পোলিওর থাবা দুই পা কেড়ে নিলেও ক্রিকেটের প্রতি আগ্রহ কমেনি মাড্ডা রামের।
পোলিওর থাবা দুই পা কেড়ে নিলেও ক্রিকেটের প্রতি আগ্রহ কমেনি মাড্ডা রামের।

পোলিও আক্রান্ত কিশোরের ব্যাটিংয়ে মুগ্ধ সচিন, শেয়ার করলেন ভিডিয়ো

  • দন্তেওয়াড়া জেলার কোটেকল্যাণ এলাকার এক ছোট গ্রামে বাসিন্দা মাড্ডা রাম স্থানীয় স্কুলে সপ্তম শ্রেণির ছাত্র। পোলিওতে দুই পা হারালেও ক্রিকেটের প্রতি তার ভালোবাসায় ছেদ পড়েনি। তার ব্যাটিংয়ের ভিডিয়ো ক্লিপিং টুইটারে শেয়ার করেছেন সচিন তেন্ডুলকর।

ছত্তিশগড়ের বস্তার অঞ্চলের মাওবাদী অধ্যুষিত দন্তেওয়াড়া জেলার ১৩ বছরের কিশোর মন কেড়েছে স্বয়ং সচিন তেন্ডুলকরের। তার ব্যাটিংয়ের ভিডিয়ো ক্লিপিং টুইটারে শেয়ার করেছেন কিংবদন্তি ক্রিকেট নক্ষত্র।

দন্তেওয়াড়া জেলার কোটেকল্যাণ এলাকার এক ছোট গ্রামে বাসিন্দা মাড্ডা রাম স্থানীয় স্কুলে সপ্তম শ্রেণির ছাত্র। শৈশবে পোলিওতে দুই পা হারালেও ক্রিকেটের প্রতি তার ভালোবাসায় ছেদ পড়েনি। তার ক্রিকেট অনুরাগ দেখে সচিন জানিয়েছেন, 'ওর খেলা দেখে আমার হৃদয় উষ্ণ হয়ে উঠল।'

সচিন তার ব্যাটিংয়ের ভিডিয়ো ক্লিপিং সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করেছেন জেনে মাড্ডা রাম বলেছে, ‘সচিন তেন্ডুলকর আমার ভিডিয়ো শেয়ার করেছেন জেনে গর্ববোধ করছি। আমি ওঁকে ধন্যবাদ জানাতে চাই এবং আমাদের গ্রামে আসার আমন্ত্রণ জানাতে চাই।’

মাড্ডা জানিয়েছেন, তার বন্ধু কোসা ও রাজা সব সময় তাদের সঙ্গে খেলার জন্য অনুপ্রেরণা জোগায়। তার ব্যাটিংয়ের ভিডিয়োটি বাবার মোবাইল ফোন ক্যামেরায় রেকর্ড করে মাড্ডা রামের আর এক বন্ধু গোলু। ভবিষ্যতে নিজের সম্প্রদায়ের জন্য চিকিত্সক হওয়ার স্বপ্ন দেখে মাড্ডা রাম।

খবর পেয়ে বৃহস্পতিবার মাড্ডার স্কুলে যান ব্লক শিক্ষা আধিকারিক গোপাল পান্ডে। তিনি জানিয়েছেন, ‘মাড্ডা ও তার বন্ধুদের ক্রিকেট কিট উপহার দিয়েছে শিক্ষা দফতর। শিক্ষক ও গ্রামবাসীরা জানিয়েছেন, মাড্ডা অত্যন্ত পরিশ্রমী ও প্রতিভাবান ছেলে।’

মায়ের সঙ্গে মাড্ডা রাম।
মায়ের সঙ্গে মাড্ডা রাম।

দন্তেওয়াড়ার জেলাশাসক তপেশ্বর ভার্মা হিন্দুস্তান টাইমস-কে বলেন, ‘সচিন তেন্ডুলকর টুইট করার পরে মাড্ডা রাম সম্পর্কে জানতে পারি। ছেলেটি আমাদের সকলের জন্যই উদ্দীপনা জোগাচ্ছে। নিজের দক্ষতা বাড়ানোর জন্য ওর যা যা দরকার, তা আমরা সবই করার চেষ্টা করব।’

ছত্তিশগড়ের বস্তার অঞ্চলে মাওবাদী অধ্যুষিত জেলাগুলির অন্যতম দন্তেওয়াড়া সিপিআই (মাওবাদী) গোষ্ঠীর হিংসাত্মক গতিবিধির উত্সস্থল হিসেবে পরিচিত। ২০১৮ সালের অক্টোবর মাসে মাওবাদী হামলায় এখানেই নিহত হন দূরদর্শন-এর এক আলোকচিত্রী ও দুই পুলিশকর্মী। তার আগে, গত এপ্রিল মাসে মাওবাদীদের হাতে খুন হন স্থানীয় বিধায়ক এবং চার পুলিশকর্মী।

বন্ধ করুন