বাংলা নিউজ > ময়দান > Ranji Trophy: অভিষেকেই ৬ উইকেট নিয়ে ম্যাচের সেরা কেরালার ১৬ বছরের ইডেন
ইডেন অ্যাপেল টম (ছবি:কেরালা ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন)

Ranji Trophy: অভিষেকেই ৬ উইকেট নিয়ে ম্যাচের সেরা কেরালার ১৬ বছরের ইডেন

  • ২০২২ সালের রঞ্জি ট্রফিতে জয় দিয়ে অভিযান শুরু করেছে কেরালা। তারা মেঘালয়কে এক ইনিংস এবং ১৬৬ রানে হারিয়েছে। কেরালার এই ম্যাচে জয়ের নায়ক ছিলেন তাদের ১৬ বছর বয়সী ফাস্ট বোলার ইডেন অ্যাপেল টম।

২০২২ সালের রঞ্জি ট্রফিতে জয় দিয়ে অভিযান শুরু করেছে কেরালা। তারা মেঘালয়কে এক ইনিংস এবং ১৬৬ রানে হারিয়েছে। কেরালার এই ম্যাচে জয়ের নায়ক ছিলেন তাদের ১৬ বছর বয়সী ফাস্ট বোলার ইডেন অ্যাপেল টম। টুর্নামেন্ট শুরুর আগে তিনি তার আকর্ষণীয় নামের কারণে খবরে থাকলেও এখন তার খেলা তার নামকে পিছনে ফেলেছে। ইডেন অ্যাপেল টমের নামেরও একটি মজার গল্প আছে। তার বাবার নাম অ্যাপেল টম। ISRO-এর স্যাটেলাইটের কারণে তিনি অ্যাপল নামটি পেয়েছেন। তার দুই ভাইয়ের নাম অ্যাপল স্যাম এবং অ্যাপল জিও। এরপর অ্যাপল টম তার ছেলের নাম রাখেন ইডেন অ্যাপেল টম।

মেঘালয়ের বিরুদ্ধে ম্যাচে ইডেন অ্যাপেল টম নিয়েছেন ছয় উইকেট। প্রথম ইনিংসে ৪১ রানে চারটি এবং দ্বিতীয় ইনিংসে ৩০ রানে দুটি উইকেট নেন ইডেন। এই পারফরম্যান্সের কারণে তিনি ম্যাচ সেরা নির্বাচিত হয়েছেন। প্রথম ম্যাচের অভিজ্ঞতা নিয়ে ইডেন ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে বলেন, আমার ক্যারিয়ারের শুরুটা ভালো হয়েছিল। গত কয়েকটা দিন আমার কাছে স্বপ্নের মতো কেটেছে। কিন্তু আমি জানি এটা সবে শুরু। দ্বিতীয় ম্যাচে খুব শক্তিশালী দল গুজরাটের মুখোমুখি হতে হবে। আমি তাদের সামনে ভালো করতে চাই এবং আমি এরকম পারফরমেন্স করতে চাই।

মেঘালয়ের বিরুদ্ধে ম্যাচের দুই ইনিংসেই ইডেন প্রথম বলেই উইকেট পেয়েছিলেন। তিনি প্রথম ইনিংসে কিশান লিংডোহ এবং দ্বিতীয় ইনিংসে ডি রবি তেজাকে আউট করেন। দুজনেই স্লিপে ক্যাচ আউট হন। এই উইকেটগুলো নিয়ে তিনি বলেন, আমি ফুল লেন্থে বল করার পরিকল্পনা করেছিলাম এবং দুবারই ব্যাটের কানা পেয়েছিলাম। রঞ্জি ট্রফির আগে আলাপুঝায় কেরালা দলের প্রস্তুতি ক্যাম্পে ইডেন অ্যাপেল টম তার বোলিংয়ে মুগ্ধ করেছিলেন। সেখানে তার খেলা দেখে ইডেনকে দলে অন্তর্ভুক্ত করেন কেরালার কোচ টিনু ইয়োহান্নান। তার বাজি সফল হয়েছে।

ইডেন ২০১৮ সালে তার বাবার সাথে দুবাই থেকে তিরুবনন্তপুরমে এসেছিলেন। ক্রিকেটে ক্যারিয়ার গড়তে চান তিনি। গত দুই বছরে তার খেলায় অনেক উন্নতি হয়েছে। নিজের ফিটনেস নিয়েও কাজ করেছেন একটানা। শুরুতে ভুল পা দিয়ে বল করতেন। কিন্তু ধীরে ধীরে তিনি উন্নতি করেন। সাম্প্রতিক অনূর্ধ্ব-১৯ কোচবিহার ট্রফিতেও তিনি কেরালার হয়ে ভালো খেলেছেন। দলের হয়ে ১৬ উইকেট নিয়েছিলেন অ্যাপেল। তার পরেই কেরালা রঞ্জি দলের দরজা খুলে গেল তাঁর জন্য। প্রথমবার কেরালার হয়ে খেলতে গিয়ে মেঘালয়ের বিরুদ্ধে ছয় উইকেট নেন তিনি। এখন রঞ্জি ট্রফির পরবর্তী ম্যাচে গুজরাটের বিরুদ্ধে একই খেলা দেখাতে চায় ইডেন অ্যাপল টম।

বন্ধ করুন