বাংলা নিউজ > ময়দান > বাংলা অভিমন্যুর জন্য সরব হলেন প্রাক্তন এই অলরাউন্ডার
টিম ইন্ডিয়া।
টিম ইন্ডিয়া।

বাংলা অভিমন্যুর জন্য সরব হলেন প্রাক্তন এই অলরাউন্ডার

  • কেএল রাহুলকে ওপেনার হিসেবে নয়, মিডল অর্ডারে চাইছে ভারতীয় টিম ম্যানেজমেন্ট। আর অভিমন্যু ঈশ্বরণের উপর তারা ভরসা রাখতে পারছে না। এমনকী ময়াঙ্ক আগরয়ালকেও সে ভাবে গুরুত্ব দিচ্ছে না।

স্ট্যান্ড বাই তালিকায় থাকলেও বাংলার অভিমন্যু ঈশ্বরণকে খুব একটা পাত্তাই দিচ্ছেন না বিরাট কোহলি বা রবি শাস্ত্রী। এবং তাঁদের পরিষ্কার বক্তব্য, ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে অভিমন্যু ঈশ্বরণের অভিষেক কোনও ভাবেই সম্ভব নয়। মোদ্দা কথা, বিরাটরা অভিমন্যুকে দলে সুযোগ দিতে নারাজ। যে কারণে তাঁরা বিসিসিআই-এর কাছে ওপেনার চেয়ে চিঠিও দিয়েছিলেন। আর এ বার বাংলার অভিমন্যুর হয়ে সরব হলেন ভারতের প্রাক্তন অলরাউন্ডার রিতিন্দর সোধি।

চোটের কারণে ছিটকে গিয়েছেন শুভমন গিল। তাঁর পরিবর্তে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে টেস্ট সিরিজে রোহিত শর্মার সঙ্গে কে ওপেন করবেন? এই নিয়ে নানা জল্পনা চলছে।  ময়াঙ্ক আগরওয়াল, কেএল রাহুল, অভিমন্যু ঈশ্বরণ রয়েছেন ওপেন করার তালিকায়। তবে কেএল রাহুলকে ওপেনার হিসেবে নয়, মিডল অর্ডারে চাইছে ভারতীয় টিম ম্যানেজমেন্ট। আর অভিমন্যু ঈশ্বরণের উপর তারা ভরসা রাখতে পারছে না। এমনকী ময়াঙ্ক আগরয়ালকেও সে ভাবে গুরুত্ব দিচ্ছে না। যে কারণে পৃথ্বী শ' এবং দেবদূত পাড্ডিকালকে চেয়েছিলেন বিরাট কোহলি, রবি শাস্ত্রীরা। তবে বিরাট-শাস্ত্রীর সেই দাবি খারিজ করে দিয়েছে বিসিসিআই। রিতিন্দর সোধিও মনে করেন, আলাদা করে কোনও ওপেনারকে এই মুহূর্তে ইংল্যান্ডে পাঠানোর কোনও প্রয়োজন নেই।

রিতিন্দর সোধির পরিষ্কার বক্তব্য, ‘চেতন শর্মা এবং বাকি নির্বাচকেরা অসাধারণ টিম নির্বাচন করেছেন। ২০ জনের খুব ভাল টিম ইংল্যান্ডে পাঠানো হয়েছে। এই ২০ জন প্লেয়ার যথেষ্ট। কিছু নেট বোলার রয়েছে। বাকিরা পরিবর্ত হিসেবে দলে জায়গা করে নিতেই পারে। ভারতীয় দলের তরফে আরও ওপেনার কেন চেয়ে পাঠানো হয়েছিল, সেটাই অবাক করার মতো ঘটনা।’

বিসিসিআই-এর মতো তাঁরও বক্তব্য, ‘শুভমন গিলের চোট রয়েছে ঠিকই। কিন্তু ওর পরিবর্ত হিসেবে ময়াঙ্ক আগরওয়াল, কেএল রাহুল এবং অভিমন্যু ঈশ্বরণরা রয়েছে। যারা একটা সুযোগের অপেক্ষায় রয়েছে।’ এরই সঙ্গেই তিনি অভিমন্যু ঈশ্বরণ সম্পর্কে বলেছেন, ‘ও রঞ্জিতে আগুন ঝড়িয়েছে। যোগ্য নেতা হিসেবে বাংলার দায়িত্বও সামলেছে। ওকে গুরুত্ব না দেওয়ার কারণ দেখছি না।’

বন্ধ করুন