বাংলা নিউজ > ময়দান > PSL 7: আক্ষেপ মিটল, ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নদের হারিয়ে প্রথম ট্রফি জয়ের স্বাদ পেল কালান্দার্স
প্রথম বার পিএসএল চ্যাম্পিয়ন হওয়ার স্বাদ পেল কালান্দার্স।

PSL 7: আক্ষেপ মিটল, ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নদের হারিয়ে প্রথম ট্রফি জয়ের স্বাদ পেল কালান্দার্স

  • এত দিন একমাত্র কালান্দার্স ছাড়া পিএসএলের সব টিমই এক বার করে অন্তত চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। এ বার ট্রফি না পাওয়ার আক্ষেপটা মিটল লাহোর কালান্দার্সেরও।

গত ছয় বছরের তৃষ্ণা যেন মনপ্রাণ ভরে মিটিয়ে ফেলল লাহোর কালান্দার্স। প্রথম বার পিএসএল চ্যাম্পিয়ন হওয়ার স্বাদ পেল তারা। তাও আবার ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নদের হারিয়ে। এর আগে ২০২০ সালে ফাইনালে উঠেও শেষ রক্ষা হয়নি। সে বার করাচি কিংসের কাছে হেরে গিয়েছিল লাহোর কালান্দার্স। কিন্তু দ্বিতীয় বার ফাইনালে ওঠার পর আর সুযোগ হাতছাড়া করেনি কালান্দার্স। মুলতান সুলতানসকে ৪২ রানে হারিয়ে ট্রফি জিতে নিল তারা। পিএসএল পেল নতুন চ্যাম্পিয়ন। 

রবিবার টুর্নামেন্টের ফাইনালে টসে জিতে প্রথমে ব্যাট নিয়েছিল লাহোর কালান্দার্স। তবে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই তারা ধাক্কা খেয়েছিল। প্রথম উইকেট তারা হারায় ১২ রানে। ২৫ রানের মাথায় তারা ৩ উইকেট হারিয়ে বসে থাকে। তবে মহম্মদ হাফিজের ৪৬ বলে লড়াকু ৬৯ এবং হ্যারি ব্রুকের ২২ বলে অপরাজিত ৪১ রানের পাশাপাশি ৭ নম্বরে ব্যাট করতে নেমে ৮ বলে ২৮ রানের ঝড়ো একটি ইনিংস খেলেন ডেভিড ওয়াইজ। যার নিট ফল ৫ উইকেট হারিয়ে ১৮০ রান করে কালান্দার্স। 

প্রসঙ্গত লাহোরকে ফাইনালে তুলতে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিয়েছিলেন ওয়াইজ। কারণ সেমিফাইনালের ম্যাচে শেষ ওভারে জয়ের জন্য ইসলামাবাদ ইউনাইটেডের প্রয়োজন ছিল মাত্র ৮ রান। তবে ডেভিড ওয়াইজ ৪ বলে মাত্র ১ রান খরচ করে আউট করেন ওয়াকাস মাকসুদকে। ওভারের তৃতীয় বলে রান-আউট হন মহম্মদ ওয়াসিম। ইসলামাবাদ অল-আউট হয়ে নিশ্চিত জেতা ম্যাচ হেরে বসে থাকে। ফাইনালে ওঠে লাহোর কালান্দার্স। 

এ দিনও সাতে নেমে অপরাজিত থেকে তিনটি ছক্কা এবং একটি চারের হাত ধরে ঝড়ো ইনিংস খেলেন ওয়াইজ। যার জেরে ১৮০ রানে পৌঁছয় কালান্দার্স। মুলতান সুলতানসের আসিফ আফ্রিদি নিয়েছেন ৩ উইকেট। ১টি করে উইকেট নিয়েছেন ডেভিড উইলি এবং শাহনওয়াজ দাহানি। 

জবাবে ব্যাট করতে নেমে একের পর এক উইকেট হারাতে শুরু করে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা। শেষ পর্যন্ত ১৯.৩ ওভারে ১৩৮ রানে অলআউট হয়ে যায় মুলতান সুলতানস। মুলতান সুলতানসের হয়ে সর্বোচ্চ রান করেছেন খুশদিল শাহ। তাঁর সংগ্রহ ২৩ বলে ৩২ রান। ২৭ রান করেছেন টিম ডেভিড। এর বাইরে ২০ রানের গণ্ডি কেউই টপকাতে পারেননি। কালান্দার্সের শাহিন আফ্রিদি ৩ উইকেট নিয়েছেন। ২টি করে উইকেট নিয়েছেন মহম্মদ হাফিজ এবং জামান খান।

এত দিন একমাত্র কালান্দার্স ছাড়া পিএসএলের সব টিমই এক বার করে অন্তত চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। এ বার ট্রফি না পাওয়ার আক্ষেপটা মিটল লাহোর কালান্দার্সেরও।

বন্ধ করুন