বাংলা নিউজ > ময়দান > ভূমিকম্পে সর্বস্ব হারানো নিষ্পাপ ক্ষুদের ছবি পোস্ট করে রশিদ খানের বিশেষ বার্তা
ক্ষুদের ছবি পোস্ট করে রশিদ খানের বিশেষ বার্তা

ভূমিকম্পে সর্বস্ব হারানো নিষ্পাপ ক্ষুদের ছবি পোস্ট করে রশিদ খানের বিশেষ বার্তা

  • এই ভূমিকম্পে সর্বস্ব হারানো নিষ্পাপ মেয়ের একটি ছবি টুইটারে শেয়ার করেছেন রশিদ খান। এই ছবি শেয়ার করে তিনি লিখেছেন, ‘এই ছোট্ট দেবদূতই তার পরিবারের একমাত্র জীবিত সদস্য। ভূমিকম্পের পর ওই কিশোরীর পরিবারের আর কোনও সদস্যকে খুঁজে পায়নি স্থানীয় লোকজন।’

একদিন আগেই আফগানিস্তানে আঘাত হানা ভূমিকম্পে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। এক হাজারেরও বেশি মানুষ প্রাণ হারিয়েছে এবং ১৫০০ জনেরও বেশি গুরুতর আহত হয়েছে। রিখটার স্কেলে ৬.১ মাত্রার এই ভূমিকম্পের কারণে আফগানিস্তানে তিন হাজারের বেশি কাঁচা ও পাকা ঘর ভেঙে গেছে। 

ভূমিকম্পটি আফগানিস্তানের জনগণের জন্য কষ্ট বাড়িয়েছে যারা ইতিমধ্যে অসুবিধার সম্মুখীন হয়েছিলেন।এই কঠিন সময়ে আফগানিস্তানকে সাহায্য করতে এগিয়ে এসেছে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ। আফগানিস্তানের অভিজ্ঞ ক্রিকেটার রশিদ খানও এই কঠিন সময়ে আফগানিস্তানের জনগণকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন।

আরও পড়ুন… রশিদকে পড়তেই পারলেন না সিকন্দররা, জিম্বাবোয়েকে হাসতে হাসতে হোয়াইটওয়াশ করল আফগানিস্তান

এই ভূমিকম্পে সর্বস্ব হারানো নিষ্পাপ মেয়ের একটি ছবি টুইটারে শেয়ার করেছেন রশিদ খান।এই ছবি শেয়ার করে তিনি লিখেছেন,‘এই ছোট্ট দেবদূতই তার পরিবারের একমাত্র জীবিত সদস্য। ভূমিকম্পের পর ওই কিশোরীর পরিবারের আর কোনও সদস্যকে খুঁজে পায়নি স্থানীয় লোকজন। ভূমিকম্পের কারণে অনেক বাড়িঘর ধসে পড়েছে এবং বহু দূরবর্তী এলাকায় এখনও ধ্বংসস্তূপের নীচে চাপা পড়ে আছে মানুষ। এমন অবস্থায়, আমি আপনাদের সকলের কাছে আবেদন জানাই যে যতটা সম্ভব মানুষকে সাহায্য করুন।’ রশিদ নিজেও ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য তহবিল সংগ্রহ করছেন। এ নিয়ে একটি ভিডিয়ো বার্তাও প্রকাশ করেছেন তিনি।

আরও পড়ুন… রশিদকে পড়তেই পারলেন না সিকন্দররা, জিম্বাবোয়েকে হাসতে হাসতে হোয়াইটওয়াশ করল আফগানিস্তান

আফগানিস্তানে বুধবারের ভূমিকম্পটি দুই দশকের মধ্যে সবচেয়ে শক্তিশালী ছিল। প্রতিবেশী পাকিস্তানের আবহাওয়া দফতরের মতে,ভূমিকম্পের কেন্দ্রস্থল ছিল পাকতিকা প্রদেশে, খোস্ত শহর থেকে প্রায় ৫০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে। তালেবান সেনাবাহিনীর একজন মুখপাত্র বলেছেন,দুর্বল টেলিফোন নেটওয়ার্ক ত্রাণ ও উদ্ধার কার্যক্রমকে প্রভাবিত করছে। এতে মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে।

বন্ধ করুন