বাংলা নিউজ > ময়দান > শেষ ওভারে উত্তেজক জয়, মণীশ-রোহনের জোড়া হাফ-সেঞ্চুরিতে মুস্তাক আলির ফাইনালে কর্নাটক
মুস্তাক আলির ফাইনালে মণীশরা। ছবি- বিসিসিআই।
মুস্তাক আলির ফাইনালে মণীশরা। ছবি- বিসিসিআই।

শেষ ওভারে উত্তেজক জয়, মণীশ-রোহনের জোড়া হাফ-সেঞ্চুরিতে মুস্তাক আলির ফাইনালে কর্নাটক

  • ব্যর্থ হয় দর্শনের দুরন্ত হ্যাটট্রিক।

ব্যর্থ হল দর্শন নালকাণ্ডের হ্যাটট্রিক-সহ চার উইকেটের অনবদ্য বোলিং। উত্তেজক ম্যাচে বিদর্ভকে হারিয়ে চলতি সৈয়দ মুস্তাক আলি ট্রফির ফাইনালে উঠল মণীশ পান্ডের কর্নাটক। ব্যাট হাতে অধিনায়কোচিত হাফ-সেঞ্চুরি করে কর্নাটককে জয়ের মঞ্চে বসিয়ে দেন মণীশ। অনবদ্য হাফ-সেঞ্চুরি করেন কর্নাটক ওপেনার রোহন কদমও।

দিল্লিতে টস হেরে শুরুতে ব্যাট করতে নামে কর্নাটক। নির্ধারিত ২০ ওভারে তারা ৭ উইকেটের বিনিময়ে ১৭৬ রান তোলে। রোহন ৭টি চার ও ৪টি ছক্কার সাহায্যে ৫৬ বলে ৮৭ রান করেন। মণীশ ২টি চার ও ৩টি ছক্কার সাহায্যে ৪২ বলে ৫৪ রান করেন। ১৩ বলে ২৭ রানের যোগদান রাখেন অভিনব মনোহর। করুণ নায়ার ৫ রান করে আউট হন।

দর্শন নালকাণ্ডে ২৮ রানের বিনিময়ে ৪টি উইকেট নেন। তিনি শেষ ওভারে হ্যাটট্রিক-সহ পরপর চার বলে চারটি উইকেট নেওয়ার কৃতিত্ব অর্জন করেন। এছাড়া ২টি উইকেট নিয়েছেন ললিত যাদব। ১টি উইকেট যশ ঠাকুরের।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে বির্দভ শেষ ওভার পর্যন্ত লড়াই চালায়। শেষ ২ ওভারে জয়ের জন্য ২৭ রান দরকার ছিল বিদর্ভের। শেষ ওভারে ১৪ রান করলেই ফাইনালের টিকিট হাতে আসত। তবে শেষ ওভারে বিদর্ভ ৯ রানের বেশি সংগ্রহ করতে পারেনি। ২০ ওভারে ৬ উইকেটের বিনিময়ে ১৭২ রানে আটকে যায় তারা। ফলে ৪ রানের সংক্ষিপ্ত ব্যবধানে হার মানতে হয় বিদর্ভকে।

অথর্ব ৩২, গণেশ সতীশ ৩১, শুভম দুবে ২৪, অপূর্ব ওয়াংখেড়ে অপরাজিত ২৭ ও অক্ষয় কারনেওয়ার ২২ রান করেন। ২টি উইকেট নেন কারিয়াপ্পা। ১টি করে উইকেট নিয়েছেন এমবি দর্শন, বিদ্যাধর পাতিল, জগদীশ সূচিত ও করুণ নায়ার। ফাইনালে তামিলনাড়ুর মুখোমুখি হবেন মণীশরা। এই নিয়ে শেষ চার বছরে তৃতীয়বার মুস্তাক আলির খেতাবি লড়াইয়ে জায়গা করে নেয় কর্নাটক। ২০১৯-২০ মরশুমের ফাইনালে তামিলনাড়ুকে হারিয়েই চ্যাম্পিয়ন হয় তারা।

বন্ধ করুন