বাংলা নিউজ > ময়দান > ২৭ বার মাথায় আঘাত, জুডো প্রশিক্ষণই মৃত্যুর কারণ হয়ে দাঁড়াল সাত বছরের বালকের
জুডো। প্রতীকী চিত্র (Unsplash)। 
জুডো। প্রতীকী চিত্র (Unsplash)। 

২৭ বার মাথায় আঘাত, জুডো প্রশিক্ষণই মৃত্যুর কারণ হয়ে দাঁড়াল সাত বছরের বালকের

  • আঘাত লাগার ৭০ দিন পরে অবশেষে মৃত্যু ঘটল বালকটির।

বয়স মাত্র সাত বছর আর তাতেই এক অত্যন্ত মর্মান্তিক ঘটনা ঘটে গেল তাইওয়ানের এক বালকের সঙ্গে। নিজের জুডো ক্লাসের সময় বাংবার মাথায় আঘাত পেয়ে গত ২১ এপ্রিল থেকে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন খুদে। তবে অবশেষে একাধিক অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ বিকল হতে থাকায়, ৭০ দিন পরে ব্রেনডেড অবস্থায় থাকা বালকটির পিতামিতা মঙ্গলবার (২৯ জুন) তার লাইফ সাপোর্ট খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন।

ঘটনায় অভিযোগের তীর বালকটির জুডো প্রশিক্ষক, হো-র দিকে। অভিশংসকের মতে বালকটিকে নিজে অন্তত ১২বার ছুড়ে ফেলার পাশাপশি উপস্থিত বাকি বালকদেরও অনুশীলনে একই কাজ করার নির্দেশ দেন প্রশিক্ষক। বালকটি মাথা ব্যাথার অভিযোগ জানিয়েও মেলেনি সুরাহা। যতক্ষণ না তাঁর শরীর ফিঁকে হয়ে যায় এবং বালকটি সাড়া-শব্দ দেওয়া বন্ধ করে দেয়, ততক্ষণ এই অত্যাচার চলতে থাকতে।

লাগাতার আঘাতের ফলে মাথায় গুরুতর চোট পায় সাত বছরের বালক। তাকে কাছের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে, অপারেশনের পরে ডাক্তাররা ব্রেন ডেড হওয়ার কথা জানান। ঠিক কতবার মাথায় আঘাত করা হয়, সেই বিষয়ে অভিশংসক কিছু না জানালেও স্থানীয় সাংবাদমাধ্যমরা জানায় সংখ্যাটি ২৭। ২৭বার লাগাতার বালকটির মাথায় আঘাত লাগে।

মাসের শুরুতে জুডো প্রশিক্ষকের বিরুদ্ধে শারীরিক ক্ষতি করা, বাচ্চাদের ব্যবহার করে অপরাধ করাসহ আরও বেশ কয়েকটি মামলায় অভিযোগ দায়ের করা হয়। তবে অভিযুক্ত ব্যক্তি কোনরকম অপরাধ করেননি বলেই দাবি করেছেন। ‘ওটা প্রতিদিনের মতোই একটা সাধারণ জুডো ক্লাস ছিল। আমরা কোনরকম অনৈতিক শক্তি ব্যবহার করিনি। এমনকী বুঝতে পারিনি যে ও এত গভীরভাবে আহত হয়েছে।’ অভিযুক্ত জানান বলে দাবি করেন অভিশংসক।

বন্ধ করুন