বাংলা নিউজ > ময়দান > ভারতীয় ম্যানেজমেন্টের নির্দেশ অমান্য করে ইংল্যান্ড ম্যাচে পিচ তৈরি! BCCI-কে তদন্তের ডাক
তৎকালীন ভারতীয় কোচ রবি শাস্ত্রী, বোলিং কোচ ভরত অরুণ ও ফিল্ডিং কোচ আর শ্রীধর। (ছবি:গেটি ইমেজ)

ভারতীয় ম্যানেজমেন্টের নির্দেশ অমান্য করে ইংল্যান্ড ম্যাচে পিচ তৈরি! BCCI-কে তদন্তের ডাক

  • গত বছর ৫ ফেব্রুয়ারি থেকে খেলা ওই ম্যাচে ভারতীয় দল ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে পরাস্ত হয়েছিল।

ঘরের মাঠে ভারতীয় দলের সঙ্গে সাম্প্রতিক অতীতে কোনো দলই টেস্টে অন্তত টেক্কা দিতে পারেনি। দুই বছরে একমাত্র চেন্নাইয়ের মাঠে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে হারতে হয়েছিল ভারতীয় দলকে। এবার সেই ম্যাচের পিচ নিয়ে তৈরি হয়েছে বিতর্ক, এমনকী পিচ প্রস্তুতকারকের বিরুদ্ধে বিসিসিআইকে তদন্ত করারও ডাক দেওয়া হয়েছে।

Times of India-র তরফে সাম্প্রতিক এক রিপোর্টে দাবি করা হয়েছে ৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ সালে খেলা ওই টেস্টে টিম ইন্ডিয়ার তৎকালীন কোচ রবি শাস্ত্রী এবং বোলিং কোচ ভরত অরুণের নির্দেশের বিরুদ্ধে গিয়ে পিচ তৈরি করেন প্রস্তুতকারক। এই বিষয়ে অবগত এক সূত্র জানান, ‘ম্যাচের আগের দিন ৪ ফেব্রুয়ারি, সন্ধ্যাবেলায় রবি শাস্ত্রী এবং ভরত অরুণ চিপকে উপস্থিত ছিলেন। কোচ ও বোলিং কোচ স্পষ্টভাবে পিচ প্রস্তুতকারক ও মাঠের কর্মীদের নির্দেশ দেন, যে পিচ যেমন আছে একেবারে তেমনই থাকবে। পিচে জল দেওয়া বা রোল করার কোনো দরকার নেই। এটা স্পষ্টভাবে জানিয়েই তাঁরা দলের সঙ্গে মাঠ ছাড়েন।’

তবে এরপরেই হঠাৎ করে এক ফোন পেয়ে পিচ বদলে ফেলেন সেই প্রস্তুতকারক। ‘ও (পিচ প্রস্তুতকারক) পিচে জল দিয়ে দেয় এবং রোলও করে। ফলত পরের দিন সকালে পিচ একেবারে পাটা হয়ে যায়।’ প্রধান পিচ প্রস্তুতকারকের নির্দেশ পেয়ে বাকিদের তাঁর কথা মান্য করা ছাড়া কোনো উপায় ছিল না। জবাবে ওই পিচ প্রস্তুতকারক জানান উপর থেকে কোনো এক আধিকারিক তাঁকে এমনটা করতে বলেন। পরিণামে পরের দিন টসে জিতে জো রুটের ২১৮ রানে ভর করে ইংল্যান্ড প্রথম ইনিংসে ৫৭৮ রান তোলে এবং ভারতীয় দল ম্যাচ হেরে যায়।

এই সম্পর্কে অবগত এক সূত্র জানান, ‘ম্যানেজমেন্টের কথা না শোনায় রবি এবং অরুণ পিচ প্রস্তুতকারকের ওপর একেবারে খেপে যান। এটাই ইচ্ছা করে করা হয়েছিল এবং স্পষ্টভাবেই পিচ প্রস্তুতকারক এক ফোন পেয়েই এমনটা করেছিলেন। পিচ প্রস্তুতকারককে তো প্রশ্ন করাই উচিত কেন তিনি ম্যানেজমেন্টের ইচ্ছার বিরুদ্ধে গিয়ে এমনটা করলেন। এটা বিশাল বড় অপরাধ।’ এরপরেই টিম ম্যানেজমেন্ট লিখিতভাবে ওই পিচ প্রস্তুতকারককে সরিয়ে দেওয়ার অনুরোধ জানিয়ে বিসিসিআইকে চিঠি লেখে। বিসিসিআই তাঁকে বদলে ফেলে। 

পরের ম্যাচগুলিতে ইংল্যান্ডকে উড়িয়ে দিয়ে ভারত সিরিজ জেতে। তবে কে ওই পিচ প্রস্তুতকারককে ফোন করেছিলেন, তার বিষয়ে জানতেই তদন্তের দাবি উঠেছে। যদি বিসিসিআই সেই তদন্তে রাজি হয়, তাহলে তৎকালীন ভারতীয় দলের ম্যানেজমেন্টের সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিরা তদন্তের স্বার্থে এগিয়ে আসতে ইচ্ছুক বলেই মনে করা হচ্ছে। এই দাবি যদি সত্যি হয়, তাহলে মূলত তিনটি অভিযোগ উঠবে-১) ভারতীয় দলের স্বার্থের ক্ষতি করা, ২) ম্যানেজমেন্টের নির্দেশের অবমাননা করা এবং ৩) খেলার মধ্যে বহিরাগত ব্যক্তিত্বের হস্তক্ষেপ। এখন বিসিসিআই কী করে, সেটাই দেখার।

বন্ধ করুন