বাংলা নিউজ > ময়দান > PSL 2022: ২ ওভারে দরকার ২৬ রান! শোয়েব মালিকের দুরন্ত ব্যাটিং-এ জিতল পেশোয়ার
শোয়েব মালিকের দুরন্ত ব্যাটিং জিতল পেশোয়ার জালমি (ছবি:পিসিবি)

PSL 2022: ২ ওভারে দরকার ২৬ রান! শোয়েব মালিকের দুরন্ত ব্যাটিং-এ জিতল পেশোয়ার

  • প্রথমে ব্যাট করে কোয়েটা ১৯১ রানের বড় ইনিংস তৈরি করে। তবে কোয়েটার সেই লক্ষ্যে পৌঁছে যায় পেশোয়ার জালমি। পেশোয়ারের অধিনায়ক ও অভিজ্ঞ পাকিস্তানি ব্যাটসম্যান শোয়েব মালিক দুই বল বাকি থাকতেই পাঁচ উইকেটে ম্যাচ জেতান।

পাকিস্তান সুপার লিগের (পিএসএল) চলতি মরশুমের দ্বিতীয় ম্যাচে শুক্রবার রাতে করাচির মাঠে মুখোমুখি হয়েছিল কোয়েটা গ্ল্যাডিয়েটরস ও পেশোয়ার জালমি। প্রথমে ব্যাট করে কোয়েটা ১৯১ রানের বড় ইনিংস তৈরি করে। তবে কোয়েটার সেই লক্ষ্যে পৌঁছে যায় পেশোয়ার জালমি। পেশোয়ারের অধিনায়ক ও অভিজ্ঞ পাকিস্তানি ব্যাটসম্যান শোয়েব মালিক দুই বল বাকি থাকতেই পাঁচ উইকেটে ম্যাচ জেতান।

এই ম্যাচে টস জিতে প্রথমে বল করার সিদ্ধান্ত নেয় পেশোয়ার জালমি। প্রথমে ব্যাট করতে আসা কোয়েটা গ্ল্যাডিয়েটরস দলের দুই ওপেনারই পেশোয়ারের বোলারদের বড় ধাক্কা দেন। ওপেনার আহসান আলি ও ইংলিশ ব্যাটসম্যান উইল স্মেড প্রথম উইকেটে ১৫৫ রানের দুর্দান্ত জুটি গড়েন। দুই ওপেনারের দুর্দান্ত ইনিংসে বড় স্কোর দাঁড়ায় কোয়েটা গ্ল্যাডিয়েটরস। উইল সেমেদ ৬২ বলে ৯৭ রান এবং আহসান আলি ৪৬ বলে ৭৩ রান করে সকলের মন জয় করেন। দুজনে মিলে ১৫.৩ ওভার ব্যাট করলেও এরপর আর কোনও ব্যাটসম্যান তেমন পারফরম্যান্স দেখাতে পারেনি। কোয়েটা ২০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ১৯০ রান তোলে। পেশোয়ারের হয়ে দুটি করে উইকেট নেন সমীর গুল ও উসমান কাদির।

জবাবে পেশোয়ারের দল মন্থর শুরু করে। ৭৭ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে ফেলে পোশায়ার। এর পর চার নম্বরে খেলতে আসেন দলের অধিনায়ক শোয়েব মালিক। ১ ফেব্রুয়ারিতে ৪০তম জন্মদিন উদযাপন করবেন মালিক। কিন্তু তার ব্যাটিংয়ে বয়সের কোনও প্রভাব দেখা যায়নি। তিনি প্রথমে হোসেন তালাতের (৫২ রান) সঙ্গে তৃতীয় উইকেটে ৮১ রানের জুটি গড়েন। এর পর হোসেন তালাত আউট হলেও মালিক থেকে যান।

শোয়েব মালিক তার অধিনায়কত্বের ইনিংস চালিয়ে যান। জয়ের জন্য শেষ দুই ওভারে পেশোয়ারের প্রয়োজন ছিল ২৬ রান। এ সময় শোয়েব মালিক ২৮ রান করে খেলছিলেন। এরপর অস্ট্রেলিয়ান বোলার জেমস ফকনারের ১৯তম ওভারে দুর্দান্ত ব্যাটিং করেন মালিক। এই ওভারে দুটি চার ও দুটি ছক্কা মারেন তিনি। এরফলে একই ওভারে যোগ হয়েছিল ২২ রান। জয়ের জন্য শেষ ওভারে দরকার ছিল মাত্র চার রান। নাসিম শাহের শেষ ওভারের প্রথম বল ওয়াইড হলেও দ্বিতীয় বলে রাদারফোর্ডের উইকেট পড়ে যায়। এরপর আর দেরি না করে তৃতীয় বলে ২ রান ও চতুর্থ বলে এক রান নিয়ে দলকে জয়ী করেন শোয়েব মালিক।

বন্ধ করুন