বাংলা নিউজ > ময়দান > গিলের চোট এবং তাঁর পরিবর্ত নিয়ে বিসিসিআই-এর গা ছাড়া মনোভাবে ক্ষুব্ধ ভারতীয় দল
চিন্তায় রয়েছেন বিরাট কোহলিরা।
চিন্তায় রয়েছেন বিরাট কোহলিরা।

গিলের চোট এবং তাঁর পরিবর্ত নিয়ে বিসিসিআই-এর গা ছাড়া মনোভাবে ক্ষুব্ধ ভারতীয় দল

  • শুভমন গিলের চোটের পর ভারতীয় দলের তরফে বিসিসিআই-কে চিঠি পাঠানো হলেও, নির্বাচকমণ্ডলীর চেয়ারম্যান চেতন শর্মা এখন কোনও রকম যোগযোগই করেননি। বিসিসিআই-এর তরফেও কোনও রকম সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়নি বা কোনও ইঙ্গতিও দেওয়া হয়নি।

শুভমন গিলের চোটের ঘটনা বিস্তারিত ভাবে জানিয়ে এবং পরিবর্ত চেয়ে বিসিসিআই-কে চিঠি লিখেছিলেন ভারতীয় টিমের ম্যানেজার গিরীশ ডোঙ্গরে। তিনি চিঠিটি বিসিসিআউ-কে মেল মারফত ২৮ জুন পাঠিয়েছিলেন। কিন্তু এক সপ্তাহ কেটে যাওয়ার পরেও বিসিসিআই-এর তরফে কোনও হেলদোল দেখানো হয়নি। আর এতেই চটেছে ভারতীয় দল।

ভারতীয় দল সূত্রের খবর, শুভমন গিলের চোটের পর চিঠি পাঠানো হলেও, নির্বাচকমণ্ডলীর চেয়ারম্যান চেতন শর্মা এখন কোনও রকম যোগযোগই করেননি। বিসিসিআই-এর তরফে কোনও রকম সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়নি বা কোনও ইঙ্গতিও দেওয়া হয়নি। জানা গিয়েছে, ভারতীয় দল দু'টি কারণে পরিবর্ত প্লেয়ার চাইছেন। প্রথমত শুভমন গিলের চোট রয়েছে। সেই জায়গাটা খালি আছে। আর দ্বিতীয়ত আবার যদি হঠাৎ করে কোনও প্লেয়ারের চোট আঘাত হয়, তার জন্যে আগে থেকে পরিবর্ত ব্যবস্থা করে রাখতে চাইছে ভারতীয় দল। কিন্তু বিসিসিআই এই সম্পর্কে এখনও কোনও কিছুই জানায়নি ভারতীয় টিম ম্যানেজমেন্টকে। ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে পাঁচ ম্যাচের গুরুত্বপূর্ণ টেস্ট সিরিজের আগে যা ভারতকে চিন্তায় রেখেছে।

ভারতীয় দলের এক সূত্রের দাবি, ‘বিসিসিআই যদি কাউকে পাঠাতে না চায়, সেটাও পরিষ্কার করে জানিয়ে দিক। তা হলেই তো বিষয়টা শেষ হয়ে যায়।’ কপিল দেবের মতো অনেক প্রাক্তন ক্রিকেটারই, ভারতের টিম ম্যানেজমেন্টের পরিবর্ত হিসেবে প্লেয়ার চাইবার বিষয়টি নিয়ে ব্যাপক নিন্দে করেছেন। তবে সূত্রের দাবি, অতিরিক্ত প্লেয়ারকে দলের সঙ্গে রাখতে কোনও ক্ষতি নেই। কারণ প্রস্তুতির জন্য এখনও পর্যাপ্ত সময় হাতে রয়েছে।

ভারতীয় দলের সেই সূত্রের বক্তব্য, ‘ইংল্যান্ডের জন্য বোর্ড মাত্র ২৪ জন ক্রিকেটারকে পাঠিয়েছে। তার মধ্যে ৪ জন স্ট্যান্ডবাই। অভিমন্যু ঈশ্বরণ প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে সত্যিই খুব ভাল করেছে। তা বলে জোফ্রা আর্চার, জেমস অ্যান্ডারসন, স্টুয়ার্ড ব্রডদের বিরুদ্ধে অভিষেক ম্যাচেই ওকে নামিয়ে দেওয়ার কি কোনও যৌক্তিকতা রয়েছে? কেএল রাহুলকেও ওপেনার হিসেবে নামানো হবে না। ওকে মিডল অর্ডারে খেলানো হবে। যে কারণে গিলের চোটের জন্য একজন পরিবর্ত প্রয়োজন। আর এই সময়ে একজনকে উড়িয়ে নিয়ে আসাটা তো ক্ষতির কিছু নয়।’

বন্ধ করুন