বাংলা নিউজ > ময়দান > Tharoor on boycott campaign of IND match: ‘বয়কট’ মন্তব্যের ভুল ব্যাখ্যা, কেরলে ভারত ম্যাচে ফাঁকা মাঠ নিয়ে বললেন থারুরের

Tharoor on boycott campaign of IND match: ‘বয়কট’ মন্তব্যের ভুল ব্যাখ্যা, কেরলে ভারত ম্যাচে ফাঁকা মাঠ নিয়ে বললেন থারুরের

তিরুবনন্তপুরমে শতরান বিরাট কোহলির (বাঁদিকে), শশী থারুর (ডানদিকে)। (ফাইল ছবি, সৌজন্যে এপি এবং পিটিআই)

Tharoor on boycott campaign of IND match: কেরলে ভারত-শ্রীলঙ্কা ম্যাচের পরদিন শশী থারুর বলেন, ‘বয়কট করা গণতান্ত্রিক অধিকার। কিন্তু যাঁর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করা হচ্ছে, সেই ব্যক্তিকে বয়কট করা উচিত। মন্ত্রীর অবিবেচকের মতো মন্তব্যের জেরে যাঁরা ক্ষুব্ধ হয়েছিলেন, তাঁদের বিরুদ্ধে আমার কোনও ক্ষোভ নেই।’

কেরলে ভারতের ম্যাচে গ্যালারি কার্যত ফাঁকা ছিল। সেই ঘটনার প্রেক্ষিতে যে মন্তব্য করেছিলেন, সেটির ভুল ব্যাখ্যা করা হচ্ছে বলে দাবি করলেন তিরুবনন্তপুরমের সাংসদ শশী থারুর। তাঁর বক্তব্য, কেরলের ক্রীড়ামন্ত্রী ভি আবধুরাহিমান টিকিটের দাম নিয়ে যে মন্তব্য করেছেন, ম্যাচ থেকে মুখ না ফিরিয়ে মন্ত্রীকে বয়কট করা উচিত ছিল।

সোমবার টুইটারে তিরবনন্তপুরমের সাংসদ বলেন, 'বয়কট করা গণতান্ত্রিক অধিকার। কিন্তু যাঁর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করা হচ্ছে, সেই ব্যক্তিকে বয়কট করা উচিত। মন্ত্রীর অবিবেচকের মতো মন্তব্যের জেরে যাঁরা ক্ষুব্ধ হয়েছিলেন, তাঁদের বিরুদ্ধে আমার কোনও ক্ষোভ নেই। যিনি বলেছিলেন, যাঁদের ম্যাচের টিকিট কেনার মুরোদ নেই, তাঁদের খেলা দেখতে আসার প্রয়োজনীয়তা নেই।'

কংগ্রেসের সাংসদ আরও বলেন, 'ক্রীড়ামন্ত্রী ম্যাচে আসার প্রয়োজনটুকুও বোধ করেননি। গ্যালারি ভরতি ছিল নাকি খালি ছিল, তাতে তাঁর কিছু যায়-আসে না। বয়কটের ডাকে তাঁর উপর কোনও প্রভাব নেই। ম্যাচটা নয়, বরং মন্ত্রীকে বয়কট করা উচিত ছিল বিক্ষোভকারীদের। এরকম (ম্যাচ) বয়কট করা হলে তিরবনন্তপুরমে ক্রিকেটের ভবিষ্যতই ধাক্কা খাবে।'

কী বলেছিলেন কেরলের ক্রীড়ামন্ত্রী?

কেরলের তিরুবনন্তপুরমে ভারত-শ্রীলঙ্কার তৃতীয় একদিনের ম্যাচ ছিল। সেই ম্যাচে টিকিটের চড়া দাম নিয়ে যে প্রশ্ন উঠেছিল, তা নিয়ে সাফাই দিতে গিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করেছিলেন কেরলের ক্রীড়ামন্ত্রী। তিনি বলেছিলেন, ‘কর কমানোর কী আছে? দেশে যে মূল্যবৃদ্ধি হয়ে যাচ্ছে, তা (নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য) সেক্ষেত্রে কর ছাড় দেওয়ার দাবি উঠছে। যাঁরা অনাহারে ভুগছেন, তাঁদের ম্যাচ দেখতে যাওয়ার প্রয়োজন নেই।’

সেই মন্তব্যের প্রেক্ষিতে ভারত-শ্রীলঙ্কার তৃতীয় একদিনের ম্যাচ দেখতে যাতে মাঠে না যাওয়া হয়, সেই দাবি তুলতে থাকেন নেটিজেনদের একাংশ। সেজন্যই রবিবার তিরবনন্তপুরমের মাঠে কম দর্শক হয়েছে কিনা, তা নিশ্চিতভাবে বলা না গেলেও গ্যালারির অনেকটাই ফাঁকা দেখা গিয়েছে। বিশেষত রবিবার যেখানে খেলা পড়েছে, সেখানে এরকম ফাঁকা গ্যালারি দেখে অনেকেই হতবাক হয়ে গিয়েছেন।

আরও পড়ুন: SKY's gesture goes viral: ‘সঞ্জু কোথায়?’ প্রশ্ন কেরলের গ্যালারির, মাঠেই ‘হৃদয়’ দেখালেন SKY, ভাইরাল ভিডিয়ো

তারইমধ্যে রবিবার থারুর বলেছিলেন, 'ম্যাচ বয়কটের দাবি জানিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় যে দাবি উঠছিল, তা আমার চোখে পড়েছে। দেখে মনে হচ্ছে যে সেটা কার্যকরী হয়েছে। আমার মতে, এই ম্যাচ বয়কট করার কোনও যুক্তি নেই। এই ম্যাচটা দেখতে পেরে নিজেকে সৌভাগ্যবান মনে করছি। বাকি যাঁরা ম্যাচ দেখতে এসেছেন, তাঁরাও সেটা মনে করছেন।' সোমবার সেই মন্তব্যেরই ব্যাখ্যা দিলেন স্থানীয় সাংসদ।

(এই খবরটি আপনি পড়তে পারেন HT App থেকেও। এবার HT App বাংলায়। HT App ডাউনলোড করার লিঙ্ক https://htipad.onelink.me/277p/p7me4aup)

বন্ধ করুন