বাংলা নিউজ > ময়দান > SL vs PAK: প্রায় সাড়ে তিনশো তুলে হারতে হয়েছিল, তাই এবার বাবরদের সামনে ৫০০-র টার্গেট ঝুলিয়ে দিল শ্রীলঙ্কা
শতরানের পরে ধনঞ্জয়া ডি'সিলভা। ছবি- এএফপি (AFP)

SL vs PAK: প্রায় সাড়ে তিনশো তুলে হারতে হয়েছিল, তাই এবার বাবরদের সামনে ৫০০-র টার্গেট ঝুলিয়ে দিল শ্রীলঙ্কা

  • পাকিস্তানের বিরুদ্ধে দ্বিতীয় টেস্টে দুর্দান্ত শতরান করেন ধনঞ্জয়া ডি'সিলভা।

সাড়ে তিনশো রানের টার্গেটও যে যথেষ্ট নয়, সেটা সিরিজের প্রথম টেস্টেই বুঝে গিয়েছে শ্রীলঙ্কা। পাকিস্তানের বিরুদ্ধে প্রথম টেস্টের আগে পর্যন্ত গলে সব থেকে বেশি ২৬৮ রান তাড়া করে জয়ের রেকর্ড ছিল শ্রীলঙ্কার। ২০১৯ সালে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে এমন নজির গড়ে আয়োজকরা। সুতরাং, ৩০০-র বেশি রান তাড়া করে গলে কখনও কোনও দল টেস্ট জিততে পারেনি তথনও পর্যন্ত।

প্রথম টেস্টে পাকিস্তানের সামনে ৩৪২ রানের টার্গেট ঝুলিয়ে দিয়েছিল শ্রীলঙ্কা। স্বাভাবিকভাবেই মনে করা হয়েছিল বুঝি বাবর আজমদের পক্ষে রেকর্ড রান তাড়া করে ম্যাচ জেতা সম্ভব হবে না। তবে সকলকে ভুল প্রমাণিত করে পাকিস্তান গল ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়ামে রান তাড়া করে জয়ের নতুন রেকর্ড গড়ে। তারা ৬ উইকেটে ৩৪৪ রান তুলে টেস্ট জিতে যায়।

সেই হার থেকে শিক্ষা নিয়েই শ্রীলঙ্কা এবার পাকিস্তানের সামনে জয়ের লক্ষ্যটা আরও বাড়িয়ে দেয়। ৫০০-র কমে টার্গেট সেট করা নিরাপদ মনে হয়নি সিংহলিদের কাছে।

দ্বিতীয় টেস্টে শ্রীলঙ্কার ৩৭৮ রানের জবাবে পাকিস্তান তাদের প্রথম ইনিংসে ২৩১ রানে অল-আউট হয়ে যায়। ১৪৭ রানে এগিয়ে থেকে দ্বিতীয় দফায় ব্যাট করতে নামে শ্রীলঙ্কা। তারা চতুর্থ দিনে দ্বিতীয় ইনিংস ডিক্লেয়ার করে ৮ উইকেটে ৩৬০ রানে। সুতরাং, প্রথম ইনিংসের লিড মিলিয়ে পাকিস্তানের সামনে জয়ের লক্ষ্যমাত্রা দাঁড়ায় ৫০৮ রানের।

আরও পড়ুন:- ICC Ranking: স্মিথকে টপকে তিন বাবর, টেস্ট ব়্যাঙ্কিংয়ে বুমরাহকে পিছনে ফেললেন শাহিন আফ্রিদি

দ্বিতীয় ইনিংসে শ্রীলঙ্কার হয়ে দুর্দান্ত শতরান করেন ধনঞ্জয়া ডি'লিসভা। তিনি ১৬টি বাউন্ডারির সাহায্যে ১৭১ বলে ১০৯ রান করে আউট হন। এছাড়া ক্যাপ্টেন দিমুথ করুণারত্নে করেন ৬১ রান। ব্য়াটিং অর্ডার বদলে ৬ নম্বরে ব্যাট করতে নামেন শ্রীলঙ্কা দলনায়ক। কেরিয়ারের ১০০তম টেস্ট খেলতে নামা অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউজ করেন ৩৫ রান।

পাকিস্তানের হয়ে দ্বিতীয় ইনিংসে নাসিম শাহ ও মহম্মদ নওয়াজ ২টি করে উইকেট দখল করেন। ১টি করে উইকেট নেন ইয়াসির শাহ, নউমান আলি ও আঘা সলমন।

আরও পড়ুন:- আশঙ্কা সত্যি হল, ক্যারিবিয়ানদের বিরুদ্ধে T20 সিরিজ পাওয়া যাবে না রাহুলকে-রিপোর্ট

শেষ ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে পাকিস্তান শুরুতেই আব্দুল্লা শফিকের উইকেট হারিয়ে বসে। তিনি ১৬ রান করে জয়সূর্যর শিকার হন। মন্দ আলোয় নির্ধারিত সময়ের আগেই চতুর্থ দিনের খেলা শেষ হওয়ার সময় পাকিস্তান শেষ ইনিংসে ১ উইকেটের বিনিময়ে ৮৯ রান তোলে। ইমাম উল হক ৪৬ ও বাবর আজম ২৬ রানে অপরাজিত থাকেন। শেষ দিনে জয়ের জন্য পাকিস্তানের দরকার ৪১৯ রান। শ্রীলঙ্কার দরকার ৯টি উইকেট। একদিনে এত রান তুলে পাকিস্তানের পক্ষে ম্যাচ জেতা মোটেও সহজ হবে না। তাই ম্যাচ বাঁচানোই হবে বাবরদের প্রাথমিক লক্ষ্য।

বন্ধ করুন