বাংলা নিউজ > ময়দান > SL vs BAN: পাত্তা দেননি তাসকিনকে, তাঁর বলই আছড়ে পড়ল শ্রীলঙ্কার অধিনায়কের হেলমেটে
তাসকিন আহমেদের বলে পুল মারতে গিয়ে কিছুটা দেরি করে ফেলেন দাসুন শানাকা। বল লাগে হেলমেটে। (ছবি সৌজন্যে এএফপি)

SL vs BAN: পাত্তা দেননি তাসকিনকে, তাঁর বলই আছড়ে পড়ল শ্রীলঙ্কার অধিনায়কের হেলমেটে

  • SL vs BAN: বাংলাদেশের তাসকিন আহমেদের বল শ্রীলঙ্কার অধিনায়ক দাসুন শানাকার হেলমেটে আছড়ে পড়ে। যিনি বলেছিলেন, ‘আফগানিস্তানের বোলিং লাইন-আপ বিশ্বমানের। আমরা জানি যে ফিজ (মুস্তাফিজুর রহমান) ভালো বোলার। শাকিব (আল হাসান) বিশ্বমানের বোলার। কিন্তু তাঁরা ছাড়া (বাংলাদেশ) আর কোনও বিশ্বমানের বোলার নেই। তাই আফগানিস্তানের নিরিখে বাংলাদেশ তুলনামূলকভাবে সহজ প্রতিপক্ষ।’

বাংলাদেশের বোলারদের তেমন পাত্তা দিতে চাননি। মুস্তাফিজুর রহমান ও শাকিব আল হাসান ছাড়া বাংলাদেশের কোনও ভালো বোলার নেই বলেছিলেন। যা নিয়ে কথার লড়াই শুরু হয়েছিল। তারইমধ্য়ে বৃহস্পতিবার শ্রীলঙ্কার অধিনায়ক দাসুন শানাকার হেলমেটে আছড়ে পড়ল তাসকিন আহমেদের শর্ট বল।

এশিয়া কাপের গ্রুপ 'বি'-র ‘নকআউট’ ম্যাচে প্রথমে ব্যাটিং করে ১৮৩ রান তোলে বাংলাদেশ। সেই রান তাড়া করতে নেমে শুরুটা ভালো করলেও পরে হোঁচট খায় শ্রীলঙ্কা। শানাকা যখন ক্রিজে আসেন, তখন বেশ চাপে ছিল দ্বীপরাষ্ট্র। তারইমধ্যে ১১ তম ওভারের চতুর্থ বল (বাংলাদেশের পেসার তাসকিনের বল) শানাকার হেলমেটে আছড়ে পড়ে।

শ্রীলঙ্কার ইনিংসের ১১ তম ওভার বল করছিলেন তাসকিন। চতুর্থ বলটা শর্ট লেংথে রাখেন। পুল করতে যান শানাকা। তবে কিছুটা দেরি করে ফেলেন। বলের গতি অনুধাবন করতে পারেননি। শ্রীলঙ্কার অধিনায়কের হেলমেটে বল লাগে। হেলমেটের নিচের দিকে যে অতিরিক্ত প্যাডিং থাকে, তা খুলে পড়ে যায়। তারইমধ্যে এক রান নেন। তারপর নিয়মতো মাঠে আসেন শ্রীলঙ্কা ফিডিয়ো। কনকাশন সংক্রান্ত পরীক্ষা করে দেখেন। কোনও অসুবিধা হয়নি শ্রীলঙ্কার অধিনায়কের। খেলা চালিয়ে যেতে থাকেন তিনি।

আরও পড়ুন: Chamika Karunaratne doing Nagin Dance: বাংলাদেশ হারতেই ‘নাগিন ডান্স’ KKR তারকার, ভাইরাল ভিডিয়ো

যখন তাঁর হেলমেটে বল লেগেছিল, তখন শানাকা সাত বলে মাত্র এক রান করেছিলেন। কয়েক বল পরেই হাত খোলেন। তখনও পর্যন্ত ম্যাচের সেরা বোলার এবাদত হোসেনকে ১৩ তম ওভারের প্রথম দুই বলে ছক্কা মারেন। শেষপর্যন্ত ৩৩ বলে ৪৫ রান করে আউট হন। যিনি বাংলাদেশ ম্যাচের আগে বলেছিলেন, ‘আফগানিস্তানের বোলিং লাইন-আপ বিশ্বমানের। আমরা জানি যে ফিজ (মুস্তাফিজুর রহমান) ভালো বোলার। শাকিব (আল হাসান) বিশ্বমানের বোলার। কিন্তু তাঁরা ছাড়া (বাংলাদেশ) আর কোনও বিশ্বমানের বোলার নেই। তাই আফগানিস্তানের নিরিখে বাংলাদেশ তুলনামূলকভাবে সহজ প্রতিপক্ষ।’

এশিয়া কাপে শ্রীলঙ্কা বনাম বাংলাদেশ ম্যাচ

টসে জিতে প্রথমে বোলিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন শ্রীলঙ্কার অধিনায়ক দাসুন শানাকা। নির্ধারিত ২০ ওভারে সাত উইকেটে ১৮৩ রান তোলে বাংলাদেশ। যা সংযুক্ত আরব আমিরশাহির মাটিতে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ স্কোর। ২২ বলে ৩৯ রান করেন আফিফ হোসেন। নয় বলে ২৪ রান করেন মোসাদ্দেক হোসেন। ২৬ বলে মেহেদি হাসান মিরাজ করেন ৩৮ রান।

আরও পড়ুন: ১০০-র বেশি T20 খেলা প্লেয়ারদের মধ্যে সবচেয়ে খারাপ গড় ও স্ট্রাইকরেটের নজির মুশফিকুরের

সেই রান তাড়া করতে নেমে শুরুটা ভালো করে শ্রীলঙ্কা। কিন্তু ষষ্ঠ ওভারে প্রথম উইকেট পড়ার পর ম্যাচের রাশ নিজেদের হাতে নিতে থাকে বাংলাদেশ। একাধিক উইকেটের ধাক্কা সামলে শ্রীলঙ্কার ইনিংস টানতে থাকেন কুশল মেন্ডিস এবং শানাকা। দু'জনে শ্রীলঙ্কাকে ম্যাচে ফিরিয়ে আনেন। কিন্তু সঠিক সময় মেন্ডিসকে আউট করে ম্যাচে ফেরেন শাকিব আল হাসানরা। তারপরও দাসুনের সৌজন্যে ম্যাচে এগিয়ে ছিল শ্রীলঙ্কা। কিন্তু শেষের দিকে শানাকা এবং চামিকা করুণারত্নে আউট হয়ে যাওয়ায় ম্যাচের পাল্লা বাংলাদেশের দিকে ঝুলে যায়। শেষপর্যন্ত পেসার আসিথা ফার্নান্দোর তিন বলে অপরাজিত ১০ রানের সৌজন্যে ম্যাচে জিতে এশিয়া কাপের সুপার ফোরে উঠে যায় শ্রীলঙ্কা।

বন্ধ করুন