বাংলা নিউজ > ময়দান > শাহরুখের শেষ বলে ছয় মারার নেপথ্যে সেই ধোনি
আইপিএল চলাকালীন শাহরুখ খানের সঙ্গে আলোচনায় ধোনি। ছবি- টুইটার।
আইপিএল চলাকালীন শাহরুখ খানের সঙ্গে আলোচনায় ধোনি। ছবি- টুইটার।

শাহরুখের শেষ বলে ছয় মারার নেপথ্যে সেই ধোনি

  • ১৫ বলে অপরাজিত ৩৩ রান করে নাগাড়ে দ্বিতীয়বার তামিলনাড়ুকে সৈয়দ মুস্তাক আলি ট্রফি জেতান শাহরুখ খান।

ভারতের হয়ে হোক বা চেন্নাই সুপার কিংসের হলুদ জার্সিই পরেই হোক না কেন, মহেন্দ্র সিং ধোনি যে কতবার ছক্কা হাকিয়ে নিজের দলের হয়ে ম্যাচ শেষ করেছেন, তার ইয়ত্তা নেই। অনেকটা একই ভঙ্গিমায় হলুদ জার্সি পরেই ছয় মেরে দলকে জেতালেন শাহরুখ খানও। তবে তিনি তামিলনাড়ুর হলুদ জার্সি পরে দলকে ম্যাচ ও  সৈয়দ মুস্তাক আলি ট্রফি জেতান।

এবারের মুস্তাক আলির খেতাবি লড়াইয়ে ফাইনালে মুখোমুখি হয়েছিল কর্ণাটক এবং তামিলনাড়ু। কর্ণাটকের করা ১৫১ রান তাড়া করতে নেমে একসময় পথ হারিয়ে ফেলেছিল তামিলনাড়ু। তবে ম্যাচের শেষ বলে পাঁচ রান বাকি ছিল, সজোরে শট মেরে বল স্ট্যান্ডে ফেলে দিয়ে এক ঐতিহাসিক রান তাড়া করে নাগাড়ে দ্বিতীয়বার তামিলনাড়ুকে ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি ট্রফি জেতান শাহরুখ। ১৫ বলে ৩৩ রান করে অপরাজিত থাকেন তিনি। তাঁর এই সাফল্যের পিছনে গুরু মহেন্দ্র সিং ধোনিরই পরামর্শ কাজে লেগেছেন বলে জানান খোদ শাহরুখ।

Sportskeeda-কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘আমি যখন ব্যাট করতে নামি তখন আমাদের ৫০-৫৫ রান (আদপে ৫৭ রান) দরকার ছিল। আমি শুরুতে কয়েকটা বল একটু দেখে নিতে চেয়েছিলাম। জানতাম ফাস্ট বোলারদের কয়েক ওভার বাকি রয়েছে এবং সমীকরণটা কিছুটা হাতের বাইরেই। তবে আমি ম্যাচকে শেষ অবধি নিয়ে যাব বলে ঠিক করি। এমএস (ধোনি) আমায় নিজের ওপর ভরসা করার পরামর্শ দিয়েছিল। ও বলেছিল শুধু সেইসময় আমিই জানি কী করা উচিত এবং আমি যা সিদ্ধান্ত নেব সেটাই সঠিক। আমার পদ্ধতিতে খেললে কিছু ত্রুটি হলেও সেইসব নিয়ে বেশি ভাবতে নয়।’

প্রাক্তন ভারতীয় অধিনায়কের কথা অক্ষরে অক্ষরে মনে রেখেছিলেন শাহরুখ। ধোনির মতোই তিনিও ম্যাচকে শেষ অবধি নিয়ে গিয়ে জেতানোর জন্য ঝাঁপান। একটা সময় এক রান নেওয়ার সুযোগ আসলেও তিনি নিজের দক্ষতার ওপর আস্থা রেখে তা নাকচ করে দেন। সেই আত্মবিশ্বাস এবং ধোনির মন্ত্রে দীক্ষিত হয়ে দলকে শেষ বলে ছয় মেরে অবিশ্বাস্যভাবে ম্যাচ জেতান মারকুট তামিলনাড়ু ব্যাটার।

বন্ধ করুন