বাংলা নিউজ > ময়দান > ১২ রান করে চাই, ছেলেরা করছে সাত! জিম্বাবোয়ের কাছে হেরে ক্ষুব্ধ বাংলাদেশের টিম ডিরেক্টর
বাংলাদেশের হারে অবাক প্রাক্তনরা (ছবি-এএফপি) (AFP)

১২ রান করে চাই, ছেলেরা করছে সাত! জিম্বাবোয়ের কাছে হেরে ক্ষুব্ধ বাংলাদেশের টিম ডিরেক্টর

  • জিম্বাবোয়ের বিরুদ্ধে প্রথমবার টি-টোয়েন্টি সিরিজ হেরেছে বাংলাদেশ। সেই হারের সব দায় ক্রিকেটারদেরই দিলেন জাতীয় দলের টিম ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ। বাংলাদেশের প্রাক্তন এই অধিনায়ক বর্তমান ক্রিকেটারদের উপর বেজায় চটলেন।

জিম্বাবোয়ের বিরুদ্ধে প্রথমবার টি-টোয়েন্টি সিরিজ হেরেছে বাংলাদেশ। সেই হারের সব দায় ক্রিকেটারদেরই দিলেন জাতীয় দলের টিম ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ। বাংলাদেশের প্রাক্তন এই অধিনায়ক বর্তমান ক্রিকেটারদের উপর বেজায় চটলেন। সিরিজে পরাজিত হয়ে সংবাদ মাধ‍্যমের মুখোমুখি হয়ে মাহমুদ বলেন, এই হারে তিনি ভীষণ হতাশ হয়েছেন। তিন ম‍্যাচের এই সিরিজ ২-১ ব‍্যবধানে হেরেছে বাংলাদেশ।

ম্যাচ শেষে খালেদ মাহমুদ বলেন, ‘আমরা জানি যে, ওভারে আমাদের ১০-১২ রান করে লাগবে। কেউ দেখলাম না যে, একটা ছয় মারার চেষ্টা করছে। সবাই ২-১ করে নিচ্ছে। আমি যদি ওইভাবে বলি, একটা স্কোর করে নিজের জায়গাটা ঠিক রাখলাম, এটা কী ধরনের বিষয় হল সেটাআমি ঠিক জানি না।’ আগেই বলা হয়েছিল বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা চার, ছক্কা মারাতে ব্যর্থ হচ্ছেন। এই বিষয়টাই এবার তুলে ধরলেন মাহমুদ।

আরও পড়ুন…Asia Cup 2022: এশিয়া কাপ জেতার শপথ নিলেন রোহিত শর্মা! প্রকাশিত হল ভিডিয়ো

জিম্বাবোয়েতে বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররা যে ভয়ের মধ্যেই ছিলেন সেটাই তুলে ধরে হারের কারণ বললেন খালেদ মাহমুদ। তিনি বলেন, ‘ছেলেদের মধ্যে ভয়ের একটা ব্যাপার কাজ করে। আমি বলব, ভীতি নিয়ে খেললে এই সংস্করণে জেতা খুবই কঠিন। আমার মনে হয়, ব‍্যাটিংয়ে ভয়টা থাকছে, বোলিংয়ে ভয়টা থাকছে। তরুণ দলের যেভাবে ফিল্ডিং করা উচিত, সেটাও হয়নি। প্রতিটি ম্যাচেই ক‍্যাচ মিস হয়েছে, মিস ফিল্ডিং তো হয়েছেই।’

খালেদ মাহমুদ আরও বলেন, ‘আপনি যদি (টি-টোয়েন্টিতে) ১০০ স্ট্রাইক রেটে খেলেন, তাহলে এখানে রান তাড়া করে জিততে পারবেন না। তারা জানে যে তাদের জায়গা নিয়ে এত কাড়াকাড়ি নেই। তাদের ঠিকঠাক সুযোগ দেওয়া হচ্ছে। এমন অবস্থায় তো মন খুলে খেলা উচিত। আমি ওই মন খুলে খেলাটা দেখতে পাচ্ছি না।’

আরও পড়ুন… CWG 2022: ভারোত্তোলনে রেকর্ড ১০টি পদক জিতল ভারত, জানুন কারা আনলেন মেডেল

তবে এই হারের জন্য দলের কোচকে দোষ দেননি বাংলাদেশের প্রাক্তন এই তারকা। তিনি বলেন, ‘কোচরা যতই কোচিং করাক, আমি খুব কাছ থেকে তো দেখি, মাঠে কাজে না লাগাতে পারলে তো লাভ হচ্ছে না। অনুশীলনে ঠিকই ক্যাচ ধরছে, মাঠে চাপের জন্য পারছে না। এই চাপ থেকে ওদেরই বের হয়ে আসতে হবে। ওরা সকল সুযোগ-সুবিধা পাচ্ছে। (এরপরও) তারা না পারলে আমরা বলব, তাদের সক্ষমতা নেই। তারা পেশাদার খেলোয়াড়। এখন তাদেরই বের হয়ে আসতে হবে এখান থেকে।’  

তিনি আরও বলেন, ‘তারা যদি না পারে তাহলে আমার বলতে হবে, তাদের সামর্থ‍্য নেই। ওটাই আমাদের চিন্তা করতে হবে। এখনই সেরা সময়, তাদের বের হয়ে আসতে হবে। তাদের কী করতে হবে, সেটা তাদেরই ভাবতে হবে।’

বন্ধ করুন