বাংলা নিউজ > ময়দান > উলঙ্গ করে মার ও নির্যাতন, অপহরণের লোমহর্ষক কাহিনি শোনালেন ম্যাকগিল
লোমহর্ষক কাহিনি শোনালেন ম্যাকগিল। ছবি: টুইটার

উলঙ্গ করে মার ও নির্যাতন, অপহরণের লোমহর্ষক কাহিনি শোনালেন ম্যাকগিল

  • গত বছর ১৪ এপ্রিল ঘটনাটি ঘটেছিল। ঘটনার সঙ্গে যুক্ত থাকার কারণে গ্রেফতার হয়েছিল চারজন। যার মধ্যে একজন আবার তার জীবনসঙ্গীনীর ভাই। পরের বছর অক্টোবরের আগে কেসটি আদালতে উঠবে না ফলে কিছুটা সেই দিনের ঘটনা খোলসা করলেও পুরোটা করেননি 'সেন ডব্লুএ ব্রেকফাস্টকে' দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে।

শুভব্রত মুখার্জি: বিশেষজ্ঞদের অনেকেই বলেন অস্ট্রেলিয়ার সিনিয়র দলে সেই সময় শেন ওয়ার্ন নামক লেগ স্পিনারের উপস্থিতি না থাকলে আজ ক্রিকেট ইতিহাসে অন্য উচ্চতায় থাকতে পারতেন স্টুয়ার্ট ম্যাকগিল। বিশ্বের যে কোনও পিচে কার্যত একহাত করে বল ঘোরানোর ক্ষমতা রাখেন এই লেগ স্পিনার। বেশ কয়েক বছর হয়ে গিয়েছে তিনি ক্রিকেট থেকে অবসর নিয়েছেন। তবে আজ থেকে ১৫ মাস আগে হঠাৎ করেই তার জীবনে ঘনিয়ে এসেছিল অন্ধকার। কিছু বুঝে উঠতে পারার আগেই তাকে কার্যত ফিল্মি কায়দায় অপহরণ করা হয়। এরপর তার উপর যে অকথ্য অত্যাচার চালানো হয়েছে, উলঙ্গ করে মারধর করা হয়েছে সেই ঘটনার লোমহর্ষক কাহিনি শোনালেন ম্যাকগিল

হঠাৎ করেই তাকে অপহরণ করা হয়। তারপর অকথ্য অত্যাচারের শিকার হন তিনি। অত্যাচার শেষে তাকে সিডনির রাস্তাতে কার্যত ছুঁড়ে ফেলে দিয়ে যাওয়া হয়। গত বছর ১৪ এপ্রিল ঘটনাটি ঘটেছিল। ঘটনার সঙ্গে যুক্ত থাকার কারণে গ্রেফতার হয়েছিল চারজন। যার মধ্যে একজন আবার তার জীবনসঙ্গীনীর ভাই। পরের বছর অক্টোবরের আগে কেসটি আদালতে উঠবে না ফলে কিছুটা সেই দিনের ঘটনা খোলসা করলেও পুরোটা করেননি 'সেন ডব্লুএ ব্রেকফাস্টকে' দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে।

ম্যাকগিল বলেন 'তোমার খারাপতম শত্রুর ক্ষেত্রেও এমনটা হোক কেউ চাইবে না। সেইদিন অন্ধকার হয়ে আসছিল। আমাকে ধরে বেঁধে একটা গাড়িতে তোলা হয়। আমি ওদেরকে দু'বার বলেছিলাম গাড়িতে উঠব না। আমার কিছু করার ছিল না কারণ ওরা সশস্ত্র ছিল। ওরা আমাকে বলে তুমি জড়িত না জানি। তবে তোমার সঙ্গে আমাদের কথা আছে। আমি সেই গাড়িতে প্রায় দেড় ঘণ্টা ছিলাম। জানতাম না কোথায় আছি বা কোথায় যাচ্ছি। আমাকে হঠাৎ করেই ওরা উলঙ্গ করে দেয়। প্রচণ্ড মারধর শুরু করে। প্রাণে মারার ভয় দেখায়। তারপর হঠাৎ করেই আমাকে একটা জায়গায় ছুড়ে ফেলে দিয়ে চলে যায়। প্রায় ঘণ্টা তিনেক এই অকথ্য নির্যাতন চালানোর পর ওরা আমাকে ফেলে দেয়।'

তিনি আরও যোগ করেন 'আমি ভীত ছিলাম। কি হবে জানতাম না। ওরা আমাকে বেলমোরে ফেলে দিয়ে পালায়। সত্যি বলছি আমি সেইসময় বুঝতে পারিনি কোথায় রয়েছি। তারপর আমি নিরাপত্তার অভাবে কার্যত একমাস পালিয়ে বেরিয়েছি। কয়েকজন বন্ধু আমাকে সিডনিতে তাদের হোটেলে ২-৩ সপ্তাহ থাকতে দিয়েছিল। মারিয়া আমাকে গাড়ির পিছনে নিয়ে নিয়ে ঘুরত। একটা সময় ফ্রেসার আইল্যান্ডেও আমি গিয়েছিলাম। প্রায় সপ্তাহ ছয়েক বাড়ির বাইরে ছিলাম। বাড়ি যখন ফিরে ততক্ষণে অপহরণকারীদের পুলিশ গ্রেফতার করেছে।'

বন্ধ করুন