বাংলা নিউজ > ময়দান > হঠাৎ কেন ভাষা হারালেন শোয়েব আখতার?
শোয়েব আখতার স্টেডিয়াম।
শোয়েব আখতার স্টেডিয়াম।

হঠাৎ কেন ভাষা হারালেন শোয়েব আখতার?

  • তাঁকে রাওলপিণ্ডি এক্সপ্রেস বলা হয়। রাওলপিণ্ডির গর্বের নাম শোয়েব আখতার। তাঁকে সম্মান জানাতেই এ বার রাওলপিণ্ডির কেআরএল স্টেডিয়ামের নামকরণ করা হল তাঁর নামে।

দিল্লির ফিরোজ শাহ কোটলার নামকরণ হয়েছে অরুণ জেটলির নামে। আহমেদাবাদের মোতেরার নাম ছিল সর্দার বল্লভ ভাই পটেল স্টেডিয়াম। তবে এখন তার নতুন নামকরণ হয়েছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নামে। গোটা ভারতে যখন একের পর এক স্টেডিয়াম বিভিন্ন নেতা-মন্ত্রীদের নামে রাখার চল শুরু হয়েছে, তখন পাকিস্তান একেবারে উল্টো পথে হাঁটল। ক্রিকেট স্টেডিয়ামের সঙ্গে ক্রিকেটারদের যোগ সবচেয়ে বেশি। তাই তারা রাওলপিণ্ডির কেআরএল স্টেডিয়ামের নামকরণ করল শোয়েব আখতারের নামে। রাওলপিণ্ডি এক্সপ্রেস নিজে টুইটারে এ কথা জানিয়ে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন।

কেন রাজনীতিবিদদের নামে দেশের স্টেডিয়ামের নামকরণ হবে, তা নিয়ে যখন ভারতে তীব্র বিতর্ক চলছে, সেই সময় শোয়েবের নামে কেআরএল-এর নামকরণ যেন বিরোধীদের হাতে অস্ত্র তুলে দিল। অরুণ জেটলি বা নরেন্দ্র মোদীর নামে স্টেডিয়ামের নামকরণ নিয়ে বিরোধীরা আগে থেকেই সমালোচনায় বিদ্ধ করে চলেছে বিজেপি-কে। এ বার পড়শি দেশের উদাহরণ টেনে নতুন করে বিতর্ক শুরু হওয়ার অপেক্ষা।

শোয়েবের নামে কেআরএল-এর নতুন করে নামকরণের পর টুইটে আবেগঘন পোস্ট করেন প্রাক্তন পাক পেসার। তিনি লিখেছেন, ‘এটা জানাতে আমি সম্মানিত এবং একইসঙ্গে গর্ববোধ করছি যে, রাওলপিণ্ডির কেআরএল স্টেডিয়ামের নতুন নামকরণ হয়েছে শোয়েব আখতার স্টেডিয়াম। আমি সাধারণত বাক্যহারা হই না। কিন্তু আজ আমি বাক্যহারা। সত্যি কথা বলতে, বছরের পর বছর সকলে আমাকে যে ভাবে ভালবেসেছে, সম্মান দেখিয়েছে, তার পর তাঁদের ধন্যবাদ জানানোর কোনও ভাষা আমি খুঁজে পাচ্ছি না।’  

বন্ধ করুন