বাংলা নিউজ > ময়দান > আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় জানালেন স্টেইন, পরিসংখ্যানের নজরে ফিরে দেখা স্টেইনের ক্যারিয়ার
দক্ষিণ আফ্রিকা দলের পেসার ডেল স্টেইন (ছবি:রয়টার্স) 
দক্ষিণ আফ্রিকা দলের পেসার ডেল স্টেইন (ছবি:রয়টার্স) 

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় জানালেন স্টেইন, পরিসংখ্যানের নজরে ফিরে দেখা স্টেইনের ক্যারিয়ার

  • দেশের হয়ে সাদা পোশাকে ৯৩ ম্যাচে খেলে তিনি নিয়েছেন ৪৩৯ টি উইকেট। ৫১ রান দিয়ে এক ইনিংসে ৭ উইকেট নেওয়া তার সেরা পারফরম্যান্স। টেস্টে এক ইনিংসে মোট ২৬ বার ৫ উইকেট এবং ম্যাচে মোট ৫ বার তিনি ১০ উইকেট নিতে সক্ষম হয়েছেন।

শুভব্রত মুখার্জি: অস্ট্রেলিয়া, দক্ষিণ আফ্রিকা, নিউজিল্যান্ড, ওয়েস্ট ইন্ডিজের মতন দেশগুলো বরাবর তারকা পেসারের জন্ম দিয়ে এসেছে। প্রোটিয়ারা ১৯৯০ এর দশকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরার পর থেকেই অ্যালান ডোনাল্ড, ডেল স্টেইনরা দক্ষিণ আফ্রিকা দলের পেস বিভাগকে নেতৃত্ব দিয়ে এগিয়ে নিয়ে গিয়েছে। সেই ডেল স্টেইন এ বার সব ধরনের ক্রিকেটকে বিদায় জানিয়েছেন। মঙ্গলবার টুইটারে এক পোস্টের মাধ্যমে নিজের অবসরের কথা বিশ্বকে জানান স্টেইন। উল্লেখ্য ২০১৯ সালেই ক্রিকেটের দীর্ঘতম ফর্ম্যাট টেস্ট ক্রিকেটকে বিদায় জানিয়েছিলেন স্টেইন। উদ্দেশ্যে ছিল ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ত ফর্ম্যাটে নিজের ক্যারিয়ারকে দীর্ঘায়িত করা। অবশেষে সেই সময় এসে উপস্থিত হয়েই গেল যখন তিনি ক্রিকেটকে আলবিদা জানালেন। এমন আবহে দাঁড়িয়ে একবার পরিসংখ্যানের নিরীখে ফিরে দেখা যাক গতি দানবের ক্যারিয়ার।

ক্যারিয়ারে একের পর এক চোট তার ক্যারিয়ারে বড় অন্তরায় হয়ে দাঁড়ায়। প্রসঙ্গত স্টেইন দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে সর্বশেষ ওয়ানডে খেলেছেন ২০১৯ সালের মার্চে। প্রোটিয়া জার্সিতে ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারিতে খেলেছেন সর্বশেষ আন্তর্জাতিক টি-২০। ভক্তদের কাছে 'স্টেইন-গান' নামে খ্যাত ডেল ২০০৪ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে পোর্ট এলিজাবেথ টেস্ট দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার শুরু করেছিলেন।

দেশের হয়ে সাদা পোশাকে ৯৩ ম্যাচে খেলে তিনি নিয়েছেন ৪৩৯ টি উইকেট। ৫১ রান দিয়ে এক ইনিংসে ৭ উইকেট নেওয়া তার সেরা পারফরম্যান্স। টেস্টে এক ইনিংসে মোট ২৬ বার ৫ উইকেট এবং ম্যাচে মোট ৫ বার তিনি ১০ উইকেট নিতে সক্ষম হয়েছেন। উল্লেখ্য শন পোলকের পর দ্বিতীয় দক্ষিণ আফ্রিকার বোলার হিসেবে টেস্টে ৪০০ উইকেট পাওয়ার কৃতিত্ব রয়েছে তার, যা স্বয়ং ডোনাল্ডও স্পর্শ করতে পারেননি। তার অসাধারণ পারফরম্যান্সে ভর করে তিনি ২০১০ সালের জানুয়ারিতে আইসিসি টেস্ট র‍্যাঙ্কিংয়ে বোলারদের শীর্ষস্থানে উঠেছিলেন। ক্যারিয়ারে প্রায় সাত বছর টেস্ট র‍্যাঙ্কিংয়ে এক নম্বর বোলার ছিলেন তিনি।

টেস্টের পাশাপাশি ওয়ানডে এবং টি-২০ তেও বল হাতে তার সাফল্য কম নয়। ওয়ানডেতে ১২৫ ম্যাচ খেলে নিয়েছেন ১৯৬ টি উইকেট। ম্যাচে ৩ বার তিনি ৫ বা তার বেশি উইকেট নেওয়ার নজির দেখিয়েছেন। টি-২০ তে ৪৭ ম্যাচ খেলে তার ঝুলিতে রয়েছে ৬৪ উইকেট। এর পাশাপাশি তিনি সারা বিশ্ব জুড়ে ফ্রাঞ্চাইজিভিত্তিক টুর্নামেন্টে দাপটের সাথে খেলেছেন।

ভারতের ঘরোয়া ফ্রাঞ্চাইজি টি-২০ টুর্নামেন্ট আইপিএলে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর, সানরাইজার্স হায়দরাবাদ সহ বিভিন্ন দলের হয়ে তিনি ৯৫ ম্যাচ খেলে নিয়েছেন ৯৭ উইকেট। লোয়ার অর্ডারে ব্যাট হাতেও মন্দ খেলতেন না এই গতি দানব। টেস্ট তার সর্বোচ্চ স্কোর ৭৬। টেস্টে ১৩.৬ গড়ে করেছেন ১২৫১ রান। ওয়ানডেতেও তার সর্বোচ্চ স্কোর ৬০। ওয়ানডেতে প্রায় ১০ এর কাছাকাছি গড়ে করেছেন ৩৬৫ রান।

বন্ধ করুন