বাংলা নিউজ > ময়দান > T20I তে এক বছরে দু'বার ২০০+ রান করেও ম্যাচ হারার লজ্জার নজির গড়ল টিম ইন্ডিয়া
ম্যাচ হারার পরে রোহিত অ্যান্ড কোম্পানি (ছবি-এপি)

T20I তে এক বছরে দু'বার ২০০+ রান করেও ম্যাচ হারার লজ্জার নজির গড়ল টিম ইন্ডিয়া

  • আন্তর্জাতিক টি-২০ ক্রিকেটে এমন নজির বিরল বলা চলে। আর সেই লজ্জার নজির এদিন মোহালিতে গড়ে ফেলল ভারতীয় দল। নিজেদের দেশের মাটিতে এক বছরে একবার নয় দু-দুবার ২০০+ রান করেও হারার লজ্জার নজির গড়ল ভারত।

শুভব্রত মুখার্জি: টি-২০ ক্রিকেট নিঃসন্দেহে আক্রমণাত্মক খেলা। যেখানে দর্শকদের মনোরঞ্জন করে থাকেন মূলত ব্যাটাররা। এই ফর্ম্যাটের ২২ গজ তৈরিই করা হয় কার্যত ব্যাটারদের কথা মাথায় রেখে। তা সত্ত্বেও এক ক্যালেন্ডার বর্ষে ঘরের মাটিতেই ২০০+ রান করেও দু'বার ম্যাচ হারা সত্যিই লজ্জার। আন্তর্জাতিক টি-২০ ক্রিকেটে এমন নজির বিরল বলা চলে। আর সেই লজ্জার নজির এদিন মোহালিতে গড়ে ফেলল ভারতীয় দল। নিজেদের দেশের মাটিতে এক বছরে একবার নয় দু-দুবার ২০০+ রান করেও হারার লজ্জার নজির গড়ল ভারত।

আরও পড়ুন… IND vs AUS: গুহায় ঢুকে সিংহ শিকার, টানা চার ম্যাচ জিতে ভারতের মাথা নত করল অস্ট্রেলিয়া

প্রসঙ্গত এই বছরেই এই ঘটনা ঘটেছে ভারতীয় দলের সঙ্গে। দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে দিল্লিতে তারা ২০০+ রান করেও হেরে গিয়েছিল ম্যাচ। আর এবার মোহালিতেও অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ২০০+ রান করেও ম্যাচ হেরে গেল তারা। কাকাতলীয়ভাবে দুটি ঘটনাই ঘটেছে টি-২০ সিরিজের প্রথম ম্যাচে। এদিন টসে জিতে ফিল্ডিং নিয়েছিল অ্যারন ফিঞ্চের নেতৃত্বাধীন অস্ট্রেলিয়া দল। ব্যাট করতে নেমে ভারতের শুরুটাও ভালো হয়নি। অল্প রানের মধ্যেই তাদের দুই তারকা ব্যাটার কোহলি এবং রোহিত প্যাভিলিয়নে ফিরে যান। ৩৫ রানে ২ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে গিয়েছিল টিম ইন্ডিয়া।

আরও পড়ুন… PAK vs ENG 1st T20: একা লড়ে ম্যাচ জেতানো যায় না, বুঝে গেলেন রিজওয়ান, ভারতের হারের দিনেই বিধ্বস্ত হল পাকিস্তান

সেখান থেকেই সূর্যকুমারকে সঙ্গী করে কেএল রাহুল ভারতের ইনিংসকে শক্ত হাতে ধরেন। রাহুল ৫৫ এবং সূর্য ৪৬ রান করেন। এরপর ব্যাট করতে নেমে ব্যাট হাতে তান্ডব চালান হার্দিক পান্ডিয়া। ৩০ বলে ৭১ রানের একটি অনবদ্য অপরাজিত ইনিংস খেলেন। ২৩৬ স্ট্রাইক রেটে একটি অনবদ্য ইনিংস খেলেন তিনি। মূলত এই তিন ব্যাটারের ইনিংসে ভর করেই ভারতীয় দল ২০ ওভারে ৬ উইকেটে ২০৮ রান তোলে। নাথান এলিস সর্বোচ্চ তিনটি উইকেট নেন।

রান তাড়া করতে নেমে ক্যামেরন গ্রিন এবং অ্যারন ফিঞ্চ আক্রমণাত্মক শুরু করেন। ফিঞ্চ ২২ রান আউট হয়ে গেলেও ৩০ বলে ৬১ রানের একটি দুর্দান্ত ইনিংস খেলেন ক্যামেরন গ্রিন। তাঁকে যোগ্য সঙ্গত দিয়ে স্টিভ স্মিথ ২৪ বলে করেন ৩৫ রান। অজিদের হয়ে শেষ দিকে মারকাটারি একটি ইনিংস খেলে অনবদ্য জয় নিশ্চিত করেন ম্যাথু ওয়েড। ২১ বলে ৪৫ রান করে অপরাজিত থাকেন তিনি। ভারতের হয়ে এ দিন বল হাতে অনবদ্য বোলিং করেন অক্ষর প্যাটেল। ৪ ওভারে ১৭ রান দিয়ে নেন ৩ উইকেট। প্রত্যাবর্তনে ঘটানো উমেশ যাদব ২৭ রান দিয়ে নেন দুটি উইকেট। তবে এদিন ভুবনেশ্বর কুমার একেবারেই ছন্দে ছিলেন না। ভারতের প্রিমিয়র বোলার ৪ ওভারে ৫২ রান দেওয়ার পাশাপাশি কোন উইকেট পাননি। বোলারদের ব্যর্থতার কারণেই বড় রান করেও হারতে হয় ভারতকে।

বন্ধ করুন