বাংলা নিউজ > ময়দান > Road Safety World Series এ বার ২ জুন থেকে ভারতে শুরু হবে, যোগ দিচ্ছে নতুন টিম
রোড সেফটি ওয়ার্ল্ড সিরিজ ক্রিকেট লিগের দ্বিতীয় আসর বসতে চলেছে ৪ জুন থেকে ৩ জুলাই।

Road Safety World Series এ বার ২ জুন থেকে ভারতে শুরু হবে, যোগ দিচ্ছে নতুন টিম

  • ভারত, অস্ট্রেলিয়া, শ্রীলঙ্কা, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, দক্ষিণ আফ্রিকা, বাংলাদেশ এবং ইংল্যান্ডের সঙ্গে ৩০ দিনের এই ইভেন্টে এ বার যোগ দেবেন কিউয়ি কিংবদন্তিরা। মূলত সড়ক নিরাপত্তা সম্পর্কে সচেতনতা তৈরি করতে এই টুর্নামেন্টের আয়োজন করা হয়ে থাকে।

রোড সেফটি ওয়ার্ল্ড সিরিজ ক্রিকেট লিগের দ্বিতীয় আসর বসতে চলেছে ভারতের তিনটি ভেন্যুতে। ৪ জুন থেকে ৩ জুলাই পর্যন্ত এই টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত হবে। সড়ক নিরাপত্তা সচেতনতার জন্য এই সিরিজটির আয়োজন করা হয়। এ বার এই সিরিজে নতুন দলও অংশ নিতে চলেছে।

তিন জায়গায় খেলা হবে

নিউজিল্যান্ড কিংবদন্তিরা এই মরশুমে নতুন দল হিসেবে অংশ নিচ্ছে। এবং রোড সেফটি ওয়ার্ল্ড সিরিজের ম্যাচগুলি এ বার ভারতের লখনউ, ইন্দোর এবং যোধপুরে অনুষ্ঠিত হবে। ভারত, অস্ট্রেলিয়া, শ্রীলঙ্কা, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, দক্ষিণ আফ্রিকা, বাংলাদেশ এবং ইংল্যান্ডের সঙ্গে ৩০ দিনের এই ইভেন্টে এ বার যোগ দেবেন কিউয়ি কিংবদন্তিরা। মূলত সড়ক নিরাপত্তা সম্পর্কে সচেতনতা তৈরি করতে এই টুর্নামেন্টের আয়োজন করা হয়ে থাকে।

ক্রীড়ামন্ত্রীর বক্তব্য

টুর্নামেন্টের সাফল্য কামনা করে ক্রীড়ামন্ত্রী অনুরাগ ঠাকুর বলেছেন, ‘আমি নিশ্চিত যে রোড সেফটি ওয়ার্ল্ড সিরিজ একটি সামাজিক পরিবর্তন আনবে এবং সড়ক নিরাপত্তার বিষয়ে মানুষের মানসিকতাকে প্রভাবিত করার জন্য একটি নিখুঁত প্ল্যাটফর্ম হিসেবে কাজ করবে।’ প্রাক্তন বিসিসিআই প্রধান আরও বলেছেন যে, আটটি দেশের কিংবদন্তি যেমন অস্ট্রেলিয়া, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, দক্ষিণ আফ্রিকা, ইংল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড, বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা এবং ভারত এই টুর্নামেন্টে অংশ নিতে যাচ্ছে তা জেনে তিনি অত্যন্ত খুশি।

সিরিজে অনেক অভিজ্ঞ খেলোয়াড় অংশ নেবেন

রোড সেফটি ওয়ার্ল্ড সিরিজটি ভারত সরকারের কেন্দ্রীয় সড়ক পরিবহণ মন্ত্রক এবং তথ্য ও প্রযুক্তি মন্ত্রক এবং যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রক দ্বারা সমর্থিত। ভারত সরকারের কেন্দ্রীয় সড়ক পরিবহণ মন্ত্রী নীতিন গড়করি বলেছেন, ‘পথ নিরাপত্তা ওয়ার্ল্ড সিরিজ ক্রিকেটের মাধ্যমে সড়ক নিরাপত্তা সম্পর্কে সচেতনতা তৈরির একটি খুব ভালো উদ্যোগ। আমরা চাই এদেশের প্রতিটি মানুষ সচেতন হোক এবং সবাই তা অনুসরণ করুক। রাস্তায় চলার সময় নিয়ম-কানুন আছে এবং সেটা ঘটতে হলে মানুষের মধ্যে সচেতনতা তৈরি করতে হবে।’

বন্ধ করুন