HT বাংলা থেকে সেরা খবর পড়ার জন্য ‘অনুমতি’ বিকল্প বেছে নিন
বাংলা নিউজ > ময়দান > পথটা সবসময়ই কঠিন হবে, ব্রাত্য অর্জুন তেন্ডুলকরকে গুরুমন্ত্র বাবার
মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের হয়ে একটি ম্যাচও খেলার সুযোগ পাননি অর্জুন তেন্ডুলকর।

পথটা সবসময়ই কঠিন হবে, ব্রাত্য অর্জুন তেন্ডুলকরকে গুরুমন্ত্র বাবার

  • পর পর দুই মরশুম মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের বেঞ্চে বসেই কাটিয়ে দিলেন অর্জুন তেন্ডুলকর।

আইপিএলের লড়াই একেবারে শেষ পর্বে এসে পৌঁছেছে। শুরু হয়ে গিয়েছে নক আউটের ম্যাচও। তবে মুম্বই ইন্ডিয়ান্স এবারে প্লে-অফে পৌঁছতে ব্যর্থ হয়েছে। দলের চূড়ান্ত হতাশাজনক মরশুমে অনেক তরুণ প্রতিভাকেই সুযোগ দিয়েছে পল্টনরা। তবে সুযোগ পাননি অর্জুন তেন্ডুলকর।

গত মরশুমের মতো এবারও সচিনপুত্রকে দলে নিয়েছিল মুম্বইয়ের ফ্রাঞ্চাইজি। তবে টানা দ্বিতীয় মরশুমের গোটটা বেঞ্চে বসেই কাটিয়ে দিলেন উঠতি অলরাউন্ডার অর্জুন। এমন পরিস্থিতিতে যে কারুর হতাশ হওয়াটা খুবই স্বাভাবিক। তবে ক্রিকেট নিয়ে সচিনের থেকে ভাল হয়তোই কেউই পরামর্শ দিতে সক্ষম। নিজের সুদীর্ঘ কেরিয়ারে বহু চড়াই উতরাই পার করেছেন ‘মাস্টার ব্লাস্টার’। এবার নিজের পুত্রকেও এই কঠিন পরিস্থিতির সময় এক গুরুত্বপূর্ণ পরামর্শ দিলেন ক্রিকেটার সচিন।

SachInsight নামক এক শোয়ে সচিনকে এক অনুরাগী প্রশ্ন করেন, তিনি অর্জুন সুযোগ না পাওয়ায় হতাশ কিনা। জবাবে সচিন জানান, ‘আমি কী ভাবছি না ভাবছি সেটা গুরুত্বপূর্ণ নয়। মরশুমটা ইতিমধ্যেই শেষ হয়ে গিয়েছে। আমি অর্জুনকে সবসময়ই বলেছি যে পথটা সবসময় চ্যালেঞ্জিং হবে, ভীষণ কঠিন হবে। ওকে মনে করাই যে ও ক্রিকেট খেলা শুরুই করেছে খেলাটাকে ভালবাসে বলে। সেটাই চালিয়ে যেতে হবে, কঠিন পরিশ্রম করে যেতে হবে। ঠিকঠাক পরিশ্রম করে গেলে সাফল্য আসবেই।’

মুম্বই দলের মেন্টর সচিন এও সাফ করে দিয়েছেন যে দল বাছাইয়ের ক্ষেত্রে না তাঁর কোনও ভূমিকা ছিল, না তাতে তিনি নাক গলাতে ইচ্ছুক। ‘নির্বাচনের বিষয়ে বলতে গেলে আমি বলব আমি এ বিষয়ে কোনদিনও নিজের নাক গলাইনি। আমি সবসময় এটা ম্যানেজমেন্টের ওপরই ছেড়ে দিই, আর এভাবেই চিরটাকাল কাজ করে এসেছি।’ দাবি সচিনের। সচিনপুত্র অর্জুন আজ অবধি হাতে গুনে মুম্বইয়ের দুইটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন এবং ‘টি-টোয়েন্টি মুম্বই’ লিগে খেলেছেন। ২২ বছরের অর্জুনের অভিজ্ঞতা বলতে এইটুকুই।