বাড়ি > ময়দান > সচিন কখনও নির্মম ব্যাটিং করতে পারেননি, আক্ষেপ কপিলের
সচিন তেন্ডুলকর ও কপিল দেব। ছবি- টুইটার।
সচিন তেন্ডুলকর ও কপিল দেব। ছবি- টুইটার।

সচিন কখনও নির্মম ব্যাটিং করতে পারেননি, আক্ষেপ কপিলের

  • তেন্ডুলকরের কাছ থেকে ডাবল ও ট্রিপল সেঞ্চুরির যে প্রত্যাশা ছিল ভারতের প্রথম বিশ্বকাপ জয়ী অধিনায়কের, তা পূরণ করতে পারেননি মাস্টার ব্লাস্টার।

কিংবদন্তি কপিল দেব স্পষ্ট স্বীকার করলেন, সচিনের মতো প্রতিভা তিনি আর কারও মধ্যে দেখেননি। সঙ্গে আক্ষেপও ঝরে পড়ল ভারতের প্রথম বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়কের গলায়। বিশেষ একটা ক্ষেত্রে প্রতিভার যথাযথ মর্যাদা দিতে পারেননি তেন্ডুলকর।

ভারতের মহিলা ক্রিকেট দলের হেড কোচ ডব্লিউভি রামনের সঙ্গে তাঁর ইউটিউব চ্যানেলে কথা বলার সময় কপিল দেব জানান, সচিন নিজেকে নির্মম ব্যাটসম্যান হিসেবে তুলে ধরতে পারেননি। সেকারণেই নিজের টেস্ট ইনিংসগুলিকে সচিন আরও বড় রূপ দিতে পারেননি। না হলে সচিনের যা প্রতিভা, তাতে ওর আরও অনেক বেশি ডাবল ও ট্রিপল সেঞ্চুরি করা উচিত ছিল বলে মনে করেন কপিল।

বিশ্বকাপজয়ী ভারত অধিনায়কের কথায়, ‘সচিনের মতো প্রতিভা আমি আর কারও মধ্যে দেখিনি। ও জানত, কীভাবে সেঞ্চুরি করতে হয়। তবে ও কখনই নির্মম ব্যাটসম্যান হিসেবে নিজেকে তুলে ধরতে পারেনি। সেকারণেই ও সেঞ্চুরিকে ডাবল সেঞ্চুরি বা ট্রিপল সেঞ্চুরিতে পরিণত করতে পারেনি।’

কপিল আরও বলেন, ‘সচিনের উচিত ছিল ৫টা ট্রিপল সেঞ্চুরি ও আরও ১০টা ডাবল সেঞ্চুরি করা। কারণ ও পেসারদের হোক বা স্পিনারদের, প্রতি ওভারেই বাউন্ডারি মারতে পারত। যেহেতু ও মুম্বইয়ের ক্রিকেটার, ওদের মাইন্ডসেটটাই থাকে সেঞ্চুরির পর আবার শূন্য থেকে শুরুর করার। তেন্ডুলকর একশো করার পর সিঙ্গলস নেওয়ার চেষ্টা করত। অথচ ওর উচিত ছিল বাউন্ডারির পিছনে দৌড়নো।’

উল্লেখ্য, টেস্ট কেরিয়ারে সচিন ৫১টি সেঞ্চুরি করলেও তাঁর ডাবল সেঞ্চুরির সংখ্যা মাত্র ৬টি। ২০ বার তিনি দেড়শো রানের গণ্ডি টপকাতে পেরেছেন। কখনও ত্রিশতরান করা সম্ভব হয়নি তাঁর পক্ষে। সচিন ১০ বছর টেস্ট খেলার পর প্রথম ডাবল সেঞ্চুরি করেন। তাঁর সর্বোচ্চ টেস্ট ইনিংস অপরাজিত ২৪৮ রানের।

বন্ধ করুন