে হায়দরাবাদে খেলা সিরাজের স্বপ্ন ছিল। ভারতীয় দলের খেলার স্বপ্নও পূরণ হয়েছে। হায়দরাবাদে খেলার স্বপ্নও পূরণ হয়েছে সিরাজের।' সৈয়দ আজহার আরও এক বন্ধু বলেন, 'সিরাজকে দেখে এবং খেলতে দেখে খুব ভালো লাগছে। আমার খুব লাগছে। হায়দরাবাদে খেলা ওর স্বপ্ন ছিল।'

(এই খবরটি আপনি পড়তে পারেন HT App থেকেও। এবার HT App বাংলায়। HT App ডাউনলোড করার লিঙ্ক https://htipad.onelink.me/277p/p7me4aup)

বন্ধ করুন