জাতীয় দলের জার্সিতে ধোনি ও রায়না। ছবি- বিসিসিআই।
জাতীয় দলের জার্সিতে ধোনি ও রায়না। ছবি- বিসিসিআই।

জাতীয় দলে রায়নাকে আগলে রাখতেন ধোনি, অভিযোগ যুবরাজের

  • রায়নার জন্যই ২০১১ বিশ্বকাপের দল নির্বাচন নিয়ে সমস্যায় পড়তে হয়েছিল ধোনিকে।

একপ্রকার বাধ্য হয়েই যুবরাজকে ২০১১ বিশ্বকাপের প্রথম একাদশে জায়গা করে দিতে হয়েছিল ক্যাপ্টেনকে। নাহলে সুরেশ রায়নাই ছিলেন ধোনির প্রিয় পাত্র। রায়নার জন্যই বিশ্বকাপের দল নির্বাচন নিয়ে যারপরনাই সমস্যায় পড়তে হয়েছিল ধোনিকে। কার্যত ক্যাপ্টেনের দিকে আঙুল তোলার ভঙ্গিতেই কথাগুলো জানালেন বিশ্বকাপের নায়ক যুবরাজ সিং।

যুবি জানান, সব ক্যাপ্টেনেরই একজন পছন্দের ক্রিকেটার থাকেন। ধোনির প্রিয় পাত্র ছিলেন রায়না। যুবরাজের কথায়, 'সেই সময় রায়নার জন্য দলে প্রচুর সমর্থন ছিল। কারণ, ক্যাপ্টেন ওর পাশে ছিল। সব ক্যাপ্টেনেরই দলে একজন প্রিয় ক্রিকেটার থাকে। সেই সময় রায়না ছিল ধোনির পছন্দের।'

বিশ্বকাপের সময় দল নির্বাচন নিয়ে ধোনিকে যে সমস্যায় পড়তে হয়েছিল, সেটাও জানাতে ভোলেননি যুবরাজ। তারকা অল-রাউন্ডার বলেন, 'ইউসুফ পাঠান সেই সময় ভালো খেলছিল। আমিও ছন্দে ছিলাম। আমি উইকেটও নিচ্ছিলাম। সেই সময় রায়না পরিচিত ফর্মে ছিল না। দলে কোনও বাঁ-হাতি স্পিনার ছিল না। যেহেতু আমি উইকেট পাচ্ছিলাম, তাই আমাকে বাদ দেওয়ার উপায় ছিল না।'

যুবরাজ অবশ্য বিশ্বকাপের প্রথম একাদশে জায়গা ধরে রেখেছিলেন নিজের যোগ্যতায়। ব্যাট ও বল হাতে ধারাবাহিক পারফর্ম্যান্সের সুবাদেই টুর্নামেন্টের সেরা ক্রিকেটারের পুরস্কার ওঠে তাঁর হাতে। যুবরাজ না থাকলে ভারতের বিশ্বকাপ জয় এত সহজ হতো না, সেটা আলাদা করে বলে দেওয়ার প্রয়োজন হয় না।

ধোনি যেমন রায়নাকে সমর্থন করেছেন, ক্যাপ্টেন থাকাকালীন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের কাছ থেকে তিনি প্রভূত সমর্থন পেয়েছেন বলেও উল্লেখ করেন যুবরাজ। একারণেই সৌরভই তাঁর চোখে ভারতের সর্বকালের সেরা দলনায়ক।

বন্ধ করুন