বাড়ি > ময়দান > কোয়েস কি একটা দল গড়ে খেলতে নামাবে? মালিকানা নিয়ে জটিলতা প্রসঙ্গে কটাক্ষ ইস্টবেঙ্গল কর্তার
ইস্টবেঙ্গল ক্লাবের লোগো।
ইস্টবেঙ্গল ক্লাবের লোগো।

কোয়েস কি একটা দল গড়ে খেলতে নামাবে? মালিকানা নিয়ে জটিলতা প্রসঙ্গে কটাক্ষ ইস্টবেঙ্গল কর্তার

  • নতুন ফুটবলারদের কাছে চুক্তিপত্র পাঠাতে শুরু করল লাল-হলুদ শিবির।

স্পোর্টং রাইটস নিয়ে জটিলতার মাঝেই নতুন ফুটবলারদের চুক্তিপত্র পাঠাতে শুরু করল ইস্টবেঙ্গল। লকডাউনের মাঝেই আগামী মরশুমের জন্য নতুন করে দল গড়ার কাজে মন দিয়েছিল লাল-হলুদ শিবির। একের পর এক ভারতীয় তারকাদের ইস্টবেঙ্গলের দলে নেওয়ার খবর প্রায় প্রতিদিনই শোনা যেত দলবদলের বাজারে। লাল-হলুদের তরফে ইতিমধ্যেই বেশ কিছু ভারতীয় ফুটবলারকে জালে তোলার খবরে স্বীকৃতিও দেওয়া হয়েছে। তাঁদের কাছেই চুক্তিপত্র পাঠানোর প্রক্রিয়া শুরু করে দিল শতবর্ষের ইস্টবেঙ্গল।

ক্লাবের এক প্রভাবশালী কর্তা সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে বলেন, 'আমরা ফুটবলারদের কাছে স্বাক্ষরিত চুক্তিপত্র পাঠাতে শুরু করেছি। লকডাউনের জন্য এতদিন কাজ আটকে ছিল।' দুই ফুটবলারের চুক্তিপত্রের প্রতিলিপিও পিটিআইয়ের সামনে তুলে ধরা হয়।

বেশ কিছুদিন ধরেই ফুটবলারদের সঙ্গে ইস্টবেঙ্গলের চুক্তির বৈধ্যতা নিয়ে প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছে সমালোচকমহলের একাংশ। ইস্টবেঙ্গল কর্তা অবশ্য সেবিষয়ে বিশেষ আমল দিতে চাইলেন না। তিনি দাবি করেন, সংবাদমহলের একাংশ উদ্দেশ্যপ্রনোদিতভাবেই সমর্থকদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়াচ্ছে।

কোয়েসের কাছে ৭০ শতাংশ শেয়ার ও স্পোর্টিং রাইটস রয়েছে। এটা দুশ্চিন্তার কারণ নয় বলেও মনে করছেন লাল-হলুদ কর্তা। তিনি আশা করছেন সমস্যা মিটে যাবে দ্রুত। এপ্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘তার মানে কি কোয়েস একটা দল তৈরি করে খেলতে নামাবে? সারা বিশ্বে আমাদের ৪ কোটির বেশি সমর্থক রয়েছেন। কোয়েস কি তাদের কেড়ে নিতে পারবে? সুতরাং সব সমস্যাই মিটে যাবে।’

বন্ধ করুন