বাংলা নিউজ > ময়দান > মার্সেলোর সঙ্গে ঝামেলা, ক্ষুব্ধ ফুটবলাররা, মাদ্রিদ ছাড়ার পথে জিদান
জিনেদিন জিদান।
জিনেদিন জিদান।

মার্সেলোর সঙ্গে ঝামেলা, ক্ষুব্ধ ফুটবলাররা, মাদ্রিদ ছাড়ার পথে জিদান

  • ২০১৬ সালে রিয়েল মাদ্রিদে কোচ হিসেবে যোগ দিয়েছিলেন জিদান। প্রথমে দু' বছরের চুক্তি ছিল। ২০১৯ থেকে আরও চার বছর চুক্তির মেয়াদ বাড়ানো হয়। সেই হিসেবে ২০২২ পর্যন্ত জিদানের সঙ্গে চুক্তি রয়েছে রিয়ালের।

টানা চার মরশুম কোচিং করানোর পর এ বার কি রিয়াল মাদ্রিদের সঙ্গে সম্পর্ক শেষ করতে চলেছেন জিনেদিন জিদান? স্পেনের সংবাদমাধ্যম থেকে সে রকম খবরই জানা যাচ্ছে। এমনও বলা হয়েছে, লা লিগায় শেষ ম্যাচের পরই জিদান সরকারি ভাবে রিয়াল ছাড়ার কথা ঘোষণা করবেন। তাঁর সঙ্গে নাকি জুভেন্তাসের কথা অনেকদূর এগিয়ে গিয়েছে। শোনা যাচ্ছে, আন্দ্রে পিরলোর উপর সন্তুষ্ট নন জুভি কর্তৃপক্ষ, সে কারণেই নাকি তাঁকে সরিয়ে জিদানকে দলের দায়িত্ব তুলে দেওয়া হবে।

এরই মধ্যে জিদানকে নিয়ে রিয়ালের অনেক ফুটবলারই ক্ষুব্ধ। মার্সেলো তো প্রকাশ্যে জিদানের স্ট্র্যাটেজি নিয়ে ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছেন। যার জেরে বৃহস্পতিবার রাতে গ্রানাডার বিরুদ্ধে ম্যাচে দলেই রাখা হয়নি ব্রাজিলের তারকা মিডফিল্ডারকে। যদিও রিয়াল ম্যাচটি জিতেছে। তবে শুধু মার্সেলো একা নন, অনেক ফুটবলারই তাঁর স্ট্র্যাটেজি এবং কিছু সিদ্ধান্ত নিয়ে রীতিমতো ক্ষুব্ধ। সব মিলিয়েই নাকি রিয়াল ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছেন জিদান।

২০১৬ সালে রিয়েল মাদ্রিদে কোচ হিসেবে যোগ দিয়েছিলেন জিদান। প্রথমে দু' বছরের চুক্তি ছিল। ২০১৯ থেকে আরও চার বছর চুক্তির মেয়াদ বাড়ানো হয়। লা লিগা ছাড়াও তাঁর হাত ধরে রিয়াল চ্যাম্পিয়ন্স লিগেও অসাধারণ পারফরম্যান্স করেছেন। তবে এ বছর দলকে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালে তুলতে না পেরে হতাশ রিয়াল কোচ। সেই হতাশাও নাকি তাঁর দল ছাড়ার আরও একটি কারণ। যদিও তাঁর সঙ্গে ২০২২ পর্যন্ত চুক্তি আছে রিয়েল মাদ্রিদের।

জিদানকে অবশ্য থেকে যাওয়ার জন্য রিয়ালের তরফে অনুরোধ জানানো হয়েছে। এবং ক্লাব কর্তৃপক্ষ মনে করছেন, জিদান তাঁদের অনুরোধ রাখবেন। তবে একান্তই যদি জিদান না থাকতে চান, সে ক্ষেত্রে এখন থেকেই পরিবর্ত ভাবতে শুরু করে দিয়েছে রিয়াল। তাঁদের তালিকায় সকলের আগে রয়েছে রিয়ালেরই প্রাক্তন ফুটবলার রাউলের নাম। রিয়ালের যুব দলের দায়িত্বে রয়েছেন রাউল। জিদানও কিন্তু একটা সময়ে রিয়ালের যুব দলের দায়িত্বেই ছিলেন। সেখান থেকেই সিনিয়র দলের কোচের দায়িত্ব তাঁর হাতে তুলে দেওয়া হয়। এর বাইরেও এই তালিকায় রয়েছেন জোয়াকিম লো এবং জুভেন্তাসের প্রাক্তন কোচ মাসিমিলিয়ানো আলেগ্রি। ইউরো কাপের পরই জার্মানির দায়িত্ব ছাড়ার কথা জোয়াকিম লো-র। আর আলেগ্রি এই মুহূর্তে কোনও ক্লাবের সঙ্গেই যুক্ত নেই।

বন্ধ করুন