বাংলা নিউজ > ময়দান > ৪১ বছর আগের রেকর্ড স্পর্শ করলেন টেস্টের এক নম্বর ব্যাটার রুট এবং বোলার কামিন্স
জো রুট এবং প্যাট কামিন্স।

৪১ বছর আগের রেকর্ড স্পর্শ করলেন টেস্টের এক নম্বর ব্যাটার রুট এবং বোলার কামিন্স

  • অ্যাসেজের প্রথম টেস্টের প্রথম দিনে জো রুট বনাম প্যাট কামিন্সের লড়াইয়ে অনেকটাই এগিয়ে গিয়েছেন অজি অধিনায়ক। রুটের ইংল্যান্ডকে প্রথম ইনিংসে একেবারে কোণঠাসা করে দিয়েছে অস্ট্রেলিয়া।

এ বার অ্যাসেজে মুখোমুখি হয়েছেন আইসিসি টেস্ট র‌্যাঙ্কিং-এর এক নম্বর ব্যাটসম্যান জো রুট এবং এক নম্বর বোলার প্যাট কামিন্স। দু' জনেই আবার দুই দলের অধিনায়ক। দুই বিভাগে শীর্ষে থাকা দুই ক্রিকেটারের চ্যালেঞ্জটাও তাই একটু বেশিই। এ রকমটা ঘটেছিল ৪১ বছর আগেও।

১৯৮০ সালে লিডস টেস্টে ভিভ রিচার্ডস এবং ইয়ান বথামও এমনই এক নজির গড়েছিলেন। সেই সময়ে আইসিসি টেস্ট র‌্যাঙ্কিং-এ এক নম্বর ক্রিকেটার ছিলেন ভিভ। আর ইয়ান বথাম ছিলেন এক নম্বর বোলার। ওয়েস্ট ইন্ডিজের অধিনায়ক ছিলেন ভিভ। আর ইংল্যান্ডের অধিনায়ক ছিলেন ইয়ান বথাম।

অ্যাশেজের প্রথম টেস্টের প্রথম দিনে জো রুট বনাম প্যাট কামিন্সের লড়াইয়ে অনেকটাই এগিয়ে গিয়েছেন অজি অধিনায়ক। রুটের ইংল্যান্ডকে প্রথম ইনিংসে একেবারে কোণঠাসা করে দিয়েছে অস্ট্রেলিয়া।

ব্রিটিশ অধিনায়ক জো রুট টসে জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন। কিন্তু শুরু থেকেই অজিদের আগুনে বোলিংয়ের সামনে মুখ থুবড়ে পড়ে ইংল্যান্ড। কথায় আছে, ‘মর্নিং শোজ দ্য ডে’। ইংল্যান্ডের ক্ষেত্রেও ব্যাপারটা অনেকটা এ রকমই ছিল। ম্যাচের একেবারে প্রথম বলে মিচেল স্টার্কের লেগ স্ট্যাম্পের বল সম্পূর্ণ মিস করে রোারি বার্নস আউট হন। অজি পেস ত্রয়ীর দাপটে মধ্যাহ্নভোজের আগেই ৫৯ রানে চার উইকেট হারিয়ে ফেলে ইংল্যান্ড। অধিনায়ক রুট ফেরেন শূন্য রানে, প্রত্যাবর্তন ম্যাচে স্টোকসকেও ফিরতে হয় পাঁচ রান করে।

এক দিকে ওপেনার হাসিব হামিদ (২৫) কিছুটা লড়াই করলেও দ্বিতীয় সেশনের প্রথম বলেই তাঁকে সাজঘরে পাঠান কামিন্স। এর পর ব্যাট করতে নামেন জস বাটলার। প্রতি আক্রমণের পথ বেছে নেন তিনি। অলি পোপের সঙ্গে ষষ্ঠ উইকেটে ৫২ রানের পার্টনারশিপও করেন। তবে ঠিক যখন মনে হচ্ছিল, বাটলারেরে আগ্রাসী মনোভাব ইংল্যান্ডকে নিরাপদ স্কোরের দিকে নিয়ে যাচ্ছে, তখনই তাঁকে ফেরান স্টার্ক। ৩৯ রানে আউট হন বাটলার।

এর পর গোটাটাই কামিন্স ‘কার্নেজ’। সেট পোপ (৩৫) সমেত ইংল্যান্ডের বাকি চার উইকেটই যায় নতুন অজি অধিনায়কের ঝুলিতে। ক্রিস ওকস (২১) কিছুটা লড়াই চালালেও ১৪৭ রানে শেষ হয় ইংল্যান্ড ইনিংস। কামিন্স সর্বাধিক পাঁচ উইকেট নেন এবং জোস হ্যাজেলউড ও স্টার্ক দু'টি করে উইকেট নেওয়ার পাশপাশি তরুণ ক্যামরন গ্রিনও নিজের প্রথম টেস্ট উইকেট পান।

বন্ধ করুন