বাংলা নিউজ > ময়দান > মণিকা বাত্রার অভিযোগের জবাব দিতে দিল্লি গেলেন সৌম্যদীপ
মণিকা বাত্রা ও সৌম্যদীপ রায় 
মণিকা বাত্রা ও সৌম্যদীপ রায় 

মণিকা বাত্রার অভিযোগের জবাব দিতে দিল্লি গেলেন সৌম্যদীপ

  • দিল্লির উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছেন সৌম্যদীপ। তিনি সেখানে ফেডারেশনের কর্তাদের সঙ্গে দেখা করবেন। সেখানেই নিজের পক্ষে জবাব দেবে।

শনিবার সকালেই দিল্লি উড়ে গেলেন জাতীয় টেবিল টেনিস দলের বাঙালি কোচ সৌম্যদীপ রায়। উদ্দেশ্য অবশ্যই ভারতের অলিম্পিয়ান টেবিল টেনিস তারকা মণিকা বাত্রার অভিযোগের সকল উত্তর দেওয়া। কিছুদিন আগেই সৌম্যদীপের বিরুদ্ধে ম্যাচ গড়াপেটার অভিযোগ তুলেছিলেন মণিকা। তারপর থেকে কোনও ভাবেই ফোন ধরছিলেন না সৌম্যদীপ। শোনা গিয়েছে শনিবারই দিল্লির উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছেন সৌম্যদীপ। তিনি সেখানে ফেডারেশনের কর্তাদের সঙ্গে দেখা করবেন। সেখানেই নিজের পক্ষে জবাব দেবে।  

কিছুদিন আগেই বোমা ফাটিয়ে ছিলেন ভারতের অলিম্পিয়ান টেবিল টেনিস তারকা মণিকা বাত্রা। জাতীয় টেবিল টেনিস দলের বাঙালি কোচ সৌম্যদীপ রায়ের বিরুদ্ধে ম্যাচ গড়াপেটার মারাত্মক অভিযোগ এনেছিলেন মণিকা বাত্রা। টোকিও অলিম্পিক্স চলাকালীন তিনি জাতীয় কোচ সৌম্যদীপ রায়ের সাহায্য নিতে অস্বীকার করেছিলেন। এরপরে মণিকা বাত্রা ও দলের কোচ সৌম্যদীপ রায়ের তিক্ততার সম্পর্ক বাইরে চলে আসে। এরপরে টোকিওতে সফল হতে পারেননি মণিকা বাত্রা। ভারতীয় প্যাডলারের ব্যর্থতার পর মণিকা বাত্রাকে শোকজ করা হয়। 

মণিকা নিজের জবাবে ফেডারেশনকে জানিয়েছিলেন, কয়েক মাস আগে যে ব্যক্তি তাঁকে ম্যাচ ছেড়ে দেওয়ার কথা বলেছিলেন, তাঁর থেকে অলিম্পিক্স ম্যাচের আগে পরামর্শ নিতে চাননি তিনি। সম্পূর্ণ বিষয়টি দেখে জাতীয় সংস্থার সচিব অরুণ বন্দ্যোপাধ্যায়  সৌম্যদীপের কাছে এই অভিযোগের জবাব চান। এরপরে শোনা গিয়েছিল সৌম্যদীপ ফোন ধরছিলেন না। টিটি ফেডারেশনের তরফে জানানো হয় দুই পক্ষের সঙ্গেই তারা আলোচনাতে বসবেন। সমস্যার সমাধানে তারা উদ্যোগী হবেন। টিটি ফেডারেশনের সচিব অরুণ বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছিলেন 'আমরা কোন একপক্ষের কথা শুনে সিদ্ধান্ত নেব না। আমরা দুই পক্ষের সঙ্গে বসব।' এরপরে সৌম্যদীপের দিল্লি যাত্রা অন্য কিছু বার্তা দিচ্ছে।

বন্ধ করুন