বাংলা নিউজ > ময়দান > সুদীপ-মুকেশের অনবদ্য পারফরম্যান্স, কাঞ্চনজঙ্ঘাকে বড় ব্যবধানে হারাল ব্যারাকপুর
উমে উঠেছে বেঙ্গল টি-টোয়েন্টির লড়াই।
উমে উঠেছে বেঙ্গল টি-টোয়েন্টির লড়াই।

সুদীপ-মুকেশের অনবদ্য পারফরম্যান্স, কাঞ্চনজঙ্ঘাকে বড় ব্যবধানে হারাল ব্যারাকপুর

  • বেঙ্গল টি-২০ চ্যালেঞ্জারে ব্যারাকপুর ব্যাশার্স কার্যত খড়কুটোর মতন উড়িয়ে দিল কাঞ্চনজঙ্ঘা ওয়ারিয়র্সকে। ম্যাচে ৯ উইকেটে বড় জয় পেল ব্যারাকপুর। মুকেশ কুমারের ৪ উইকেট এবং অধিনায়ক সুদীপ চ্যাটার্জির অপরাজিত ৭৮ রানে ভর করে জয় ছিনিয়ে নিল ব্যারাকপুর।

শুভব্রত মুখার্জি : সুদীপ চ্যাটার্জি এবং মুকেশ কুমারের অসাধারণ পারফরম্যান্সে ভর করে বেঙ্গল টি-২০ চ্যালেঞ্জারে ব্যারাকপুর ব্যাশার্স কার্যত খড়কুটোর মতন উড়িয়ে দিল কাঞ্চনজঙ্ঘা ওয়ারিয়র্সকে। ম্যাচে ৯ উইকেটে বড় জয় পেল ব্যারাকপুর। মুকেশ কুমারের ৪ উইকেট এবং অধিনায়ক সুদীপ চ্যাটার্জির অপরাজিত ৭৮ রানে ভর করে জয় ছিনিয়ে নিল ব্যারাকপুর।

ইডেন গার্ডেন্সে বৃহস্পতিবার টসে জিতে বেঙ্গল টি-২০ চ্যালেঞ্জারের ম্যাচে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয় কাঞ্চনজঙ্ঘা। যা তাদের ক্ষেত্রে কার্যত ভুল সিদ্ধান্ত বলে প্রমাণিত হয়। মাত্র ১২২ রানে অলআউট হয়ে যায় তারা। ব্যারাকপুরের হয়ে প্রথম ম্যাচ খেলতে নামা মুকেশ মাত্র ১৫ রান দিয়ে ৪টি উইকেট তুলে নেন। স্পিনার বিকাশ সিং ২৭ রান দিয়ে নেন ৩টি উইকেট। সুজিত যাদব ২৬ রান দিয়ে নেন ২টি উইকেট। ব্যাট হাতে কাঞ্চনজঙ্ঘার হয়ে একমাত্র নবীন ব্যাটসম্যান সুদীপ ঘরামি ৫২ বলে ৫৫ রানের ইনিংস খেলেন। তাঁকে সঙ্গত দেন অনুষ্টুপ মজুমদার (১৩) এবং অভিরুপ গুপ্তা (২২)। বিকালের বলে অভিরুপ এবং সুমন্ত গুপ্ত পরপর আউট হওয়ার ফলেই কাঞ্চনজঙ্ঘার ব্যাটিং অর্ডারে ধস নামে। তারা মাত্র ১২২ রান করতে সক্ষম হয়।

জবাবে ১২৩ রান তাড়া করতে নেমে অধিনায়ক সুদীপ চ্যাটার্জি ,অঙ্কুর পালকে সঙ্গী করে ব্যারাকপুরের হয়ে ভাল সূচনা করেন। অঙ্কুর ৩৭ রানে আউট হলেও, সুদীপ চ্যাটার্জি ৭৮ রানে অপরাজিত থেকে দলের জয় নিশ্চিত করেন। সুদীপের ৪৮ বলের ৭৮ রানের ইনিংসটি ৬টি চার ও ৪টি ছয়ে সাজানো ছিল। ১ উইকেটে ব্যারাকপুর ১০৯ রান তুলতে সমর্থ হয়। ফলে ৩৮ বল বাকি থাকতেই ম্যাচ জিতে যায় ব্যারাকপুর। ম্যান অফ দ্য ম্যাচ ঘোষণা করা হয় মুকেশ কুমারকে।

বন্ধ করুন