বাংলা নিউজ > ময়দান > দ্রাবিড় কোচ হতে চাইলে শাস্ত্রীর সঙ্গে জমবে লড়াই, ইঙ্গিত আকাশ চোপড়ার
শিখর ধাওয়ানের সঙ্গে রাহুল দ্রাবিড়।
শিখর ধাওয়ানের সঙ্গে রাহুল দ্রাবিড়।

দ্রাবিড় কোচ হতে চাইলে শাস্ত্রীর সঙ্গে জমবে লড়াই, ইঙ্গিত আকাশ চোপড়ার

  • কোচ হিসেবে রবি শাস্ত্রীর গ্রাফটা যে খুব খারাপ, তা নয়। তবে বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে ভারতের বিশ্রি হারের পর থেকে তাঁকে নিয়েও জল্পনা শুরু হয়েছে। যা শোনা যাচ্ছে, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ভারতের পারফরম্যান্সের উপরেই রবি শাস্ত্রীর ভবিষ্যৎ নির্ভর করছে।

শ্রীলঙ্কা সফরের জন্য রাহুল দ্রাবিড়কে কোচ হিসেবে বেছে নেওয়া হয়েছিল। তার পর থেকেই জল্পনা শুরু হয়েছে, বিরাট কোহলিদের হেড কোচ রবি শাস্ত্রীর পরিবর্ত হিসেবে কি দ্রাবিড়কেই ভাবছে বিসিসিআই? এই জল্পনা আরও বেড়েছে, এক ম্যাচ বাকি থাকতেই শিখর ধাওয়ানরা একদিনের সিরিজে শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে দেওয়ার পর থেকে। ভারতের প্রাক্তন ব্যাটসম্যান আকাশ চোপড়া আবার মনে করেন, রাহুল দ্রাবিড় যদি বিরাট কোহলিদের কোচ হতে চান, তবে রবি শাস্ত্রীর সঙ্গে তাঁর লড়াইটা কিন্তু বেশ কঠিন হবে।

কোচ হিসেবে রবি শাস্ত্রীর গ্রাফটা যে খুব খারাপ, তা নয়। তবে বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে ভারতের বিশ্রি হারের পর থেকে তাঁকে নিয়েও জল্পনা শুরু হয়েছে। যা শোনা যাচ্ছে, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ভারতের পারফরম্যান্সের উপরেই রবি শাস্ত্রীর ভবিষ্যৎ নির্ভর করছে। তার আগে অবশ্য ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে পাঁচ ম্যাচের টেস্ট সিরিজও রয়েছে। সেই সিরিজের ফলও দেখা হবে। 

আকাশ চোপড়া বলেছেন, ‘আমার মনে হয় না, রাহুল দ্রাবিড় নিজে তার নাম কোচ হওয়ার তালিকায় রাখবে। তবে রাহুল যদি ভারতীয় দলের কোচ হওয়ার ইচ্ছে প্রকাশ করে, তবে তার সামনে একজনই প্রতিযোগী (রবি শাস্ত্রী) থাকবে। যদি ও চায়, তা হলে কঠিন লড়াইও হবে।’ এরই সঙ্গে আকাশ চোপড়া যোগ করেছেন, ‘যদি দ্রাবিড় তাঁর নাম এই তালিকায় না রাখে, সে ক্ষেত্রে অন্য কেউ শাস্ত্রীর সামনে দাঁড়াতেই পারবে না। এটা আমার বিশ্বাস।’

আকাশ চোপড়া মনে করেন, রবি শাস্ত্রীকেই কোচের দায়িত্বে বহাল রাখবে বিসিসিআই। তাঁর দাবি, ‘আমার মনে হয় না, কোনও পরিবর্তন হবে। রবি শাস্ত্রী হয়তো কোচ হিসেবে থাকবেন। হয়তো নিয়ম মেনে, আবেদনপত্র জমা দিতে বলা হবে। সত্যি কথা বলতে, আমি অন্তত কোনও পরিবর্তন হওয়ার সম্ভাবনা দেখছি না।’ এর সঙ্গেই তিনি যোগ করেছেন, ‘(এই বছর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ রয়েছে) এক বছরের মধ্যে আরও একটি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ রয়েছে। তার পরের বছর (২০২৩-এ) পঞ্চাশ ওভারের বিশ্বকাপ রয়েছে। ভারত বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে উঠেছিল। এবং টিম যেখান ভাল পারফরম্যান্স করছে, সেখানে পরিবর্তনের দরকার কী!’

বন্ধ করুন