বাংলা নিউজ > ময়দান > ক্রিকেটকে বিদায় জানালেন ভারতের হয়ে ওয়ান ডেতে সর্বকালীন রেকর্ডধারী স্টুয়ার্ট বিনি
স্টুয়ার্ট বিনি। ছবি- গেটি ইমেজেস।
স্টুয়ার্ট বিনি। ছবি- গেটি ইমেজেস।

ক্রিকেটকে বিদায় জানালেন ভারতের হয়ে ওয়ান ডেতে সর্বকালীন রেকর্ডধারী স্টুয়ার্ট বিনি

  • জাতীয় দলের হয়ে ছয়টি টেস্ট ও ১৪ ওয়ান ডের পাশাপাশি তিনটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচও খেলেছেন তিনি।

ভারতের হয়ে ক্রিকেট খেলা দ্বিতীয় জেনারেশন তারকা স্টুয়ার্ট বিনি সোমবার (২৯ অগস্ট) আন্তর্জাতিক ও প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটকে বিদায় জানালেন। ভারতীয় দলের হয়ে ওয়ান ডে ক্রিকেটে এক ম্যাচে সেরা বোলিং পারফরম্যান্সের জন্য চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবেন তিনি।

এক বিবৃতিতে বিনি বলেন, ‘সকলের উদ্দেশ্যে আমি জানাতে চাই যে আমি প্রথম শ্রেণী ও আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর গ্রহণ করছি। শীর্ষে স্তরে নিজের দেশের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করতে পেরে আমি দারুণ আনন্দিত ও গর্বিত।’ জাতীয় দলের হয়ে ছয়টি টেস্ট ও ১৪ ওয়ান ডের পাশাপাশি তিনটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচও খেলেছেন তিনি। 

২০১৪ সালে ঢাকায় মাত্র চার রান দিয়ে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে নেওয়া তাঁর ছয় উইকেট, যে কোন ভারতীয় বোলারের ৫০ ওভারের সেরা বোলিং পারফরম্যান্স। কর্ণাটকেরও অনিল কুম্বলের (১২ রান দিয়ে ছয় উইকেট) রেকর্ড ভেঙে ৩৭ বছর বয়সী অলরাউন্ডার এই কৃতিত্ব নিজের ঝুলিতে ভরেন।

বিশ্বকাপজয়ী ভারতীয় ক্রিকেটার রজার বিনির পুত্র স্টুয়ার্ট, ৯৫টি প্রথম শ্রেণীর ম্যাচও খেলেছেন। জুনিয়র বিনি জাতীয় দলের হয়ে খুব বেশি সুযোগ না পেলেও তিন ফর্ম্যাটেই দেশের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করেছেন। ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ২০১৪ সালে অভিষেক টেস্ট ম্যাচেই ৭৮ রানের লড়াকু ইনিংস খেলে ব্যাট হাতে প্রভাবিত করলেও, লাল বলের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে এটিই ছিল তাঁর একমাত্র অর্ধশতরান।

ফ্লোরিডায় তাঁর বিরুদ্ধে এক ওভারে এভান লুইস পাঁচটি ছয় মারার পরই কার্যত তাঁর আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কেরিয়ারে ইতি পড়ে যায়। উপরন্তু, পিতা রজার বিনিরও সেই সময় নির্বাচক হওয়া নিয়ে বিতর্ক তো ছিলই। পাশাপাশি হার্দিক পান্ডিয়ার অলরাউন্ডার হিসাবে উদয়ও তাঁর আন্তর্জাতিক কেরিয়ারের অন্তরায় হয়ে দাঁড়ায়। তবে ঢাকায় তাঁর বোলিং পারফরম্যান্স তাঁকে চিরতরে ভারতীয় ক্রিকেট ইতিহাসে জায়গা করে দিয়েছে।

ভারতের হয়ে ক্রিকেট খেলা দ্বিতীয় জেনারেশন তারকা স্টুয়ার্ট বিনি সোমবার (২৯ অগস্ট) আন্তর্জাতিক ও প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটকে বিদায় জানালেন। ভারতীয় দলের হয়ে ওয়ান ডে ক্রিকেটে এক ম্যাচে সেরা বোলিং পারফরম্যান্সের জন্য চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবেন তিনি।

এক বিবৃতিতে বিনি বলেন, সকলের উদ্দেশ্যে আমি জানাতে চাই যে আমি প্রথম শ্রেণী ও আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর গ্রহণ করছি। শীর্ষে স্তরে নিজের দেশের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করতে পেরে আমি দারুণ আনন্দিত ও গর্বিত। জাতীয় দলের হয়ে ছয়টি টেস্ট ও ১৪ ওয়ান ডের পাশাপাশি তিনটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচও খেলেছেন তিনি। 

২০১৪ সালে ঢাকায় মাত্র চার রান দিয়ে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে নেওয়া তাঁর ছয় উইকেট, যে কোন ভারতীয় বোলারের ৫০ ওভারের সেরা বোলিং পারফরম্যান্স। কর্ণাটকেরও অনিল কুম্বলের (১২ রান দিয়ে ছয় উইকেট) রেকর্ড ভেঙে ৩৭ বছর বয়সী অলরাউন্ডার এই কৃতিত্ব নিজের ঝুলিতে ভরেন।

বিশ্বকাপজয়ী ভারতীয় ক্রিকেটার রজার বিনির পুত্র স্টুয়ার্ট, ৯৫টি প্রথম শ্রেণীর ম্যাচও খেলেছেন। জুনিয়র বিনি জাতীয় দলের হয়ে খুব বেশি সুযোগ না পেলেও তিন ফর্ম্যাটেই দেশের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করেছেন। ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ২০১৪ সালে অভিষেক টেস্ট ম্যাচেই ৭৮ রানের লড়াকু ইনিংস খেলে ব্যাট হাতে প্রভাবিত করলেও, লাল বলে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে এটিই ছিল তাঁর একমাত্র অর্ধশতরান।

ফ্লোরিডায় তাঁর বিরুদ্ধে এক ওভারে এভান লুইস পাঁচটি ছয় মারার পরই কার্যত তাঁর আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কেরিয়ারে ইতি পড়ে যায়। উপরন্তু, পিতা রজার বিনিরও সেই সময় নির্বাচক হওয়া নিয়ে বিতর্ক তো ছিলই। পাশাপাশি হার্দিক পান্ডিয়ার অলরাউন্ডার হিসাবে উদয়ও তাঁর আন্তর্জাতিক কেরিয়ারের অন্তরায় হয়ে দাঁড়ায়। তবে ঢাকায় তাঁর বোলিং পারফরম্যান্স তাঁকে চিরতরে ভারতীয় ক্রিকেট ইতিহাসে জায়গা করে দিয়েছে।|#+|

 

বন্ধ করুন