অভিযোগকারী কোচ ফিল ব্রাউন। ছবি-আইএসএল
অভিযোগকারী কোচ ফিল ব্রাউন। ছবি-আইএসএল

বিদেশি ফুটবলার ও ব্রিটিশ কোচের পাওনা মেটায়নি ISL ফ্র্যাঞ্চাইজি, অভিযোগ পেল AIFF

  • AIFF-এর তরফে জেনারেল সেক্রেটারি কুশল দাস বিদেশি ফুটবলার ও ব্রাউনের কাছ থেকে চিঠি পাওয়ার সত্যতা স্বীকার করে নিয়েছেন।

গুরুতর অভিযোগ নতুন ISL ফ্র্যাঞ্চইজি হায়দরাবাদ এফসির বিরুদ্ধে। মরশুম শেষ হলেও বেশ কয়েকজন বিদেশি ফুটবলার ও প্রাক্তন কোচ ফিল ব্রাউনের বকেয়া মেটায়নি তারা। সর্বভারতীয় ফুটবল সংস্থার কাছে এই মর্মে লিখিত অভিযোগ জমা পড়েছে। অভিযোগ দায়ের করেছেন বিদেশি ফুটবলাররা। আলাদা করে অভিযোগপত্র পাঠিয়েছেন ব্রাউনও।

হায়দরাবাদ এফসি এবারই প্রথম ইন্ডিয়ান সুপার লিগে অংশ নেয়। ১০ দলের টুর্নামেন্টে তারা একেবারে শেষে থেকে লিগ শেষ করে। ১৮ ম্যাচের মাত্র ২টিতে তারা জয় তুলে নিতে সক্ষম হয়। ড্র করে ৪টি ম্যাচ। হারতে হয় ১২টি ম্যাচে। সাকুল্যে তাদের পয়েন্ট দাঁড়ায় ১০।

ফিল ব্রাউনের কাজে খুশি হতে না পারায় জানুয়ারিতেই ব্রিটিশ কোচকে ছেঁটে ফেলে হায়দরাবাদ এফসি। চুক্তির অর্থ পরে মিটিয়ে দেওয়া হবে বলে জানানো হলেও কথা রাখেনি ফ্র্যাঞ্চাইজি।

এক বিদেশি ফুটবলার AIFF-কে লেখা চিঠিতে জানান, 'হায়দরাবাদ নতুন ফ্র্যাঞ্চাইজি এবং করোনা নিয়ে উদ্ভূত পরিস্থিতির কথা মাথায় রাখলে বিষয়টা সহানুভূতির সঙ্গে দেখা যায়। তবে ফ্র্যাঞ্চাইজির তরফে দেওয়া সমস্ত ডেটলাইন ইতিমধ্যেই পেরিয়ে গিয়েছে। আমরা জানি যে, ভারতে ব্যাঙ্ক খোলা রয়েছে ও আর্থিক লেনদেন চলছে স্বাভাবিক গতিতে। তা সত্ত্বেও তারা বলছে, এই পরিস্থিতিতে টাকা দেওয়া সম্ভব নয়।'

ফেডারেশনকে আলাদা করে চিঠি লিখে টাকা না পাওয়ার কথা জানিয়েছেন ব্রাউনও। AIFF-এর তরফে জেনারেল সেক্রেটারি কুশল দাস বিদেশি ফুটবলার ও ব্রাউনের কাছ থেকে চিঠি পাওয়ার সত্যতা স্বীকার করে নিয়েছেন। তিনি বলেন, 'আমরা কিছু ফুটবলার ও ফিল ব্রাউনের চিঠি পেয়েছি। হায়দরাবাদ এফসির সঙ্গে যোগাযোগ করেছে ফেডারেশন। ওরা একটু সময় চেয়েছে। আমরা আশাবাদী ফ্র্যাঞ্চাইজি সমস্যা মিটিয়ে ফেলবে। যদি ওরা তা না মেটায় এবং পুনরায় ফুটবলার বা ব্রাউনের কাছ থেকে অভিযোগ আসে, তবে ফেডারেশন নিয়ম অনুযায়ী ব্যবস্থা নেবে ফ্র্যাঞ্চাইজির বিরুদ্ধে।'

বন্ধ করুন