বাংলা নিউজ > ময়দান > The Hundred: দেশের হয়ে নজর কাড়তে পারেননি, দ্য হান্ড্রেডে ফিরেই চমকে দিলেন রশিদ খান

The Hundred: দেশের হয়ে নজর কাড়তে পারেননি, দ্য হান্ড্রেডে ফিরেই চমকে দিলেন রশিদ খান

দ্য হান্ড্রেডে দুরন্ত বোলিং রশিদের। ছবি- গেটি।

প্রশ্ন ওঠাই স্বাভাবিক যে, তবে কি ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগের জন্য গুরুত্ব হারাচ্ছে দেশের জার্সি?

ঘরোয়া টি-২০ লিগের বাড়বাড়ন্তের জন্যই কি আন্তর্জাতিক তারকাদের দেশের হয়ে খেলার প্রতি অনীহা তৈরি হচ্ছে ক্রমশ? দেশের জার্সিতে মাঠে নামলে কি আর নিজের সর্বস্ব সঁপে দেওয়ার তাগিদ অনুভব করেন না তারকা ক্রিকেটাররা? নাকি ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেট লিগের কথা ভেবে দেশের হয়ে নিজেদের যথাসম্ভব আড়াল করে খেলতে নামেন প্রথম সারির ক্রিকেটাররা?

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটারদের সাম্প্রতিক প্রবণতা লক্ষ্য করলে এমনটা মনে হওয়াই স্বাভাবিক। বহু তারকা ক্রিকেটারকে দেশের হয়ে মাঠে নামতে দেখা যায় না টি-২০ লিগে খেলে বেড়ানোর জন্যই। কখনও ক্রিকেটাররা নিজেরাই সিদ্ধান্ত নেন দেশের হয়ে মাঠে না নামার। আবার কখনও বা বোর্ড মুখ ফিরিয়ে থাকে টি-২০ লিগ খেলা তারকাদের দিক থেকে।

বেশ কিছুদিন ধরেই শুরু হওয়া এই বিতর্কে ইন্ধন জোগাতে পারে রশিদ খানের সাম্প্রতিক পারফর্ম্যান্স। আফগানিস্তানের হয়ে আয়ারল্যান্ড সফরের পারফর্ম্যান্স এবং তার আগু-পিছু ঘরোয়া লিগের পারফর্ম্যান্স পাশাপাশি রাখলেই বোঝা যাবে তফাৎটা।

আরও পড়ুন:- Asia Cup 2022: মুম্বইয়ে জন্ম, কোহলির ভক্ত, ব্যাটে-বলে হংকংকে জেতালেন ভারতীয় বংশোদ্ভূত ক্রিকেটার

আফগানিস্তানের হয়ে আয়ারল্যান্ড সফরের ৫টি টি-২০ ম্যাচে রশিদ খান সাকুল্যে ৩টি উইকেট নিতে সক্ষম হন। তবে ঠিক তার পরে দ্য হান্ড্রেডের একটি ম্যাচে মাঠে নেমেই তিনি তুলে নেন ৩টি উইকেট। উল্লেখযোগ্য বিষয় দল দেশের হয়ে খেলতে যাওয়ার আগে টি-২০ ব্লাস্টের শেষ ৩টি ম্যাচে ৬টি উইকেট নেন তিনি।

শনিবার দ্য হান্ড্রেডে ট্রেন্ট রকেটসের হয়ে বল হাতে নিয়ে ২৫ রানের বিনিময়ে ৩টি উইকেট পকেটে পোরেন রশিদ। তাঁর দল ৬ উইকেটে পরাজিত করে লন্ডন স্পিরিটকে। প্রথমে ব্যাট করে লন্ডন স্পিরিট ৯৩ বলে ১২২ রানে অল-আউট হয়ে যায়। বেন ম্যাকডারমট ৩০, ইয়ন মর্গ্যান ২৭ ও ড্যানিয়েল বেল-ড্রামন্ড ২৪ রান করেন।

আরও পড়ুন:- Maharaja T20 Trophy: আইপিএলে দাম উঠেছিল ৯.২৫ কোটি, ঘরোয়া T20 ক্রিকেটে তাণ্ডব চালালেন সেই তারকাই

পালটা ব্যাট করতে নেমে ট্রেন্ট ৭৯ বলে ৪ উইকেটের বিনিময়ে ১২৭ রান তুলে ম্যাচ জিতে যায়। কলিন মুনরো ৬৭ রান করে নট-আউট থাকেন। ৩৭ বলের ইনিংসে তিনি ৬টি চার ও ৪টি ছক্কা মারেন। ৩টি ছক্কার সাহায্যে ২৮ বলে ৪১ রান করেন টম কোহলার-ক্যাডমোর। রান পাননি অ্যালেক্স হেলস (৬) ও ডেভিড মালান (০)। ২১ বল বাকি থাকতে ৬ উইকেটে ম্যাচ জেতে ট্রেন্ট রকেটস। ম্যাচের সেরা ক্রিকেটার নির্বাচিত হন কলিন মুনরো। ব্যাট হাতে ম্যাচ জেতানো ইনিংস খেলার পাশাপাশি ২টি ক্যাচও ধরেছেন তিনি।

বন্ধ করুন